অবশেষে ভোটাধিকার পাচ্ছেন প্রবাসীরা : সিলেটে সিইসি’র আশ্বাস

36718সুরমা টাইমস ডেস্কঃ অবশেষে পূরণ হতে চলেছে প্রবাসীদের দীর্ঘদিনের দাবি। ভোটাধিকার পাচ্ছেন তারা। চলমান ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশী নাগরিকদের (প্রবাসী) নিবন্ধন করা হচ্ছে। প্রবাসী অধ্যূষিত সিলেটেই এক অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিব উদ্দিন। এর মাধ্যমে অবসান হতে চলেছে প্রবাসী বাংলাদেশীদের দীর্ঘদিনের অপেক্ষার। এখন থেকে তারা ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন দেশে অনুষ্ঠিত নির্বাচনসমূহে। পাশাপাশি তাদেরকে দেয়া হবে জাতীয় পরিচয়পত্রও।
জাতীয় অর্থনীতিতে প্রবাসীদের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। নির্বাচন কমিশনের এরকম উদ্যোগ গ্রহণের ফলে ভোটাধিকার পাবেন দেশের অর্ধকোটিরও বেশি প্রবাসী। এর মধ্যে সিলেট অঞ্চলের প্রায় ২০ লাখ প্রবাসী রয়েছেন।
নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, যিনি ভোটার হবেন তাকে দেশে এসে আঙ্গুলের ছাপ, ছবি তোলাসহ আনুষাঙ্গিক কাজ সম্পন্ন করতে হবে। এটা শেষ হলে প্রবাসীরা বিদেশে থেকেও ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। পাশাপাশি দেশে এসেও স্বশরীরে ভোট দিতে পারবেন। বিদেশ থেকে ভোট দেওয়ার ক্ষেত্রে পোস্টাল ব্যালট ব্যবহার করা হবে। এর মাধ্যমে প্রবাস থেকে প্রদান করা যাবে ভোট। তবে যারা পোস্টাল ব্যালটে ভোট প্রদান করতে চান তারা এ বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করতে হবে।
চলমান ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমেই তালিকাভুক্ত করা হচ্ছে প্রবাসীদের। এ জন্য ঢাকাস্থ প্রধান নির্বাচন অফিসের ন্যাশনাল আইডি (এনআইডি) শাখায় যোগাযোগ করতে হবে। সেখানে দ্রুততার সাথে প্রবাসীদের কাজগুলো সম্পন্ন করার ব্যবস্থা রয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যকম উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার রকিব উদ্দিন জানান, প্রবাসীরা ভোটের সময় উপস্থিত থাকলে ভাল। না থাকলেও তারা ভোট দিতে আগ্রহী হলে বিষয়টি কমিশনকে আগে জানাতে হবে। তখন তাদের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে পোস্টাল ব্যালেট।
বর্তমানে দেশের সব উপজেলায় সার্ভার স্টেশনের কাজ শেষ হয়েছে। যন্ত্রপাতিও আনা হয়েছে। এখন শুধুমাত্র সংযোগ স্থাপন কাজ বাকি। এই কাজটি সম্পন্ন হলেই উপজেলা থেকেই পাওয়া যাবে এসব সেবা।
মহান মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে দেশের যেকোনো দুর্যোগময় মুহূর্তে প্রবাসীরা দেশ-মাতৃকার টানে বাড়িয়েছেন সহযোগিতার হাত। তাদের ঘামে অর্জিত রেমিটেন্স দিয়ে এদেশের অর্থনীতির ভীত শক্ত হয়েছে। বিভিন্ন সরকারের সময় তারপরও তারা থেকে উপেক্ষিত। প্রতিটি সরকারই তাদের আশাহত করেছে। দীর্ঘদিন থেকে তারা স্বপ্ন বুঁনছিলেন দেশের ভোটার হওয়ার। এবার তাদের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ করতে চলেছে আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার।
যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রায় ৫০ লাখ বাঙ্গালীর অবস্থান। এর মধ্যে সিলেট বিভাগের রয়েছেন প্রায় ২০লাখ। সূত্র জানিয়েছে, ১৯৭৩ সাল থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত প্রবাসীরা এ দেশের ভোটার ছিলেন। ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্র“য়ারির বিতর্কিত নির্বাচনের পূর্বে ভোটার তালিকা হতে তাদের নাম বাদ দেওয়া হয়। প্রবাসীরা হারান তাদের ভোটাধিকার। ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকার পূরণ করেনি নির্বাচন পূর্ব তাদেরই দেওয়া প্রতিশ্র“তি।
তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় আসার পরও প্রবাসীদের ভোটাধিকার করা হয়নি। আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের প্রথম মেয়াদেও দেখানো হয়েছে স্বপ্ন। শেষ অবধি চলতি মেয়াদে এসে প্রবাসীদের ভোটার করার কাজ শুরু করলো বর্তমান সরকার।
এ ব্যাপারে সিলেট-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও সিলেট জেলা আওয়ামীলীগেরসাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালে জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনে এ দাবিটি আমিই তুলে ধরেছিলাম। খালেদা জিয়া প্রবাসীদের অধিকার হরণ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা ও সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছেন। তিনি প্রবাসীদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
ভোটার তালিকায় প্রবাসীদের অর্ন্তভূক্ত করা প্রসঙ্গে বর্তমানে দেশে অবস্থানরত কুয়েত প্রবাসী জগন্নাথপুরের মো. জামশেদ মিয়া বলেন, ভোটাধিকারের সুযোগ সৃষ্টি করার মাধ্যমে পূরণ হলো দীর্ঘদিনের উপেক্ষিত দাবিটি। এর মাধ্যমে দেশ পরিচালনার ক্ষেত্রে আমরাও জানাতে পারবো আমাদের মতামত।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close