মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ॥ প্রতিশ্রুতি ছিল সিলেটের, হচ্ছে রাজশাহী ও চট্টগ্রামে

mulaইয়াহইয়া মারুফঃ মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি ছিল। খোদ প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে অর্থমন্ত্রী-স্বাস্থ্যমন্ত্রী দীর্ঘদিন থেকেই আশ্বাস দিয়ে আসছিলেন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করা হবে। অর্থমন্ত্রীর নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিলো এটি। অথচ সিলেটকে স্বপ্ন দেখিয়ে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে। মন্ত্রী পরিষদ বৈঠকে শাহজালাল বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে থাকা সিলেট অঞ্চলের মেডিকেল কলেজ গুলোকে চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে নেওয়ার চেষ্টা চলছে বলেও সুত্রে জানাযায়। এ খবর বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রচারিত হওয়ার পর থেকে ওসমানী মেডিকেল কলেজে বিরাজ করছে হতাশা। বিশ^বিদ্যালয় হলে নিজ প্রতিষ্টান থেকে গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী কমপ্লিট করার শিক্ষার্থীদের যে স্বপ্ন ছিল। তা খোদ অন্ধকারেই থেকে গেল। গত সোমবার মন্ত্রী পরিষদ বৈঠকের নেওয়া খসড়া সিদ্ধান্তের পরপরই। এবিষয়টি নিয়ে সিলেটে শুরু হয়েছে আলোচনা-সমালোচনার। প্রশ্ন উঠেছে কার স্বার্থে প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও ওসমানী মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তরিত করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছেনা।
ওসমানী মেডিকেল কলেজ সুত্রে জানাযায়, চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে দুটো মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় চালু করতে গত সোমবার মন্ত্রীসভায় আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে সরকার। দীর্ঘ দিন থেকে সিলেটে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় চালুর সম্ভাবনা থাকলেও। গত সোমবার মন্ত্রীসভার সিদ্ধান্তে সেই সম্ভাবনা আর স্বপ্ন অনেকটাই ফিকে হয়ে গেলো। আবারো বঞ্চিত হয়ে স্বপ্নভঙ্গ হলো। ওসমানী মেডিকেল কলেজে পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীসহ সিলেটবাসীর । প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গত সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে চট্টগ্রাম ও রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১৫ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়। এ দুটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হলে দেশে চিকিৎসা বিষয়ে উচ্চশিক্ষার বিদ্যাপীঠের সংখ্যা হবে তিনটি। ১৯৯৮ সালে ইন্সটিটিউট অফ পোস্ট গ্র্যাজুয়েট মেডিসিন অ্যান্ড রিসার্চ কে (পিজি হাসপাতাল) বাংলাদেশের প্রথম চিকিৎসা বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করা হয়।
এ সময় বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা সাংবাদিকদের বলেছিলেন, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজসহ আঞ্চলিক মেডিকেল কলেজগুলো এ দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হবে। দেশে বর্তমানে ২৩টি সরকারি মেডিকেল কলেজ আছে। আরও পাঁচটি মেডিকেল কলেজ চালুর প্রক্রিয়া চলছে।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, কেবল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় দেশে ক্রমবর্ধমান বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক তৈরির চাহিদা মেটাতে পারছে না বলেই এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
ওসমানী মেডিকেল কলেজ সুত্র জানায়, আবুল মাল আবদুল মুহিত অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণের পর যতবার ওসমানী হাসপাতালে গেছেন প্রায় প্রতিবারই। অচীরেই এই মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীতের আশ্বাস প্রদান করেছিলেন। এমনকি এই বছরের শুরুর দিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একটি অনুষ্ঠানে আসলে তাকে এই কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নীতের প্রধানমন্ত্রীর আশ্বাসের কথা জানানো হয়। এসময় নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে এই মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করা হবে।
