একজন খুনী হিসেবে খালেদা জিয়াকে অবশ্যই কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে

বিশ্বনাথে কৃষকলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে শফিক চৌধুরী

shofik chowdhuryবিশ্বনাথ প্রতিনিধি: সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, ৫ জানুয়ারীর নির্বাচনে অংশগ্রহন না করে যে ভুল করে ছিলেন খালেদা জিয়া, এখন টানা অবরোধের নামে পেট্টোল বোমা নিক্ষেপ করে জীবন্ত মানুষে পুড়িয়ে মেরে, জনগণের সম্পদ ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে পুড়িয়ে ছাই করে এর প্রতিশোধ নিচ্ছেন। অবরোধের নামে খালেদা জিয়া জনগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে দেশে সন্ত্রাসী-জঙ্গিবাদী কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। মানুষকে পুড়িয়ে মারার অপরাধে একজন খুনী হিসেবে খালেদা জিয়াকে অবশ্যইকাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। তিনি আরও বলেন মানুষকে যাঁরা পুড়িয়ে মারবে, জনগণের সম্পদ যাঁরা পুড়িয়ে ছাই করবে, তাঁরা মানুষ নয়। ওঁরা শয়তান। ওঁরা পশুর সমান। সন্ত্রাসী ও জঙ্গিবাদী কর্মকান্ড পরিচালনা করে বিএনপি-জামায়াতের নেতা-কর্মীরা পার পাবেন না। আমরাও তাঁদের বাড়ি-ঘরের ঠিকানা জানি, কার কি সম্পদ আছে তাও আমাদের অজানা নয়। জনগণ তাঁদেরকে যে কোন সময়ই প্রতিরোধ করতে পারে এটা ভুলে গেলে চলবে না। গতকাল শুক্রবার বিকেলে বিশ্বনাথে উপজেলা কৃষকলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথাগুলো বলেন। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন জেলা কৃষকলীগের সভাপতি শাহ নিজামউদ্দিন ও প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শামছুল ইসলাম।
উপজেলা কৃষক লীগের আহবায়ক ছুরাব আলীর সভাপতিত্বে ও উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম সিরাজের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-সম্পাদক শাহ আহমেদুর রব, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজম্মিল আলী, সহ-সভাপতি শাহ আসাদুজ্জামান আসাদ, সাধারণ সম্পাদক বাবুল আখতার, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগ নেতা পংকি খান। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করে মাওঃ ফরিদউদ্দিন ও শোক প্রস্তাব পাঠ করেন উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক আলতাব হোসেন।
সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা ছৈফ উল্লাহ, উস্তার আলী, মকদ্দুছ আলী, আপ্তাব আলী, প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতা সুনু মিয়া, আবদুল গফুর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সমছু মিয়া, যুগ্ম-সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান, প্রচার সম্পাদক নিখিল পাল, আইন সম্পাদক শফিকউদ্দিন স্বপন, কৃষি সম্পাদক আবদুল মান্নান, বন ও পরিবেশ সম্পাদক রুনু কান্ত দে, ত্রান ও দুর্যোগ সম্পাদক ফজলু মিয়া, আওয়ামী লীগ নেতা মাহবুবুর রহমান লিলু, রইছ আলী, আবদুন নূর, শংকর ধর, আরশ আলী, তফজ্জুল আলী, সুফী শামছুল ইসলাম, মহব্বত আলী, আবদুল মোমিন, দিলোয়ার হোসেন রুপন, ইলিয়াস মিয়া, বীরেন্দ্র কর, আবুল মিয়া, আখদ্দুছ আলী, জয়দু মিয়া, উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-আহবায়ক সাইদুর রহমান, বদরুল ইসলাম, সাহাবউদ্দিন, কাছা মিয়া মেম্বার, আকবর আলী, শাহ কবির, মিনা বেগম, উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি আমির আলী, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান, যুগ্ম-সম্পাদক শাহজাহান সিরাজ, সাংগঠনিক সম্পাদক আরান দেব, সদস্য আরশ আলী, তাজির আলী, জেলা যুবলীগ নেতা শেখ আজাদ, উপজেলা যুবলীগ নেতা আবুল কালাম জুয়েল, শাখাওয়াত হোসেন, জহুর আলী, ওয়াহাব আলী, আনোয়ার মিয়া, রফিক মিয়া, তৈমুছ আলী, হাবিবুর রহমান মিনু, শাহীন আহমদ, রফিক হাসান, তাজুল ইসলাম, সঞ্চিত আচার্য্য, জুনাব আলী, রুহেল খান, দবির মিয়া, উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শামীম আহমদ, ফয়েজ মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক ফয়জুল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক আবদুল মালিক সুমন, মুহিবুর রহমান সুইট, বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি শীতল বৈদ্য, ছাত্রলীগ নেতা কাওছার আহমদ, সায়েদ মিয়া, রাজু আহমদ খান, সাদেক মিয়া, উপজেলা প্রজন্মলীগের আহবায়ক তোফায়েল আহমদ কামাল, জেলা তরুনলীগ নেতা আবদুল বাতিন, উপজেলা তরুনলীগের যুগ্ম আহবায়ক সাঈদ মিয় প্রমুখ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close