মাদকমুক্ত যুবসমাজ গঠনের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে

Pসিলেটেরে বিভাগীয় কমিশনার মো. জামাল উদ্দিন আহমেদ বলেছেন- তরুণ প্রজন্ম আগামী দিনের ভবিষ্যৎ, সুন্দর দেশ গঠনের কা-ারি। তাদের যথাযথভাবে গড়ে তোলা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। মাদকমুক্ত যুবসমাজ গঠনের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন- আইন প্রয়োগকারী সংস্থার পাশাপাশি মাদকের করাল গ্রাস থেকে রক্ষা করতে অভিভাবক, পরিবার ও সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে। মাদকাসক্ত যুবক একটি পরিবারকে ধ্বংস করে দিতে পারে। তাদের অবহেলা না করে সঠিক চিকিৎসা ও সচেতনতার মাধ্যমে মাদকাসক্তদের সুস্থ জীবনে ফিরে আনা সম্ভব।
মাদকদ্রব্যের অপব্যবহারের কুফল বিষয়ে গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে মাদকবিরোধী অভিযান ও প্রচার-প্রচারণা চালানোর জন্য জানুয়ারী ২০১৬ মাসে দেশব্যাপী মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কর্তৃক মাদকবিরোধী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এর প্রেক্ষিতে সিলেট বিভাগের প্রতিটি জেলায় মাসব্যাপী বিভিন্ন কর্মসুচি গ্রহন করেছে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসারের কার্যালয়। কর্মসুচির অংশ হিসেবে সিলেট জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসারের কার্যালয়ের উদ্যোগে গতকাল শুক্রবার সিলেট সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ প্রাঙ্গণে ফিতা কেটে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথাগুলো বলেন এবং স্বাক্ষর করেন।
বিভাগীয় কমিশনার বলেন- মাদক সমাজ, জাতি ও মেধাকে নষ্ট করে দেয়। মাদকের অপব্যবহার রোধে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে বর্তমান সরকার সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে এবং করবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মদ, জুয়া, গাঁজা বন্ধ ঘোষণা করলেও পরবর্তীতে সরকারিভাবে মদের লাইসেন্স প্রদান করা হয়, যা খুবই দুঃখজনক। তিনি প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।
উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. জয়নাল আবেদীন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক মো. জাফরুল্ল্যাহ কাজল, উপ-পরিচালক মো. জাহিদ হোসেন মোল্লা ও মো. জাকির হোসেন ভূঁঞাসহ অধিদপ্তরের অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ গণস্বাক্ষর কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন।
মাসব্যাপি কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- মাদকবিরোধী আলোচনাসভা, জুম্মার নামাজের খুৎবার পূর্বে ইমামদের মাধ্যমে মাদকবিরোধী বক্তব্য প্রদান, মাদকবিরোধী গণস্বাক্ষর কার্যক্রম পরিচালনা, মাদকবিরোধী চলচ্চিত্র প্রদর্শন, মাইকিং, মাদকবিরোধী পোস্টার-লিফলেট-স্টিকার বিতরণ, মাদকবিরোধী র‌্যালী, মাদকবিরোধী অভিযান ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা, স্থানীয় ক্যাবল অপারেটরের মাধ্যমে মাদকবিরোধী প্রচারণা, কনসার্ট ইত্যাদি কর্মসুচি পালন করা হবে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close