সুত্র জানায়, গত সরকারের আমল থেকেই ওসমানী মেডিকেল কলেজকে বিশ^বিদ্যালয় করার আশ^াস দেওয়া হচ্ছে। এমন কি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত‘র নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিলো এটি। তবে গত সোমবার স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী, নির্বাচনকালী প্রতিশ্রুতি দেওয়া অর্থমন্ত্রী, স্বাস্থমন্ত্রীর উপস্থিতিতে মন্ত্রীসভার বৈঠকে উপেক্ষিত থেকে যায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ। এ খবর বিভিন্ন গুমাধ্যমে প্রচার হওয়ার সাথে সাথেই। সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে বিরাজ করছে হতাশা। ভঙ্গ হলো শিক্ষার্থীদের বিশ^বিদ্যালয় হলে নিজ প্রতিষ্টানেই গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী কমপ্লিট করার স্বপ্ন। শাহজালাল বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে থাকা সিলেট অঞ্চলের মেডিকেল কলেজগুলোকে। চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে নেওয়ার চেষ্টা চলছে বলে গোপণ সুত্রে পাওয়া খবরেও ক্ষুদ্ধ। সিলেট অঞ্চলের মেডিকেল শিক্ষার্থীরা। তারা তাদের জন্য এমন কষ্টদায়ক সিদ্ধান্তের চেষ্টার ব্যাপারে। শীঘ্রই মন্ত্রী পরিষদ ও বিশ^বিদ্যালয় নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষে কাছে। সিলেট অঞ্চলের শিক্ষার্থী-শিক্ষকরা লিখিত আবেদন করবেন বলেও জানায় সুত্র।
এদিকে গত সোমবার মন্ত্রী পরিষদ বৈঠকের নেওয়া খসড়া সিদ্ধান্তের পরপরই। এবিষয়টি নিয়ে সিলেটে শুরু হয়েছে আলোচনা-সমালোচনার। অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন স্বার্থে প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও ওসমানী মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তরিত করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছেনা। সিলেটবাসীর দীর্ঘদিনে এই দাবিটি মীঘ্রই পুরণেরও দাবি জানান অনেকেই।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিলেট অঞ্চলের মেডিকেল এক পড়–য়া ছাত্র বলেন, শুনেছি মন্ত্রী পরিষদ বৈঠকে নাকি শাহজালাল বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে থাকা। সিলেট অঞ্চলের মেডিকেল কলেজগুলোকে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের অধীনে নেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। মন্ত্রী পরিষদ এমন সিদ্ধান্ত নিলে সিলেটে মেডিকেল পড়–য়াদের জন্য। সেটা হবে অমানবিক একটা সিদ্ধান্ত। কারণ সিলেট থেকে চট্টগ্রাম গিয়ে পড়া আমাদের জন্য অনেক কষ্টকর হয়ে দাড়াবে। এতে শিক্ষার্থীদের মেডিকেল পড়ার আগ্রহ কমে যাবে। তাই আমরা আমাদের শিক্ষকদের নিয়ে খুব শীঘ্রই মন্ত্রী পরিষদ ও বিশ^বিদ্যালয় নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষের কাছে আমাদের বিষয় বিবেচনার লিখিত আবেদন করব।
সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ৫০তম ব্যাচের ৪র্থ বর্ষের ছাত্র নাজমুল আলম সবুজ সিলেটকে বলেন, প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থমন্ত্রী ও আমাদের অর্থমন্ত্রী দীর্ঘদিন থেকে আমাদের আশ^স্থ করছিলেন। ওসমানী মেডিকেল কলেজকে শীঘ্রই বিশ^বিদ্যালয় করা হবে। ঠিক তখন থেকে আমরা স্বপ্ন দেখি। আমাদের কলেজকে বিশ^বিদ্যালয় করা হলে। নিজের প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্টান থেকেই গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী কমপ্লিট করব। কিন্তু গত সোমবার মন্ত্রী পরিষদের নেওয়া সিদ্ধান্তে আমাদের সেই স্বপ্নকে ভঙ্গ করা হয়েছে।
সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. মোর্শেদ আহমদ চৌধুরী গত বুধবার সবুজ সিলেটকে বলেন, ওসমানী মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তরিত হওয়ার জন্য সবধরণে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। বর্তমানেও এই মেডিকেল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৬ কোর্চ পরিচালনা করছে। স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে অর্থমন্ত্রী,স্বাস্থ্যমন্ত্রী দীর্ঘদিন থেকেই আশ্বাস দিয়ে আসছিলেন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তরিত করা হবে। অর্থমন্ত্রীর নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিলো এটি। অথচ উনাদের উপস্থিতিতেই বঞ্চিত করা হলো গণতন্ত্রের আপোষহীন সংগ্রামী মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এমএজি ওসমানী‘র নামে স্বৃতি বিজরীত এই প্রতিষ্টানকে। সিলেটবাসীকে স্বপ্ন দেখিয়ে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে চট্টগ্রাম ও রাজশাহীতে। মন্ত্রী পরিষদ বৈঠকের এমন সিদ্ধান্তে সিলেট অঞ্চলের মেডিকেল পড়–য়া শিক্ষার্থীসহ আমরা সবাই হতাশ। এরপরও সিলেটবাসীর পক্ষ থেকে আমি প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী‘র কাছে অনুরোধ করি। এযাবৎ সিলেটকে বঞ্চিত করা হলেও। অন্তত প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী‘র দেওয়া প্রতিশ্রুতির সম্মান রক্ষার্থে হলেও যত তাড়াতাড়ি সম্ভব। সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজকে বিশ^বিদ্যালয়ে রুপান্তরিত করার।
সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান সবুজ সিলেটকে বলেন, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তরিত করা সিলেটবাসীর দীর্ঘদিনের দাবী। প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কাছে আমাদের অনুরোধ দেড়কোটি মানুষের আশ্রয়স্থল এই মেডিকেল কলেজকে বিশ^বিদ্যালযে রূপান্তরিত করে দেড়কোটি মানুষের আশা পুরণ করার।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close