বাংলাবাজার ইউপি উপ-নির্বাচনে প্রার্থী আ’লীগ ২, বিএনপি ২

duarabazar electionসুরমা টাইমস ডেস্কঃ আগামী ১৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের উপ-নির্বাচন। এ নির্বাচনে ৪জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধীতায় নেমেছেন। নির্বাচনকে ঘিরে ইউনিয়নে এখন চলছে উৎসবের আমেজ। প্রার্থীদের বিরামহীন প্রচারনায় সরগরম হয়ে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ। ইউনিয়নের হাট-বাজার, পয়েন্ট ও গ্রামেগঞ্জে প্রচারাভিযানে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন প্রার্থীরা।
ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ২০ হাজার ৫শ’১৮জন। গত বছরের ২০ ডিসেম্বর টানা ৪ বারের নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুস সোবহান মৃত্যুবরন করলে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদ শুন্য হয়। বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন মহিলা সদস্যা মিনারা বেগম। উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামীলীগ সমর্থিত জসিম মাষ্টার (তাল গাছ), আবুল হোসেন (অটো-রিক্সা), বিএনপি সমর্থিত আব্দুর রহিম ( দু’টি পাতা), মোরশেদ আলম (টেবিল ফ্যান) প্রতীক নিয়ে লড়ছেন। ইউনিয়নের ৯টি কেন্দ্রে ভোটাররা ১৯ মার্চ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। প্রার্থীদের মধ্যে ৩জন প্রার্থী মাঠে নির্বাচনী প্রচারনায় ব্যস্থ সময় পার করলেও মোরশেদ আলম রয়েছেন জেল হাজতে।
গত ১২ ফেব্রুয়ারী যৌথবাহিনী তাকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করেছে। তার বিরুদ্ধে রয়েছে একাধিক মামলা। তবে নির্বাচনী মাঠ গরম করে রেখেছেন তার স্ত্রী জোবলী আক্তার মোরশেদ। তিনি স্বামীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন ভোটারদের বাড়ি-বাড়ি গিয়ে। মরহুম আব্দুস সোবহান চেয়ারম্যানের ছোট ভাই আব্দুর রহিমও উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন। এ ইউনিয়নে টানা ৪ বারের নির্চাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন আব্দুস সোবহান। বড় ভাই’র জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে প্রচার প্রচারনায় এগুচ্ছেন আব্দুর রহিম। অপর দিকে সরকার দল সমর্থিত প্রার্থী জসিম মাষ্টার এ ইউনিয়নের নির্বাচনে আরো দু’বার প্রার্থী হয়েছিলেন কিন্তু বিজয়ী হতে পারেননি। এবারের উপ-নির্বাচনে ভোটারের সমর্থন নিয়ে বিজয়ী হবেন বলে এমন কথা বলেন তার সমর্থকেরা। সরকার দলীয় সমর্থিত আরেক প্রার্থী এম আবুল হোসেন জানান, সুষ্টু নির্বাচন হলে তিনিই বিজয়ী হবেন। ইউনিয়নের ৯টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে অতি ঝুঁকিপূর্ন কেন্দ্র হচ্ছে বাশঁতলা ও হক নগর কেন্দ্র। ঝুঁকিপূর্ন কেন্দ্র হিসেবে চিহিৃত করা হয়েছে কলাউরা মাদ্রাসা ও কুশিউরা মাদ্রাসা কেন্দ্রকেও। এসব কেন্দ্রে ভোট ডাকাতি, পেশী শক্তি ব্যবহারসহ বিভিন্ন জাল-জালিযাতির অভিযোগ আগ থেকেই উত্থাপন করছেন উপ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী এম আবুল হোসেন, আব্দুর রহিম ও মোরশেদ আলমের স্ত্রী জুবলী আক্তার মোরশেদ। অতীতের রেকর্ড থেকেই তারা এসব কেন্দ্রে ভোট ডাকাতির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান। মোরশেদ আলমের স্ত্রী জুবলী আক্তার মোরশেদ বলেন প্রতিদ্বন্ধীরা আমার স্বামীর জনপ্রিয়তা দেখেই তাকে চক্রান্ত করে আগে থেকেই মাঠ থেকে সরিয়ে রেখেছেন। আমি আশাবাদী আমার স্বামী জনতার দোয়ায় বিজয়ের বেশে ফিরে আসবেন। মরহুম আব্দুস সোবহান চেয়ারম্যানের ছোট ভাই আব্দুর রহিম জানান, বাংলাবাজার ইউনিয়নের জনগন আমার বড়ভাইকে মনেপ্রানে ভালবাসতো। আমার ভাইয়ের অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে আমি এ উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি। আশা করি আমাকেও ভালবেসে তারা ভোট দিয়ে সে সুযোগ করে দিবেন। আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থী এম আবুল হোসেন জানান, বাংলাবাজার ইউনিয়নের মানুষ সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে আরো বেগবান করতে আমাকে নির্বাচিত করবে। দোয়ারাবাজারের নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইফুল ইসলাম ও স্থানীয় সাংবাদিক অসিত কুমার দাস জানান, সুষ্টু নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close