নবীগঞ্জে মাদক সম্রাট ও সন্ত্রাসী শিপনের হামলার শিকার সাংবাদিক মিঠু

বিভিন্ন মহলে নিন্দার ঝড়  ॥ গ্রেফতারের দাবী

mituনবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জ থানার গেইটের সামনে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে এক মাদক সম্রাট ও কুখ্যাত সন্ত্রাসী একাধিক মামলার আসামী শিপনের হামলার শিকার হয়েছেন সিনিয়র সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন মিঠু। এ ঘটনায় নবীগঞ্জে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দসহ নানা শ্রেণীপেশার মানুষের মাঝে তীব্র ক্ষোভ ও প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। তারা অনতিবিলম্বে নবীগঞ্জের সিনিয়র সাংবাদিক প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন মিঠুর উপর হামলাকারী কুখ্যাত সন্ত্রাসী শিপনকে গ্রেফতারের দাবী জানান।
স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, পৌর এলাকার রাজনগর গ্রামের বাসিন্দা প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি মরহুম এটিএম নুরুল ইসলাম খেজুর ও এই এলাকার রুবেল মিয়ার মধ্যে দীঘূদিন ধরে ভুমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। প্রায় মাস দু’এক পুর্বে নবীগঞ্জ থানার তৎকালীন অফিসার ইনর্চাজ মোঃ লিয়াকত আলীর কার্যালয়ে অনুষ্টিত একটি শালিস বৈঠকে বিষয়টির নিস্পত্তি হয়। ওই বৈঠকে রুবেল মিয়া তার দাবীকৃত ভুমির স্বপক্ষে কোন বৈধ কাগজ পত্র দেখাতে ব্যর্থ হলেও সম্মানিত শালিসগণ (তৎকালীন অফিসার ইনর্চাজসহ) মানবিক দিক বিবেচনা করে ও সমাধানের স্বার্থে মরহুম সাংবাদিক এটিএম খেজুরের অংশ থেকে ১ শতক ভুমি রুবেলকে দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহন করে বৈঠকের সমাপ্ত দেন। পরবর্তীতে উক্ত রুবেল শালিসদের বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে তা অমান্য করে। এদিকে সাংবাদিক খেজুরের মৃত্যুর খবর পেয়ে প্রাক্তন মন্ত্রী মরহুম দেওয়ান ফরিদ গাজীর তনয় আওয়ামীলীগ নেতা দেওয়ান শাহনেওয়াজ মিলাদ গাজী মরহুমের পরিবারে শান্তনা দিতে আসলে স্থানীয় মুরুব্বীয়ান ও সাংবাদিকরা ঘটনাটি নিয়ে আলোচনা করেন। এক পর্যায়ে মিলাদ গাজী রুবেলকে ডেকে এনে উভয় পক্ষকে নিয়ে ১৫ জুন পুণরায় শালিসের তারিখ করেন। কিন্তু ওই তারিখে ঢাকা থেকে আওয়ামীলীগের ওই নেতা নবীগঞ্জে শালিস বৈঠকে উপস্থিত হলেও দুর্দান্ত রুবেল উপস্থিত হয়নি। ফলে উপস্থিত মুরুব্বীয়ানসহ আওয়ামীলীগ নেতা দেওয়ান মিলাদ গাজীও ক্ষুদ্ধ হন। এবং পুর্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার ভুমি সার্ভে করার সিদ্ধান নেয়া হয়। সেই মোতাবেক ওই দিন দুপুরে সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন মিঠুসহ মুরুব্বীয়ানগণ সার্ভেয়ার নিয়ে সরজমিনে গেলে দুর্দান্ত রুবেল হট্রগোলের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আব্দুল বাতেন খাঁন এর কঠোর ভুমিকায় রুবেল পিছু হঠে এবং সার্ভে কাজ শুরু হয়। পরে সময় স্বল্পতার কারনে পরবর্তী একটি তারিখ নির্ধারন করে সিনিয়র সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন মিঠুসহ মুরুব্বীয়ান যার যার পথে ফিরে যাওয়ার সময় হঠাৎ করে মাদক স¤্রাট ও চুরি, মাদকসহ একাধিক মামলার আসামী সন্ত্রাসী শিপন মিয়া সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন মিঠুকে উদ্দেশ্য করে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। এর প্রতিবাদ করলে ধারালো অস্ত্র নিয়ে সাংবাদিকের উপর হামলার চেষ্টা করলে উপস্থিত মুরুব্বীয়ানদের হস্তক্ষেপে সাংবাদিক অক্ষত থাকেন। ঘটনার খবর সাংবাদিক সমাজসহ বিভিন্ন মহলে চাউর হলে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। সাংবাদিক, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ ঘটনার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন। এবং অনতিবিলম্বে সন্ত্রাসী শিপনকে গ্রেফতারের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান। উক্ত সন্ত্রাসী শিপন পৌর এলাকার রাজনগর গ্রামের তালেব আলীর ছেলে। সে সম্প্রতি নবীগঞ্জে সিএনজি শ্রমিক বেলাল হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত বলেও নিহতের পরিবার অভিযোগ করেছেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close