৩টি খাবার আটকাবে স্তন ক্যান্সার

breast cancerসুরমা টাইমস ডেস্কঃ ব্রেস্ট ক্যান্সার খুব বেশি পরিচিত। ওয়ার্ল্ড হেলথ অরগানাইজেশনের মতামত অনুযায়ী জানানো হয়েছে যে ২০২০ সালের মধ্যে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা আরও বেশি বৃদ্ধি পাবে বর্তমান সময়ের তুলনায়। এছাড়াও আরও বলা হয়েছে যে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে গড়ে প্রতি ৮ জন নারী স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হবে। ইন্ডিয়া কাউন্সিল অফ মিডিয়া রিসার্চারের মতামত অনুযায়ীও একই কথা বলা হয়েছে।
স্তন ক্যান্সার হওয়ার পিছনে অনেক কারণ থাকে তবে বিশেষ করে লাইফ স্টাইল, জেনেটিক এবং ডায়েটের হাত থাকে। কিন্তু এইসব কারণ ছাড়াও আরও কিছু কারণ রয়েছে স্তন ক্যান্সার হওয়ার পিছনে যা হল- মদ্যপান করা, ধূমপান করা, ওজন নিয়ন্ত্রনে না রাখা, শারীরিক ভাবে এক্টিভ না থাকা, পরিবেশ দূষণ, শারীরিক সমস্যায় সঠিক সময়ে চিকিৎসা না করা ইত্যাদি।
বাচ্চাকে দুধ পান না করালেও নারীদের স্তন ক্যান্সার হওয়ার কিছুটা সম্ভবনা থাকে। স্বাস্থ্যকর ডায়েট স্তন ক্যান্সার হওয়া থেকে মানবদেহকে রক্ষা করে। তাছাড়া এমন কিছু খাবার আছে যার মাধ্যমে দেহে স্তন ক্যান্সার হওয়ার কোষ রোধ হয়ে থাকে। চলুন জেনে নিই খাবারগুলো সম্পর্কে।
হলুদ
হলুদে আছে এমন একটি উপাদান যার নাম কারকিউমিন এবং এই উপাদানটি নানা ধরণের ক্যান্সার যেমন- স্তন, স্কিন, গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল ও ফুসফুসের ক্যানসার হওয়ার কোষ দেহ থেকে রোধ করে। বিভিন্ন গবেষণায় বলা হয়েছে হলুদের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমোটারি উপাদান ক্যান্সার কোষগুলোকে ধীরে ধীরে নিস্তেজ করে দেয়। তাই স্তন ক্যান্সার হতে নিজের দেহকে দূরে রাখতে প্রতিদিনের খাবার হলুদ ব্যবহার করুন ও প্রতি সকালে খালি পেটে একগ্লাস পানির সাথে একচিমটি হলুদ মিশিয়ে খেয়ে নিন।
টমেটো
“জার্নাল অফ ক্লিনিকাল ইনডোক্রিনোলজি এন্ড মেটাবোলিজম” এর একটি গবেষণায় বলা হয়েছে ডায়েট মেন্যুতে টমেটো থাকলে খুবই ভালো। কারণ নারীদের পিরিয়ড বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভবনা থাকে এবং টমেটো খাওয়ার ফলে ক্যান্সার হওয়ার কোষ রোধ হয়ে থাকে। টমেটোর লাইকোপেন ও শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান স্তন ক্যান্সার হওয়ার কোষগুলোকে দেহে জন্মাতে দেয় না।
এমেরিকান ইন্সটিটিউট ফর ক্যান্সার রিসার্চার এর একটি গবেষণায় বলা হয়েছে টমেটোর লাইকোপেন উপাদান দেহকে টিউমার হওয়া থেকেও রক্ষা করে। এছাড়াও টমেটোর লাইকোপেন উপদান এন্ডমেট্রিয়াল ক্যান্সার ও ফুসফুসের ক্যান্সার হওয়ার কোষ রোধ করে থাকে। তাই সুস্থ থাকতে তরকারিতে টমেটো ব্যবহার করুন, টমেটো দিয়ে সালাদ বানিয়ে খান, প্রতিদিন জুস করেও খেতে পারেন।
রসুন
গবেষণায় বলা হয়েছে রসুনের সালফার কমপাউন্ডস, ফ্লেভনস এবং ফ্লেভনলস উপাদান স্তন ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। এছাড়াও রসুন স্তন, মাউথ, পাকস্থলী এবং কোলন ক্যান্সারের কোষ ধ্বংস করে থাকে। তাই প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রসুন রাখুন। রান্নায় রসুন ব্যবহার করলে তা ১৫ মিনিট আগেই খোসা ছাড়িয়ে গ্রেট করে নিন। প্রতিদিন সকালেও খালি পেটে এক কোয়া রসুন খেয়ে নিন এটি আপনাকে ক্যান্সার হতে দূরে রাখবে এবং ওজন ঠিক থাকবে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close