৫ থেকে ৭ দিনে পরীক্ষা নেয়ার চিন্তা করা হচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী

1ডেস্ক রিপোর্ট :: পাবলিক পরীক্ষাগুলোর সময় কমানোর বিষয়ে চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ভবিষ্যতে ছয়দিনের মধ্যে বিশেষ করে এইচএসসির লিখিত পরীক্ষা নেয়ার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। তবে সেটি পাঁচ থেকে ছয়দিন অথবা ১০ থেকে ১৫ দিনও হতে পারে। গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরী মহিলা কলেজ কেন্দ্রে সরেজমিনে এইচএসসি পরীক্ষা পরিদর্শনে গিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এতথ্য জানান।
এদিকে নানা সমালোচনার মুখে পরীক্ষার্থীদের অসুবিধার কথা ভেবে এবারই প্রথম কেন্দ্রের ভেতরে প্রবেশ করেননি শিক্ষামন্ত্রী। তিনি কেন্দ্রের বারান্দায় দাঁড়িয়ে ও জানালার ফাঁক দিয়ে পরীক্ষা হলের পরিবেশ দেখেন এবং কেন্দ্র কর্তৃপক্ষের কাছে পরীক্ষার বিষয়ে খোঁজখবর নেন। এছাড়া তার সঙ্গে কোনো কর্মকর্তাকেও এবার নেননি। কেবলমাত্র কেন্দ্র সচিব তার সঙ্গে ছিলেন। কেন্দ্র পরিদর্শন  শেষে শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, এক মাস থেকে দেড় মাস পর্যন্ত লম্বা সময় পরীক্ষা নেয়ার ফলে কেন্দ্র সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় ব্যাঘাত ঘটে। তাদের সময় নষ্ট হয়। এছাড়া শিক্ষকদের একটি অংশকে পরীক্ষার কাজে নিয়োজিত রাখায় ওইসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও শিক্ষক সংকটে পড়ে বলে মনে করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে তাই পরীক্ষার সময় কমানোর চিন্তা ভাবনা করা হচ্ছে। তবে এখনই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে এমন নয়। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এটা আমি ধারণার কথা বলছি। ৫  থেকে ৬ দিনই হবে, কিংবা ১০ থেকে ১৫ দিনই হবে  সেটা কথা নয়। এটা যে হবেই সেটা আমি বলছি না। আমি আমার ধারণার কথা বলছি। কিন্তু আমাদের কমাতে হবে। আমি আমার আইডিয়াগুলো বলছি। তিন চারটা বিষয় বিষয় একত্র করে গ্রুপওয়াইজ একেকটা পরীক্ষা নিতে পারি উল্লেখ করেন তিনি। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরীক্ষায় বিষয় বাড়তে বাড়তে আজকাল ২৯২টি বই প্রাথমিক ও মাধ্যমিকে রয়েছে। এতগুলো বইয়ের পরীক্ষা আমাদের নিতে হয়।এগুলোতে আমরা অভ্যস্ত, বই যত বাড়ে সাবজেক্টও তত বাড়ে। আমাদের এরকম একটা পরিমাপ বের করতে হবে, যাতে এইগুলো পাশ করলে পাশ বলে গণ্য হবে। গতকাল  সারা দেশে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়েছে। এ বছর পরীক্ষায় ১২ লাখ ১৮ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। প্রথমদিন এইচএসসিতে বাংলা প্রথম পত্র এবং আলিমে কোরআন মজিদ বিষয়ের পরীক্ষা হবে। এবার প্রথমবারের মতো এমসিকিউ অংশ প্রথম ৫০ মিনিটে নেয়া হবে। ১০ মিনিট বিরতি দিয়ে পরের দু’ঘণ্টায় নেয়া হবে সৃজনশীল অংশের পরীক্ষা।এবার ৮টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ডের অধীনে ১২ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। গত বছর পরীক্ষার্থী ছিল ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪ জন। এবারের মোট পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯ লাখ ৬১ হাজার ৭০২ জন নিয়মিত। অনিয়মিত ২ লাখ ৪৬ হাজার ৩৪১ জন। এসব শিক্ষার্থী গত বছর সর্বনিু এক বিষয়  থেকে সব বিষয়ে ফেল করা। এছাড়া প্রাইভেট পরীক্ষার্থী ৪ হাজার ২০২ জন আর মানোন্নয়ন পরীক্ষার্থী আছে ৬ হাজার ৩৮৩ জন ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close