মেঘনায় ট্রলারডুবি : ৪ লাশ উদ্ধার, হস্তান্তর ২

troller sinkসুরমা টাইমস ডেস্কঃ মুন্সীগঞ্জ গজারিয়া উপজেলার মেঘনা নদীতে অন্তত ৬০ যাত্রী নিয়ে ট্রলারডুবির ঘটনায় ৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
মুন্সিগঞ্জ ট্রলারদুর্ঘটনার পরপরই স্থানীয়দের সহায়তায় অনেক যাত্রী উদ্ধার হলেও এখনো ৬ জনেরও বেশি নিখোঁজ রয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।
বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে আরও দুই যুবকরে লাশ উদ্ধার করা হয়। এরমধ্যে কুমিল্লা জেলার হাবিব (২৪) নামের এক যুবক ছিলো।
এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭ টায় উদ্ধার হয়েছে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার মারিয়া (৪) নামের এক শিশুকন্যার লাশ উদ্ধার করা হয় এবং ৯ টায় অজ্ঞাত(২৪) যুবকরে লাশ উদ্ধার করা হয়।
এদিকে, সকালে উদ্ধার হওয়া নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার মারিয়া (৪) শিশুকন্যার লাশটি চাচা মোঃ আলম আর তার নানা জাকির হোসেনের কাছে হস্তান্তর করা হয় এবং বিকেলে কুমিল্লা জেলার হাবিব (২৪) কেও তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) ফেরদৌস হাসান জানান, বুধবার রাত ৮ টার দিকে মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ার বাউশিয়া ঘাট থেকে প্রায় ৬০জন যাত্রী নিয়ে মতলবের বেলতলীর নেংটা পীরের মেলা বা ওরসের দিকে রওনা হয় দুর্ঘটনা কবলিত ট্রলারটি। যাত্রাপথে ঝড়ো বাতাস আর বৃষ্টির কারণে রাত ৯টার দিকে গুয়াগাছিয়া ইউনিয়নের বসুরচর এলাকায় মেঘনা নদীতে একটি বালুবাহী কার্গো ট্রলার যাত্রীবাহী ট্রলারটিকে ধাক্কা দেয়।
দুর্ঘটনার পরপরই কয়েকজন সাঁতরে তীরে উঠে, কয়েকজনকে উদ্ধার করে গ্রামবাসী। উদ্ধার হয় দুজনের মৃতদেহ। তবে, পুলিশ বলছে কতজন যাত্রী নিখোঁজ রয়েছে তা সঠিকভাবে জানা না গেলেও ১০ এর অধিক ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
গজারিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবা বিলকিস জানান নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।
দাউদকান্দি থানার ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন ম্যানেজার মোঃ আলী সিদ্দিকী জানান, একটাও লাশ থাকা পর্যন্ত নিখোঁজের উদ্ধার অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close