চরম উত্তেজনার মধ্যদিয়ে দীর্ঘদিন পর বালাগঞ্জ থানা আ’লীগের বর্ধিথ সভা অনুষ্টিত

শাহ মো. হেলাল, বালাগঞ্জঃ টান টান উত্তেজনার মধ্য দিয়ে বালাগঞ্জ থানা আ’লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্টিত হয়েছে। চাওয়া-পাওয়া এবং বিগত উপজেলা নির্বাচন কেন্দ্র করে বিভক্ত থানার শাখার সাংগঠনিক কার্য্যক্রম গতিশীল করার লক্ষ্যে দিনব্যাপী এ সভা গতকাল রোববার উপজেলার এমএ খান অডিটোরিয়ামে অনুষ্টিত হয়।
বালাগঞ্জ থানা শাখার সভাপতি মো. মোস্তাকুর রহমান মফুর’র সভাপতিত্বে এবং সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন খানের পরিচালনায় অনুষ্টিত এ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন সিলেট জেলা আ,লীগের সভাপতি আব্দুজ জহির চৌধুরী সুফিয়ান, সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, সহসভাপতি মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপি, জেলা আ’লীগ নেতা এডভোকেট শেখ মকলু মিয়া, এডভোকেট রনজিৎ সরকার,এমাদ উদ্দিন জগলু চৌধুরী, বক্তৃতা করেন বালাগঞ্জ থানা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনহার মিয়া। সভায় উপস্থিত ছিলেন থানা ও বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
সভার এক পর্যায়ে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোস্তাকুর রহমান মফুর ও সাধারন সম্পাদক মো. আনহার মিয়া অনুসারিদের মধ্যে চরম উত্তজনা দেখা দিলে উপস্থিত জেলা শাখার নেতৃবৃন্দের হস্তেেপ পরিস্থিতি শান্ত হয়।
পরিশেষে উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি মোস্তাকুর রহমান মফুর ও সাধারন সম্পাদক মো. আনহার মিয়া’র মধ্যে সমজতা ও কোলাকুলির মাধ্যমে সভার পরিসমাপ্তি হয়।
প্রসঙ্গত, বিগত দিনে চাওয়া-পাওয়া এবং উপজেলা নির্বাচনে কেন্দ্র করে থানা আওয়ামীলীগ দু’ধারায় বিভক্ত হয়ে পড়ে। উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর নেতৃত্বে একটি ধারা। অপর দিকে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও বিআরডি’র চেয়ারম্যান মো. আনহার মিয়া নেতৃত্বে ছিল অপর ধারা। তাদের মধ্যে এমনি অবস্থা ছিল য়ে বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে আওয়ামীলীগের রাজনৈতিক বিরোধ যতটা জটিল তার চেয়ে বেশি জটিল ছিল মফুর-আনহার বিরোধ। এ দুই নেতার বিরোধে থানার ৬টি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। একই দলের উপজেলা পর্য়ায়ের এ দুই নেতা একজন অপরজনকে বর্জন করে চলতে থাকেন।
দীর্ঘদিন ধরে ভুলেও দলীয় কর্মসুচিতেও এক সঙ্গে দুইজনের উপস্থিতি ঘটেনি । নিজ নিজ অনুসারীদের নিয়ে চলতো তাদের পথ চলা। দুই নেতার বিরোধকে কেন্দ্র করে থানা আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে নতুন মেরুকরণ সৃষ্টি হয়।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close