নগরীতে ইজিবাইক চালকদের তান্ডব : শতাধিক গাড়ি ভাংচুর

আহত ১০ : ভাংচুরের ঘটনায় ১৬ ইজিবাইক চালক আটক

easybike-drivers-brutality6সুরমা টাইমস রিপোর্টঃ অবৈধ ইজিবারক বন্ধের প্রতিবাদে সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বাসায় বৈঠক থেকে ফেরার পথে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় তান্ডব চালিয়েছে ইজিবাইক চালক ও মালিকেরা। এ সময় বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাংচুর করেছে ইজিবাইক চালকরা। এতে আহত হয়েছেন অন্তত ৬ জন।
জানা যায়, নগরীকে যানজট মুক্ত করার উদ্দেশ্যে গত বুধবার থেকে ইজিবাইকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মাঠে নামে easybike drivers brutality3পুলিশ। প্রথম দিনই নগরী থেকে অর্ধশতাধিক ইজিবাইক আটক করা হয়। নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ ইজিবাইককে নগরীতে প্রবেশে বাধা দেয়। নগরীর যানজট নিরসনে পুলিশ প্রশাসন ইজিবাইক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। বুধবার থেকে নগরীতে ইজিবাইক চলাচল করতে দেওয়া হয়নি। এরই প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দিনে নগরীর বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিল করে ইজিবাইক চালকরা। নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার চেয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপিও প্রদান করে তারা।
easybike drivers brutality5রাতে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে প্রায় ৬শতাধিক চালক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর কুমারপাড়াস্থ বাসায় হাজির হয়। এসময় ইজিবাইক চালক শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠকে আরিফুল হক চৌধুরী তাদের ধৈর্য্য ধরার আহ্বান জানান। এ সময় তারা মেয়রের বাসা ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকে। সেখান থেকে ফেরার পথে কুমারপাড়া, নয়াসড়ক ও চৌহাট্টা পয়েন্টে শতাধিক গাড়ি ভাঙচুর করে। এসময় কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটালে জনমনে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। মেয়রের কুমারপাড়াস্থ বাসা থেকে বেরিয়ে ইজিবাইক চালকরা নগরীর মীরবক্সটুলা, নয়াসড়ক, মানিক পীর রোড. আম্বরখানাসহ বিভিন্ন জায়গায় ট্রাক, মাইক্রোবাস, হাইএইচ, নোহা, প্রাইভেট কারসহ শতাধিক গাড়ি ভাংচুর করে। তাদের তান্ডবের হাত থেকে রক্ষা পায়নি ওইসব গাড়ির ড্রাইভার ও হেলপাররাও। ইজিবাইক চালকদের হামলায় ২ জন গুরুতর আহতসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

একটি ইজিবাইকও নগরীতে ঢুকতে পারবে না

এদিকে ট্রাক ভাংচুর, ট্রাক ড্রাইভারও হেল্পারদের মারধর করার প্রতিবাদে নগরীর উপশহর রোজভিউ হোটেলের সামন থেকে নাইওরপুল এলাকা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ করে ট্রাক শ্রমিকরা।  বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে সিলেট নগরীর বিভিন্ন স্থানে শতাধিক গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় ১৬ ইজিবাইক চালককে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাত ১২টা থেকে ১টার মধ্যে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি থানার ওসি আতাউর রহমান।
আতাউর রহমান সুরমা টাইমসকে জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে নগরী জুড়ে তান্ডব চালিয়ে বেশ কিছুসংখ্যক গাড়ি ভাংচুরের ঘটনায় ১৬ ইজিবাইক চালককে আটক করা হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত অন্যান্যদের আটকে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। শুক্রবার থেকে সিলেট মহানগরীতে একটি ইজিবাইকও ঢুকতে পারবে না, ঢুকতে দেয়া হবে না’ বলেও মন্তব্য করেছেন সিলেট কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে তিনি এই মন্তব্য করেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close