আহমদ নূরউদ্দিনের সন্ত্রাসী কার্যকলাপে গোটা উপজেলা কলংকিত হয়েছে

বিশ্বনাথে সম্বনয় সভায় হামলার প্রতিবাদে সভায় বক্তারা

pic1 (1) pic1 (2)বিশ্বনাথ প্রতিনিধিঃ বিশ্বনাথে উপজেলা পরিষদের সমন্বয় সভায় গত ২৬ নম্ভেবর পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান আহমদ নূরউদ্দিনের নেতৃত্বে সম্বনয় সভায় হামলার প্রতিবাদে গতকাল শনিবার বিকেলে উপজেলার অলংকারি ইউনিয়নবাসীর ব্যানারে ইউনিয়ন পরিষদ প্রাঙ্গনে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তারা বলেন, সন্ত্রাসী আহমদনূরউদ্দিন তার সাঙ্গ-পাঙ্গ নিয়ে পরিষদের সম্বনয় সভা চলাকালিন সময়ে অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে হামলা করে পরিষদ চেয়ারম্যান ও অলংকারি ইউপি চেয়ারম্যানকে আহত করেছেন। তার এই সন্ত্রাসী কার্যকলাপের ফলে গোটা উপজেলা কলংকিত হয়েছে। তারা বলেন, বাংলাদেশে আজ পর্যন্ত কোনো উপজেলা পরিষদের এভাবে হামলার নজির নেই। বিশ্বনাথে উপজেলা পরিষদের সন্ত্রাসীরা হামলা করে সারা দেশে কলংক রুপন করেছে। সেই সন্ত্রাসীদের বিচার এই বিশ্বনাথের মাঠি হতে হবে।
বক্তারা আরো বলেন, সম্বয়ন সভায় উপজেলা প্রশাসনের সর্বোচ্চ ক্ষমতাবান ব্যক্তি উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপস্থিত ছিলেন। তাঁর উপস্থিতিতে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে উপজেলাবাসীর প্রশ্ন, প্রশাসন আজও নিরব কে? সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা হলেও আজও পুলিশ তাদের গ্রেফতার করতে পারেনি। কার ইন্ধনে সন্ত্রাসীরা গ্রেফতার হচ্ছেনা তা উপজেলাবাসী জানতে চায়? যারা এই সন্ত্রাসীদের মদদ দিচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধেও বিশ্বনাথবাসী সজাগ রয়েছেন। অভিলম্ভে কুখ্যাত সন্ত্রাসী আহমদ নূরউদ্দিনকে গ্রেফতার না করা হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষনা করা হবে। অভিলম্ভে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূল শাস্তির জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।
অলংকারি ইউপির মুরব্বী মজিরুল ইসলাম চৌধুরী (তকবির মিয়া) সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য আবদুল ওয়াদুদ আজাদ মিয়া এবং কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য সিতার মিয়ার পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও অলংকারি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. লিলু মিয়া।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেণ কেন্দ্রিয় আল-ইসলাহ’র মহা-সচিব মুফতি মাওলানা, অধ্যক্ষ এ,কে এম. মনোত্তর আলী, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্বপাদক মো. আবদুল হাই, সমাজসেবক চেয়াগ আলী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তফজ্জুল আলী মেম্বার, সমাজসেবক এম.এ.মল্লিক, ফারুক আহমদ, মাষ্ঠার আবদুল হেকিম, এম.এ.হক, আবদুল কুদ্দুছ, আজম আলী, ইউপি সদস্য সজ্জাদ আলী, শালিস ব্যক্তি শফিক আহমদ, যুবদল নেতা রানা মিয়া, সমাজ সেবক ইকবাল আহমদ, আজম ইসলাম, সুহেল আহমদ, যুবদল নেতা রাসেল আহমদ, ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমান।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আরশ আলী, মুরব্বী মনিরুজ্জামান, শাহ আজমল ইসলাম রাজন, আরফান আলী মেম্বার, রফিক মিয়া মেম্বার, নানু মিয়া, হিরন মিয়া, নিজাম আলী, রিয়াজ আলী, তবারক আলী, ছয়ফুল ইসলাম, আলফু মিয়া, আবদুল কাদির, তৈয়ব আলী, মনফর আলী, আশরাফ আলী, সফিক মিয়া, রফিকুল ইসলাম, দুলাল আহমদ, ময়না মিয়া, বাবরু মিয়া, খায়রুল আমিন, নুরুল ইসলাম মেম্বার, মর্তুজ আলী মেম্বার, বিএনপি নেতা আশিক আলী, আলাউদ্দিন, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক কদর আলী, আবদুল লতিফ, উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য শেখ ফরিদ, খালেদ আহমদ, ইউপি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি এম.এস.এ আবসান, ইউপি ছাত্রদল নেতা দিলোয়ার হুসেন, জুবায়ের আহমদ সুমন, ফরহাদ মিয়া, আমিন, শানুর, আলী হোসেন, জাহেদসহ ইউনিয়নের সর্বস্থরের বিপুল সংখ্যক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close