মুন্সিপাড়ায় ফারাবীর ভাড়া বাসায় তল্লাশি : কম্পিউটার সিপিউ ও ল্যাপটপ জব্দ

Farabi House_Sylhetসুরমা টাইমস ডেস্কঃ ব্লগার ও লেখক অভিজিৎ রায়কে হত্যার ঘটনায় সিলেটের একটি বাসায় তল্লাশী চালিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। অভিজিৎ হত্যার ঘটনায় প্রধান সন্দেহভাজন গ্রেপ্তার শফিউর রহমান ফারাবি ওই বাসায় তার পরিবার নিয়ে থাকতেন বলে তথ্য পাওয়া গেছে গোয়েন্দা পুলিশের কাছ থেকে। তবে এমন কোনো তথ্য ছিলনা সিলেট মহানগর পুলিশের কাছে। গতকাল রোববার সকাল ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত নগরীর মুন্সিপাড়া ডি/১৬ নম্বর বাসার ৩য় তলায় সিলেট কোতোয়ালী থানার সহযোগিতায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিএমপি) একটি দল এ অভিযান চালায়। ওই বাসায় ফারাবি তার মা ও বোনকে নিয়ে ৩ বছর যাবত বসবাস করে আসছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।
অভিযানের সময় বাসা থেকে কম্পিউটারের একটি সিপিইউ, একটি ল্যাপটপ ও গুরুত্বপূর্ণ কিছু কাগজপত্র ও বই উদ্ধার করা হয়। ফারাবি গত তিনবছর থেকে মা ও বোনকে নিয়ে সিলেটে ওই বাসায় বসবাস করতেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। তবে এ ব্যাপারে কিছুই জানতেন না ওই এলাকার মানুষ ও মহানগর পুলিশ।
সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার মো. রহমত উল্লাহ গনমাধ্যমকে জানান, ফারাবি সিলেটের ওই বাসায় থাকতেন কিনা তা আমাদের জানা নেই। আর থাকলেও কোনো তথ্য আমাদের কাছে ছিলনা। তিনি বলেন, গতকাল ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিএমপি) একটি দল সিলেট আসার পর আমরা তা জেনেছি। তারা সহযোগিতা চাইলে আমরা তাদের সহযোগীতা করেছি। পাশাপাশি জানানো হয়েছে, তদন্ত করে দেখা হবে সিলেটে ফারাবির কোন নেটওয়ার্ক ছিল কি-না।
এদিকে গতকালের এ ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সাথে অভিযানে অংশ নেয়া কোতোয়ালী থানার এসআই ফয়েজ আহমদ সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ফারাবি যে বাসায় থাকত ওই বাসার মালিক মুজিবুর রহমান নামের এক ব্যক্তির। অভিযানকালে ফারাবির ফ্ল্যাটে কাউকে পাওয়া যায়নি বলেও জানিয়েছেন তিনি।
প্রসঙ্গত, মুক্তমনা ব্লগার প্রতিষ্ঠাতা অভিজিৎ রায়কে হত্যা ঘটনায় প্রধান সন্দেহভাজন হিসেবে শফিউল ইসলাম ফারাবিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ফারাবির গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মনবাড়িয়া হলেও তার কর্মতৎপরতা ছিল চট্টগ্রামে। গত ২ মার্চ চট্টগ্রাম যাওয়ার প্রাক্কালে ঢাকার যাত্রাবাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। গত এক বছর আগে ফারাবীর ফেসবুকে স্ট্যাটাসে মান্নান রাহী নামের এক ফেসবুক বন্ধুকে সে লিখেছে ‘অভিজিৎ রায় আমেরিকা থাকে। তাকে এখন হত্যা করা সম্ভব না। তবে সে যখন দেশে আসবে তখন তাকে হত্যা করা হবে। এছাড়াও অন্য এক বন্ধুকে অভিজিৎ রায় ও তার স্ত্রী, কন্যার ছবি পোস্ট করে তাদের পরিচয় দিয়ে সে লিখেছে, এটাই হলো অভিজিৎ রায়, তার স্ত্রী বন্যা আহমেদ ও তার মেয়ের ছবি, এরা সবাই আমেরিকার লুইসিয়ানা প্রদেশের নিউ অরলিন্স সিটিতে থাকে।
অভিজিৎ হত্যার পর ফারাবীকে তার এক বন্ধু রক্তাক্ত ছবি পাঠিয়ে জানতে চায়, ছবি পাইছেন কি? উত্তরে ফারাবী ছবি পেয়েছি’ বলে জানায়। ওই বন্ধু হত্যাকান্ডের পর তার অনুভূতি জানতে চাইলে ফারাবী তাকে লিখে, আমি গ্রেপ্তার হবো কাল, পরশুর মাঝে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close