সিলেটে ১৬ লক্ষাধিক শিশুকে খাওয়ানো হলো ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

247f75cc-d6ee-4f97-bda6-30f16a9fe438স্টাফ রিপোর্টার: ‘ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ান, শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি কমান’ শ্লোগানকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় সিলেটেও পালিত হয়েছে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন-২০১৫ (২য় রাউন্ড)। সিলেট বিভাগের ১৬ লক্ষাধিক শিশুকে গতকাল শনিবার সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত টানা আটঘন্টা ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এর মধ্যে শুধু সিলেট বিভাগে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ১ লাখ ৭১ হাজার শিশুকে নীল রঙের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়। আর ১২ মাস থেকে ৫৯ বয়সী ১৩ লাখ ৮৩ হাজার ২০০ শিশুকে খাওয়ানো হবে লাল রঙের একটি ভিটামিন এ ক্যাপসুল। এদিকে সিলেট মহানগরের ২৭ টি ওয়ার্ডে ২২০ টি কেন্দ্রের মাধ্যমে প্রায় ৬৮ হাজার শিশুকে এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়। সব মিলিয়ে ১৬ লাখ ২২ হাজার ২০০ শিশু ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাবে।
সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক ডা. গৌরমনি সিনহা বলেন, ভিটামিন এ খাওয়ানোর ফলে শিশুরা সঠিকভাবে বেড়ে উঠে। এর ফলে মানব সন্তান মানব সম্পদে পরিণত হওয়ার পাশাপাশি অর্থনৈতিক উন্নয়নে সঠিকভাবে কাজে লাগে। তিনি বলেন, ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের শতভাগ সাফল্যের সাথে সম্পন্ন হয়েছে।
সিলেট বিভাগের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেন যুগ্ম সচিব : জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন-২০১৫ (২য় রাউন্ড) সিলেটে স্বাস্থ্য বিভাগের এই কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব ( প্রশাসন) মো. আনোয়ার হোসেন। গতকাল শনিবার সকালে সিলেট সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনার বিভাগের আয়োজনে লাক্কাতুরা টি গার্ডেন ডিসেপেন্সারীতে শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানোর মধ্যে দিয়ে তিনি কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন কালে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ে উপ-সচিব (প্রশাসন) মো. হাফিজ্জুর রহমান চৌধুরী, সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. মো: হাবিবুর রহমান, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা: হিমাংশু লাল রায়, ঢাকার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো: জসিম উদ্দিন, সিলেট সদরের উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: নুরে আলম শামীম, সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার সুজন বনিক, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের প্রশাসনিক অফিসার গৌছ আহমদ চৌধুরী, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের গুরুপদ চৌধুরী, বিজয় কুমার দেবনাথ, সুবোধ চক্রবতী, মনিন্দ্র দেবনাথ প্রমুখ।
উল্লেখ্য, ৬-১১ মাস বয়সী সকল শিশুকে একটি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে একটি লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হচ্ছে। পাশাপাশি শিশুর বয়স ৬ মাস পূর্ণ হলে মায়ের দুধের পাশাপাশি ঘরে তৈরী সুষম খাবার খাওয়ানো বিষয়ে পুষ্টি বার্তা প্রচার করা হয়।
সিসিকের ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন : ‘ভিটামিন ‘এ’ খাওয়ান, শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি কমান’ শ্লোগানকে সামনে রেখে সারা দেশের ন্যায় সিলেটও পালিত হচ্ছে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন-২০১৫ (২য় রাউন্ড)। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে এ কার্যক্রম আনুষ্ঠানিক ভাবে উদ্বোধন করেন সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব। সকাল ৯ টায় নগরীর ধোপাদিঘীরপারে বিনোদিনী নগর মাতৃসদন কেন্দ্র শিশুদের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাইয়ে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন এর উদ্বোধন করা হয়।
এতে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সচিব সাবেরা আক্তার, সীমান্তীক এর প্রজেক্ট ম্যানেজার পারভেজ আলম, ইপিআই সুপারভাইজার ভূপাল রঞ্জন চন্দ প্রমুখ।
গোলাপগঞ্জে ভিটামিন এ ক্যাম্পেইন : গোলাপগঞ্জে জাতীয় ভিটামিন ‘‘এ’’প্লাস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ১৪ নভেম্বর উপজেলার পৌর এলাকাসহ ১১ ইউনিয়নের ২৬৪টি অস্থায়ী কেন্দ্রের পাশাপাশি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ ২৭৯টি কেন্দ্রে শিশুদেরকে টিকা খাওয়ানো হয়েছে।
উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুসারে জানাযায় ৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সী স্বাভাবিক শিশু ৪৭৯৯জন, ১২ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৪২৬০৯ জন সহ মোট ৪২৬৩৭জন শিশুকে টিকা খাওয়ানো হয়েছে। অপুষ্টিজনিত অন্ধ রোগ নির্মুল ও রাতকানা রোগ প্রতিরোধে ভিটামিন ‘‘এ’’ প্লাস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সকাল ৯টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে শুরু করে বিভিন্ন এলাকার কেন্দ্র গুলোতে এ কার্যক্রম শুরু হলে বিকেল ৪টায় শেষ হয়। বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে বিষয়টি প্রচারিত হলে সাধারণ জনগণ সহজেই তা জানতে সক্ষম হয়। এতে প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে পিতা-মাতারা নিজ নিজ শিশু সন্তানদেরকে নিয়ে কেন্দ্র গুলোতে উপস্থিত হতে দেখা যায়।
এ কর্মসূচী চলাকালে বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এসএম মাহবুবুর রহমান, ডা. নজরুল হোসেন মোল্লা, ডা. মোহাম্মদ মাছুম, ডা. আখলাক আহমদ, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি ফজলুল আলম। এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জের নবাগত স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এসএম মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, শিশুদেরকে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী করে গড়ে তুলতে ভিটামিন ‘‘এ’’ প্লাস ক্যাম্পেইনের মত কর্মসূচী গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে। প্রতি বছরের নভেম্বর ও এপ্রিল মাসে এ কর্মসূচী পালন করা হয়। সচেতনতার সহিত প্রত্যেক পিতা-মাতা ও অভিভাবক শিশুদেরকে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানোর জন্য স্থানীয় কেন্দ্র গুলোতে নিয়ে যাওয়ার জন্য এসময় তিনি সবার প্রতি আহবান জানালেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close