ইতালীর রোমে টিভি চ্যানেলের লগো বিকৃতি ও অভিনব প্রতারনা

logo-....ইতালী প্রতিনিধিঃ গত ২১ অক্টোবর ২০১৪, রবিবার, ইতালী প্রবাসীদের বিমানই দিচ্ছে সর্বোচ্চ যাত্রীসেবা শিরোনামে রোমের জনপ্রিয় পত্রিকা দৈনিক জন্মভুমি, দৈনিক প্রবাসে প্রতিদিন, দৈনিক বাংলাদেশ, অনলাইন এবং এনটিভি ইউকেসহ বিভিন্ন মিডিয়ায় ফলাও করে প্রচার ও প্রকাশ করা হয় একটি সংবাদ।
এনটিভি ইউকের ইতালীর ব্যুরো প্রধান মনিরম্নজ্জামান মনির রোমস্থ বাংলাদেশ বিমানের কান্ট্রি ম্যানেজার সামসুল হুদার দেয়া এক সাÿাৎকারের বিমান বাংলাদেশ এয়্যার লাইন্সের বিভিন্ন তথ্যাবলী তুলে ধরেন ঐ খবরে। এনটিভির সাংবাদিক মনির এবং বিমানের কান্ট্রি ম্যানেজার সামসুল হুদার কথোপকথনের সময় ফটো সাংবাদিক জামিল আলমের একটি স্থিরচিত্র ও প্রকাশিত খবরে সাথে ছাপানো হয়। স্থির চিত্রের মূল বিষয় সাংবাদিক মনির এনটিভি ইউকের টিভি চ্যানেলের লগো ব্যবহার করে সামসুল হুদার সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন।
mmmmmসাংবাদিক মনিরের ফলাওকৃত খবরটি অনলাইনের মাধ্যমে পাঠক সমাজে যখন ব্যাপক সাড়া জাগলো, তখনই দৈনিক প্রবাসী নামের একটি (সংকলন) পত্রিকায় হেড লাইন পরিবর্তন করে ছাপায়। অচল পত্রিকাটিকে সচল করতে পত্রিকার সংকলক এবার যা করলেন তা সত্যি লজ্জাজনক বিষয়।
তিনি তার পত্রিকায় খবরটি ছাপান ভিন্নভাবে, তিনি উলেস্নখিত স্থির চিত্রের সাংবাদিক মনিরম্নজ্জামানের ছবি কেঁটে দেওয়া হয়, তার হাতে ধরা মাইক্রোফোনের এনটিভির লগো লাগানো লগো মুছে দিয়ে ঐ স্থানে চ্যানেল আই ইউরোপের লগো স্থাপন করে। দৈনিক প্রবাসীতে এ ভাবে খবর প্রচারের ব্যাপারটি রোমের সাংবাদিক সমাজ ও পাঠক সমাজ ভালভাবে মেনে নিতে পারছেনা, তারা বলছে অনুমতি ক্রমে কারো খবর প্রচার ও প্রকাশ করা যায়। ভিন্ন ফটো ব্যবহার করা যেতে পারে। কিন্তু কোন প্রচার মাধ্যমের লগো কেটে অন্য প্রচার মাধ্যমের লগোস্থাপন করা যায় না, তেমনি সাংবাদিকের নাম বাদ দেয়া কিংবা পরিবর্তনা করা যায় না। আর অন্যান্য টিভি চ্যানেল বা পত্রিকার মনোগ্রাম, লগো অথবা নাম মুছে দিয়ে ঐ স্থানে নিজের মনগড়া মতো কিছু করা তা সংবাদ পত্রের নিয়মে পরে না বলে মন্ত্মব্য করেন।
অন্যদিকে চ্যানেল আই এর ব্যুরো প্রধান হাবিবুর রহমান চুন্নুর সাথে এনটিভি লগো মুছে চ্যানেল আই এর লগো প্রতিস্থাপনের ঘটনা নিয়ে আলোচনা করলে, তিনি বলেন, আমার অনুপস্থিতিতে দৈনিক প্রবাসীর সংলকল রিপন খান ও তার এক কর্মচারী শিমুল রহমান চ্যানেল আই এর লগো ব্যবহার করে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে সাক্ষাৎকার প্রচারের কথা বলে ১০০-২০০ ইউরো নেয়, নিচ্ছে। তার পর তাদের ধারনকৃত ভিডিওটি চ্যানেল আইএ প্রচার না করে ফেসবুক ও ইউটিউবেপ্রচার করে থাকেন (৭১ মেডিয়া হাউজ নামের একটি আইডির মাধ্যম)। চ্যানেল আইয়ের লগো দেখিয়ে মানুষকে বোকা বানিয়ে যে ধরনের কুকর্ম করছে তারা, তার জন্য অনেক অভিযোগ আমাকে শুনতে হয় এবং এ ধরনের ঘটনার বিষয়ে একটি সর্তক করণ বিজ্ঞাপনও বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে। তিনি আবাও প্রিয় বাংলাদেশী ভাই-বোনদের অবগতির জন্য বলেন, কেবল মাত্র চ্যানেলের লগো দেখেই কেউ যেন সাক্ষাৎকার দেয়ার জন্য ব্যস্ত্ম হয়ে না পরে। সবাইকে বুঝতে হবে, টিভি ক্যামেরার সামনে শুধুমাত্র টাকা দিয়েই সব কিছু হয় না। সময় হলে টিভি ক্যামেরাই আপনার কাছে চলে আসবে।
তাই রোমের সাংবাদিক সমাজ টিভি চ্যানেলের লগো ব্যবহার করে অভিনব প্রতারনা থেকে যেন সবাই সতর্ক থাকে এ আহ্বান করেন। তারা আরো বলেন, কিছু মানুষ রয়েছে যারা টিভি চ্যানেল কিংবা কোন পত্রিকার অনুমতি ব্যাতীত নিজের স্বার্থ হাসিলের জন্য অপকর্ম করে থাকেন এবং যারা কিনা ফেসবুক কিংবা ইউটিউবে নিজের পরিচয় গোপন করে অন্যকে অসামাজিক ভাবে অপমান, অপদস্ত্ম করতে চায় বা করে যাচ্ছে তাদের বিরম্নদ্ধে সোচ্চার হতে সকলকে অনুরোধ করেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close