সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি, কারা আসছেন নতুন নেতৃত্বে

BNP Logoডেস্ক রিপোর্টঃ আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। দীর্ঘদিন ধরে শীতনিদ্রায় থাকা বিএনপি’র সম্মেলনকে ঘিরে দেখা দিয়েছে চাঙ্গা ভাব। নানা বলয়ে বিভক্ত সিলেট বিএনপিতে ফের চাঙ্গা হয়ে ওঠেছে বলয় ভিত্তিক তৎপরতা।
পদ প্রত্যশী নেতারা শুরু করে দিয়েছেন দৌড়ঝাপ। দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন তারা। যোগাযোগ করার চেষ্টা করছেন যুক্তরাজ্যে অবস্থানরত দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের সাথেও।
এবার জেলা ও মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচনের মাধ্যমে বাছাইয়ের ঘোষণা দেওয়ায় কাউন্সিলরদের সাথেও যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন পদ প্রত্যাশীরা। কমিটিতে নিজেদের বলয়ের নেতাদের পদ প্রাপ্তি নিশ্চিত করতেও দৌড়ঝাপ করছেন বলয় প্রধানরা।
আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি সিলেট নগরীর কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদে আয়োজিত জেলা ও মহানগর বিএনির সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, যুগ্ম মহাসচিব মোহাম্মদ শাহজাহান সহ কেন্দ্রীয় নেতারা। এদিন সকালে জেলা ও বিকেলে মহানগর বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।
সিলেট জেলা বিএনপির ১৭টি ইউনিটের তিনজন করে ৫১ জন এবং মহানগর বিএনপির ২৭টি ওয়ার্ডের ৩ জন করে ৮১ কাউন্সিলর রয়েছন।
জানা যায়, ২০১৪ সালে এপ্রিল মাসে এড. নুরুল হককে সিলেট জেলা বিএনপির আহবায়ক ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরীকে সিলেট মহানগর কমিটির আহবায়ক করে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়।
৩ মাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের কথা থাকলেও দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জেলা ও মহানগরের সম্মেলন। দীর্ঘদিন পর সম্মেলন হওয়ায় নেতাকর্মীদের মধ্যে হঠাৎ ফিরে এসেছ প্রাণচাঞ্চল্য। একইসঙ্গে সম্মেলনকে ঘিরে সিলেট বিএনপির ‘চিরশত্রু’ আভ্যন্তরীন কোন্দল ফের চাঙ্গা হয়ে ওঠারও শঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেকে।
সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির একাধিক নেতা জানান, জেলা সভাপতি হিসেবে সাবেক সাংসদ ও সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক দিলদার হোসেন সেলিম, কেন্দ্রীয় সদস্য ও জেলার যুগ্ম আহ্বায়ক আবুল কাহের শামীম ও মুক্তিযোদ্ধা দলের আহ্বায়ক আবদুর রাজ্জাক তৎপরতা চালাচ্ছেন। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি এড. শামসুজ্জামান জামান, জেলার যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহমদ ও সিলেট জেলা ছাত্রদল সাবেক সভাপতি এমরান আহমদের নাম শোনা যাচ্ছে।
জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক পদের দৌড়ে রয়েছেন সাবেক তিন ছাত্রদল নেতা এড. হাসান পাটোয়ারী রিপন, আবদুল আহাদ খান জামাল ও সিদ্দিকুর রহমান পাপলু।
অপরদিকে সিলেট মহানগরের সভাপতি পদে বর্তমান আহ্বায়ক ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি নাসিম হোসাইন ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাইয়ূম জালালী পংকি প্রার্থী হচ্ছেন।
সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সদস্য সচিব বদরুজ্জামান সেলিম, কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম ও কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদির নাম আলোচিত হচ্ছে।
এছাড়া জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মহানগরের আহবায়ক কমিটির বর্তমান সদস্য আজমল বখত সাদেক, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ূন কবির শাহীন ও মিফতা সিদ্দিকী মিফতার নাম শোনা যাচ্ছে।
তবে ইলিয়াস আলী ও সাইফুর রহমান এ ২টি শিবিরে বিভক্ত সিলেটের বিএনপির নেতৃত্বে উভয় বলয়ের হাতে থাকবে বলে জানিয়েছেন অনেকে। এক্ষেত্রে প্রত্যাশীত পদ পাওয়া থেকে এক্ষেত্রে বঞ্চিত হতে পারেন অনেকে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির দুই নেতা বলেন, যেহেতু এবার কাউন্সিলরা ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্বাচন করবেন, তাই যাদের সব সময় মাঠে পাওয়া যায়, আন্দোলন সংগ্রামে যারা সব সময় সক্রিয় থাকেন তারাই আসবেন নতুন নেতৃত্বে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close