ঋণ কোনো দয়া নয়, উদ্যোক্তার অধিকার : অর্থমন্ত্রী

muhitসুরমা টাইমস রিপোর্টঃ অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, বিশ্বে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে প্রায় ৭৫ শতাংশ পণ্য ও সেবা উৎপাদিত হয়। বাংলাদেশেও উৎপাদিত পণ্যের বেশির ভাগই ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প থেকে আসে। কাজেই আমাদের এসএমই শিল্প স্থাপনের উপর জোর দিতে হবে। আমাদের মনে রাখতে হবে বর্তমানে ঋণ কোনো দয়া নয়। এটা উদ্যোক্তার অধিকার। সেই অধিকার থেকে তাদের বঞ্চিত করা যাবে না। ব্যাংক কর্মকর্তাদের জানতে হবে গ্রাহকের কি ধরনের সেবা প্রয়োজন। সেই অনুযায়ী তাদের সেবা দিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে সবগুলো ব্যাংকের প্রায় সাড়ে ৮ হাজার ব্রাঞ্চ আছে। এটা প্রয়োজনের তুলনায় মোটেও বেশি নয়। আমাদের দেশের জনসংখ্যার ঘনত্ব অনেক বেশি। ফলে প্রতিটি গ্রাহকের জন্য ব্যাংকিং সেবা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের আরো বেশি করে ব্যাংক স্থাপন করতে হবে। ব্যাংকিং সেবা সাধারণ মানুষের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দেবার জন্য আমাদের সচেষ্ট থাকতে হবে। সে জন্য ব্যাংকিং সেবা সম্প্রসারিত করতে হবে। নতুন নতুন পণ্য ও সেবা উদ্ভাবন করতে হবে। আগে বাংলাদেশ শিল্প ব্যাংক বিশেষায়িত ব্যাংক হিসেবে দায়িত্ব পালন করতো। কিন্তু এখন সময় পাল্টে গেছে। প্রতিযোগিতার মাধ্যমে টিকে থাকতে হবে। বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড এর ব্যবসায় উন্নয়ন ও গ্রাহক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

সিলেটের ওসমানীনগর থানার দয়ামীর বাজারে বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড এর পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মো. ইয়াছিন আলীর সভাপতিত্বে ও সিলেট ব্রাঞ্চ এর সিনিয়র অফিসার মো. শামীম মিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠিত গ্রাহক সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক দেওয়ান নুরুল ইসলাম, কাজী মুর্শেদ হোসেন কামাল, সৈয়দ এপতার হোসেন পিয়ার, সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ড. মো. জিল্লুর রহমান।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন সিলেট রেঞ্জ এর ডিআইজি মিজানুর রহমান, পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা, বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদাল মিয়া, বাংলাদেশ ব্যাংকের জেনারেল ম্যানেজার মো. মোবারক হোসেন, সমাজ সেবী ইয়াকুতুল গণি ওসমানী (টিটু), জেলা আওয়ামীলীগ জগলু চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা আবুল কালাম ফনিক, বিডিবিএল সিলেট ব্রাঞ্চ’র সিনিয়র অফিসার মো. আশরাফ উল আলম, মো. রাকিবুল ইসলাম প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাওলানা দেলোয়ার হোসেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিকে ফুুলেল শুভেচ্ছা জানান সিলেট ব্যাংক ও ওসমানী নগর ব্রাঞ্চের কর্মকর্তা ও নারী উদ্যোক্তাগণ।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ শিল্প ব্যাংক ও বাংলাদেশ শিল্প ঋণ সংস্থাকে একীভূত করে ২০১০ সালের ৩ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড (বিডিবিএল) এর যাত্রা শুরু হয়। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকসমূহের মধ্যে ইতোমধ্যেই বিডিবিএল শীর্ষস্থানীয় একটি ব্যাংক হিসেবে পরিগণিত হয়েছে। মোট ১৭টি ব্রাঞ্চ নিয়ে এই ব্যাংক যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে এর ব্রাঞ্চের সংখ্যা ২৯টি। চলতি পঞ্জিকা বছরেই আরো তিনটি ব্রাঞ্চ খোলা হবে। বিডিবিএল শিল্পায়নে অর্থায়নসহ সব ধরনের বাণিজ্যিক ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করে চলেছে। আগামী বছর দেশের বিভিন্ন স্থানে আরো ৩৮টি ব্রাঞ্চ খোলার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রস্তাবনা প্রেরণ করা হয়েছে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close