কানাইঘাটে ভারতীয় তীরখেলার নামে চলছে প্রকাশ্য জুয়া

বৃদ্ধি পাচ্ছে অসামাজিক কার্যকলাপ ও চুরি

Teer Game Kanaighatকানাইঘাট প্রতিনিধিঃ কানাইঘাটে দীর্ঘদিন থেকে ভারতীয় তীর খেলার নামে চলছে এক প্রকার প্রকাশ্য জুয়া। আর এসব প্রতারণামূলক খেলায় সাধারণ মানুষের পাশাপাশি শ্রমিক, যুবক এবং বিশেষ করে স্কুল-কলেজ পড়–য়া ছাত্ররা আসক্ত হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, অভিনব পন্থায় এই তীর খেলাটি মূলত ভারতের শিলং শহর থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়। বাংলাদেশের অভ্যন্তরে কানাইঘাটসহ সীমান্তবর্তী এলাকায় উক্ত খেলাটি নিয়ন্ত্রণের জন্য স্থানীয় ভাবে বেশ কিছু এজেন্টকে নিয়োগ দেয়া হয়। কানাইঘাট সদরসহ উপজেলার বিভিন্ন বাজারে এসব এজেন্টদের মাধ্যমে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার টিকেট বিক্রি করা হয়। স্থানীয় এজেন্টরা তাদের কমিশন কেটে রাখার পর সিংহভাগ টাকা অবৈধভাবে ভারতে চলে যায়। এই তীরখেলার প্রতি মানুষকে আকৃষ্ট করার জন্য ৭০ গুণ মুনাফার ঘোষণা দেওয়া হয়। অর্থাৎ এক টাকায় ৭০ টাকা পাওয়া যায়। ০১ হতে ১০০ পর্যন্ত ক্রমিক সংখ্যার মধ্যে যে কোন সংখ্যার বিপরীতে সর্বনিু ৫ টাকা থেকে শুরু করে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত যত খুশি টিকেট খরিদ করা যায়। প্রতিদিন বাংলাদেশ সময় বিকেল ৫টায় ভারতের শিলংয়ে অনুষ্ঠিত তীর খেলার ফলাফল অনুযায়ী একটি মাত্র নম্বরকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। অবশিষ্ট ৯৯টি নম্বরের বিপরীতে অর্জিত সমস্ত টাকা চলে যায় নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থার হাতে। এভাবে দুষ্টচক্রের কবলে পড়ে প্রতারিত হয়ে সর্বত্র হারাচ্ছে সাধারণ মানুষ, অটোরিক্সা চালক ও রিক্সা শ্রমিক। বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে স্কুল-কলেজে পড়–য়া কোমলমতি ছাত্ররা। অনেক সময় টিফিনের টাকা দিয়ে তারা তীর খেলার টিকেট কিনে সারাদিন না খেয়ে থাকতে হয়। এর ফলে শিক্ষার্থীরা শারীরিক ও মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছে। তীর খেলার প্রতি আসক্ত এসব ছাত্রের অভিভাবকরা ও তাঁদের সন্তানদের ভবিষ্যৎ নিয়ে উদ্বিঘœ। রিক্সা শ্রমিকেরা একটি তীর খেলার টিকেট কিনে বিজয়ী হওয়ার অন্ধ বিশ্বাসে সারাদিন কাজ না করে অলস ভাবে বসে থাকে। অবশেষে বিজয়ী হতে না পেরে হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়ে। সম্প্রতি কানাইঘাট বাজারে চুরির উপদ্রব বেড়ে যাওয়াকে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তীর খেলার বিরূপ প্রভাবকে দায়ী করেছেন। স্থানীয় লোকজনের অভিযোগের প্রেক্ষিতে মাঝে মধ্যে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তীর খেলায় জড়িতদের গ্রেফতার করলেও প্রকৃত গডফাদাররা রয়ে যায় অগোচরে। তাই কানাইঘাটে কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না সর্বনাশা এই অবৈধ ভারতীয় তীরখেলা। বিগত জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায়ও এই অবৈধ তীর খেলাটি বন্ধের জন্য ব্যাপক আলাপ-আলোচনা হয়েছে। তীর খেলার নামে অবৈধভাবে টিকেট বিক্রির মাধ্যমে সংগৃহীত মুদ্রা বিদেশে পাচার রোধ এবং সর্বনাশা এই খেলাটি বন্ধ করতে প্রকৃত গডফাদারদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য সচেতন মহল কর্তৃপক্ষ বরাবরে জোর দাবী জানিয়েছেন।  উল্লেখ্য কানাইঘাটে ভারতীয় তীর খেলার অপরাধে গত ১৬ মে ২০১৪ তারিখে দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ। মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে তাদেরকে আটক করা হয়।  আটককৃতরা হলেন- কানাইঘাট বাজারের কামার পট্টি পৌরসভার নয়াখলা গ্রামের বাচ্ছু মিয়ার পুত্র কয়সর আহমদ (২০) ও দুর্গাপুর গ্রামের ওয়াজেদ আলীর পুত্র ময়নুল ইসলাম (২৩)। একজনকে ৬মাস ও অন্যজনকে ৭ দিনের সাজা প্রদান করা হয়।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close