নবীগঞ্জ শহরে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান ॥ ৪ জনকে কারাদন্ড, ১ জনকে অর্থদন্ড

Nabiganj pic - 1= mobile coartউত্তম কুমার পাল হিমেল, নবীগঞ্জ থেকে ॥
নবীগঞ্জ পৌর শহরে রাস্তার উপর অবৈধভাবে দোকান বসিয়ে ব্যবসা করার অপরাধে ৫ ব্যবসায়ীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড ও জরিমানা আদায় করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল মঙ্গলবার সকালে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আনোয়ার হোসেন‘র নেতৃত্বে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় এক জনকে ৩দিন, তিন জনকে ২ দিন করে কারাদন্ড ও এক জনকে অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। এবং অন্যান্য অবৈধ ব্যাবসায়ীদের সর্তক করে দেওয়া হয়েছে।
মোবাইল কোর্ট চলাকালে সরজমিনে গিয়ে জানাযায়, গতকাল সকাল ১১ টার দিকে পৌর শহরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এ অভিযান চলাকালে রাস্তার উপর অবৈধভাবে সবজির দোকান বসিয়ে ব্যবসা করার দায়ে গত সোমবার অভিযানের সময় সর্তক করার পরও দোকান উচ্ছেদ না করার কারণে পৌর এলাকার সালামতপুর গ্রামের ছালিক উল্লাহর পুত্র ইসরাইল মিয়াকে ৩ দিনের কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এ সময় রাস্তায় অবৈধভাবে দোকান সাজিয়ে ব্যবসা করার জন্য বাউশা গ্রামের আলী আজকরের পুত্র কাঠাল বিক্রেতা রোমান মিয়া (৩৮), কামিরাই গ্রামের ছোয়াব উল্লার পুত্র কাঠাল বিক্রেতা আবরু মিয়া (৫৫) ও জয়নগর গ্রামের তপুল্ল সরকারের পুত্র আম বিক্রেতা পল্লাদ সরকার (৩৫)কে প্রত্যেককে ২ দিন করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালত। এর আগে পৌর এলাকার আনমুনু গ্রামের আম বিক্রেতা উকিল মিয়াকে ২ হাজার অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। ২ হাজার টাকা নগদ আদায় করে মুক্তি দেয়া হয় তাকে। এবং অন্যান্য অবৈধ ব্যবসায়ীদের সর্তক করে দেয়া হয় পরবর্তী অভিযানের আগে অবৈধ দোকান পাট না সরালে জেল ও অর্থ উভয় দন্ডে দন্ডিত করা হবে বলে জানান ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আনোয়ার হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন থানার এস আই নূর মোহাম্মদ, সাংবাদিক মতিউর রহমান মুন্না, এসিল্যান্ড অফিস সহকারী আশফাকুজ্জামান চৌধুরী।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close