ইলিয়াস আলীকে অক্ষত অবস্থায় ফেরত না দিলে ঈদের পর আন্দোলন

বিশ্বনাথ বিএনপির ইফতার মাহফিলে সুহেল আহমদ চৌধুরী

Suhel Chairmanবিশ্বনাথ প্রতিনিধিঃ সিলেট জেলা বিএনপির সদস্য ও বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী বলেছেন, সিলেটের এক কোটি মানুষের নেতা এম.ইলিয়াস আলীকে ঈদের পূর্বে অক্ষত অবস্থায় ফেরত না দিলে ঈদের পর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে। আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে এই জালিম সরকারের গুম নামের কারাগার থেকে ফিরিয়ে আনতে হবে। হামলা-মামলার ভয়ে দেখিয়ে ইলিয়াস ‘নিখোঁজ’ আন্দোলন থেকে জিয়ার সৈনিকদের দমন করা যাবেনা। তিনি বলেন, ৫ জানুয়ারী নির্বাচনে অবৈধভাবে সরকার গঠন করা হয়। দেশবাসী এই অবৈধ সরকারকে মানত নারাজ। সরকার ক্ষমতায় চিরস্থায়ী করতে চায়। ঈদের পর দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যে আন্দোলনের ডাক দিবেন, এতে দলীয় নেতাকর্মী আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহন করার আহবান জানান। তিনি আরোও বলেন, বিএনপি থেকে বিশ্বনাথে আ.লীগ যোগদান করার বিষয়টি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ পায়। পৃথক সত্য হল বিশ্বনাথে ইলিয়াস আলীর হাতে গড়া সংগঠন থেকে কোনো নেতা আ.লীগ যোগদান করেনি। যোগদান বিষয়টি আওয়া মীলীগের সাজানো নাটক বলে তিনি মন্তব্য করেন।
গতকাল রোববার ‘নিখোঁজ’ বিএনপি নেতা এম. ইলিয়াস আলীর সন্ধান কামনায় বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপি ও সহযোগি সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত ইফতার মাহফিল পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা গুলো বলেন।
উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালারউদ্দিন চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক লিলু মিয়া চেয়ারম্যানের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক আবদুল হাই, বশির আহমদ, জেলা বিএনপির সাবেক দপ্তর সম্পাদক মঈলুন হক, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বেগম স্বপ্না শাহিন, বিএনপি নেতা সারোয়ার হোসেন চেরাগ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাদলের আহবায়ক সৈয়দ আবদুর রাজ্জাক, বিএনপি নেতা জামাল আহমদ, সিরাজ খান, হাফিজ আরব খান, আলতাব আলী, জামাল মিয়া, মারুফ আহমদ মাছুম, মাহতাবউদ্দিন, উপজেলা যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল মুমিন মামুন, বর্তমান কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক শামিমুর রহমান রাসেল, কাওছার আহমদ তুলাই, গবিন্দ মালাকার, যুবদল নেতা ছাদেক আলী, আবু সুফিয়ান, সাইদুর রহমান রাজু, আবদুর রব সরকার, উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক মতিউর রহমান সুমন, সদস্য আলাল আহমদ, ছাত্রদল নেতা রুমেল আহমদ, সুমন আহমদ, মানিক মিয়া। দোয়া পরিচালনা করে বিএনপি নেতা এটিএম নূর উদ্দিন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল কালাম কছির, সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক নাজমুল ইসলাম রুহেল, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাদলের সদস্য সচিব কলমদর আলী, বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান নুর আসাদ, আবদুল কুদ্দুছ, মতছির আলী, শামিম আহমদ, আবদুল গণি শাহ, শিহাব আহমদ, লুৎফুর রহমান, মিজানুর রহমান মোজাহিদ, সালাম মেম্বার, চেরাগ আলী, শহিদ মেম্বার, আমির আলী, ফয়জুর রহমান, নজরুল ইসলাম হান্দু, আশিক আলী, ইরন আলী মেম্বার, আকবর আলী, লেখন্দর আলী,আবদুল মজিত মেম্বার, গোলাম হোসেন মেম্বার, উপজেলা মহিলা দলের আহবায়ক নুরুন নেহার ইয়াছমিন, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক নানু মিয়া, আবদুল লতিফ, উপজেলা যুবদল নেতা আব্বাস আলী সুমন, লাল মিয়া, আইন উদ্দিন, মাসুদ আহমদ সুমন, শাহজাহান মিয়া, আশক আলী, রানা মিয়া, দুলাল মিয়া, নুরুল হক, আবদুল ওদুদ, আহমদ আলী, বজলু মিয়া, কয়েছ আহমদ, শামিম মিয়া, ছাত্রদলের সদস্য লিটন সিকদার, বাছির মিয়া, গিয়াস উদ্দিন, শিব্বির আহমদ, রুহেল আহমদ কালু, মোহাম্মদ আলী, প্রবেল, রাজু আহমদ, রুবেল আহমদ, নজরুল, জাকির, সাজ্জাদ, মুমিন, বকুল, ময়নুল, ফাহিম, মোল্লা, নুরউদ্দিন প্রমূখ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close