সিলেটে একদিনের নাশকতায় পুড়ল ৬টি গাড়ি; প্রাণ গেল চালকের

stop-burning-us-in-the-nameসুরমা টাইমস ডেস্কঃ বাতাসে পোড়া গন্ধ। পুড়ছে গাড়ি। পুড়ছে মানুষ। মরছে মানুষ। রাজনীতির নামে, গণতন্ত্রের নামে পুড়িয়ে মারা হচ্ছে মানুষকে। জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে গাড়ি। বৃহস্পতিবার দিনভর পুরো সিলেট জুড়েই ঘটেছে জ্বালাও পুড়া। দুর্বৃত্তদের ছোড়া আগুনে রাতে দক্ষিণ সুরমায় নিহত হয়েছেন এক চালক। গোলাপগঞ্জ ও দক্ষিণ সুরমায় গান পাউডার দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া হয় দুটি যাত্রীবাহি বাস। এছাড়া বিশ্বনাথের লামাকাজী ও আম্বারখানায় দু’টি ট্রাক এবং গোলাপগঞ্জে লেগুনা-অটোরিকশা পুড়িয়ে দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাত অবদি চলে নাশকতা।
বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১১ টার দিকে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের বনিকোনায় দুর্বৃত্তদের ছোঁড়া পেট্রোল বোমায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক সিএনজি চালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে শাহজাহান মিয়া (৩০) নামের এক সিএনজি অটোরিক্শা চালক ঘটনাস্থলে প্রাণ হারান। দুর্বৃত্তদের ছোঁড়া পেট্রোল বোমার আগুনে দগ্ধ হয়েছেন নিরঞ্জন দাশ (২২) নামের ট্রাকের হেলপার।
এ ঘটনার প্রতিবাদে রাত ১১ টা থেকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে অবরোধ করে পরিবহন শ্রমিকরা। রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে তারা। এসময় মহাসড়কজুড়ে পণ্যবাহী ট্রাকের দীর্ঘ জট লেগে যায়। সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনারসহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা মধ্যরাতে ঘটনাস্থলে হাজির হন। এ ঘটনায় নিহত শাহজাহান মিয়া দক্ষিণ সুরমার উপজেলার তেঁতলী ইউনিয়নের আহমেদপুর কোনাপাড়া গ্রামের আক্তার মিয়ার ছেলে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান-সিলেটগামী একটি ট্রাক (ঢাকা-মেট্টো-ট-১৬-৪২৩৯) ঘটনাস্থলে আসামাত্র দুর্বৃত্তরা ট্রাকে পেট্রোল বোমা ছোঁড়ে মারে। এতে ট্রাকটি নিয়ন্ত্রন হারিয়ে সিএনজি চালিত অটোরিক্শাকে (সিলেট-থ-১১-৪৮৩৪) সজোরে ধাক্কা দেয়। দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই মারা যান সিএনজি অটোরিকশা চালক শাহজাহান। আর গুরুতর আহত ট্রাকের হেলপার নিরঞ্জনকে ওসমানী মেডিকেল কলেহ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ট্রাক চালক রজব আলী ও হেলাল নামে দুই জন আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। মহানগরীর দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ফজল ঘটনাস্থল থেকে এর সত্যতা নিশ্চিত করেন।
গান পাউডার দিয়ে দুটি বাসে আগুন :
সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কে গান পাউডার ছিটিয়ে দুটি বাসে আগুন দিয়েছে যাত্রীবেশী দুর্বৃত্তরা। এছাড়া ওই সড়কে আরও একটি একটি লেগুনা (হিউম্যান হলার) ও একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশায় আগুন দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের হিলালপুর ও শ্রীরামপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে সিলেট কদমতলী টার্মিনাল থেকে একটি বাস (সিলেট ব ১১-০০৪৩) জকিগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছাড়ে। বাসটি দক্ষিণ সুরমার মোগলাবাজার থানাধীন শ্রীরামপুর এলাকায় যাওয়ার পর যাত্রীবেশী কয়েকজন দুর্বৃত্ত চালকের মাথায় আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে গাড়ি থামাতে বলে। পরে তারা গাড়ি থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে গান পাউডার ছিটিয়ে বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। বাসে আগুন দেয়ার পর ওই স্থানে অপেক্ষমান তাদের সহযোগীদের মোটর সাইকেলে ওঠে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।
সকাল সাড়ে ৯টার দিকে গোলাপগঞ্জের হিলালপুরে একই কায়দায় গান পাউডার ছিটিয়ে আরও একটি বাসে (সিলেট ব ১১-০০১৩) আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। বাসটি গোলাপগঞ্জ থেকে সিলেট আসছিল। হিলালপুর আসার পর যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে গান পাউডার ছিটিয়ে বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে তারা সহযোগীদের মোটর সাইকেলে ওঠে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন চেষ্টা চালিয়ে বাস দুইটির আগুন নেভান। তবে এর আগেই বাস দুইটি পুড়ে যায়।
এদিকে, সকাল ৯টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে দক্ষিণ সুরমার শ্রীরামপুর এলাকায় আরও একটি লেগুনা ও একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশায় আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।
আম্বরখানা ও লামাকাজীতে ট্রাকে আগুন :
নগরীর আম্বরখানায় চুনাপাথর বোঝাই ট্রাকে (ঢাকা মেট্রো-ট ১৮-২২১২) আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে তারা। তবে এর আগেই ট্রাকটি পুড়ে যায়। বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় আম্বরখানা-শাহী ঈদগাহ সড়কের লোহারপাড়া গলির মুখে এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সিলেট নগরীর শাহী ঈদগাহের দিক থেকে চুনাপাথর বোঝাই করে আম্বরখানার দিকে যাচ্ছিল। লোহারপাড়া রাস্তার মুখে আসার পর ৩/৪টি মোটরসাইকেলে কয়েকজন যুবক এসে ট্রাকটির গতিরোধ করে। পরে তারা ট্রাকে পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। আগুন দেয়ার পর চালক আতংকে গাড়ি থেকে নেমে পালিয়ে আত্মরক্ষা করেন। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে স্থানীয় ব্যবসায়ী ও লোকজনের সহায়তায় আগুন নেভান। তবে এর আগেই ট্রাকের বেশিরভাগ অংশ পুড়ে যায়।
ট্রাকে আগুন দেয়ার খবর পেয়ে বিমানবন্দর থানার ওসি গউছুল হোসেন এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে যান। কিন্তু কাউকে আটক করা সম্ভব হয় নি। এদিকেবিশ্বনাথের লামাকাজী কাজীবাড়ি এলাকায় একটি ট্রাকে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। এতে চালক হাসান আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত পৌণে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতে একটি ট্রাক সিলেট থেকে ছাতকে সিমেন্ট আনার জন্য যাচ্ছিল। রাত পৌণে ১১টার দিকে কাজীবাড়ী এলাকার নলকদর ব্রীজের কাছে পৌঁছলে দুর্বৃত্তরা ট্রাকে পেট্রোল বোমা ছোঁড়ে মারে। এতে মুহুর্তেই ট্রাকে আগুন ধরে যায়। এতে চালক হাসান আহত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় জনতা ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।
ওসমানী হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার আগুনে পুড়ে যাওয়া হাসান নামে এক ব্যক্তির ভর্তি হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। (মূল প্রবন্ধঃ সৈয়দ বাপ্পি)

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close