সিটি করপোরেশনের স্টাফ কোয়াটার নির্মানকাজ নিয়ে উত্তেজনা

city_newsসুরমা টাইমস ডেস্কঃ সিলেট সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে নির্মিতব্য স্টাফ কোয়াটারের কাজ অবশেষে বন্ধ করে দিয়েছেন ভূমিটির মালিকানা দাবিদাররা। চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে নগরীর কুমারপাড়া এলাকায় ১০ শতক ভূমির উপর ২কোটি টাকা ব্যয় করে নির্মাণ কাজ শুরু হয়।
সিটি করপোরেশনের ভবন নির্মাণের বিরুদ্ধে চলতি বছরের মার্চ মাসে সিনিয়র সহকারী জজ আদলত সদরে স্বত্ত্ব মোকদ্দমা মামলা নং ৬১/২০১৫ দায়ের করেন সওদাগরটুলার বাসিন্দা আলী হায়দার গং। অভিযোগ উঠেছে কোন প্রকার নামজারি ছাড়াই সিটি করপোরেশন ওই জায়গাটিতে ভবন নির্মাণ করছে।
IMG_0774 copyসূত্রে জানা যায়, সিলেট সদর উপজেলার মিউনিসিপ্যালিটি জেএল নং-৯১,এসএ খতিয়ান নং-৭৯৬,এসএদাগ নং-৮৫৩১ এর ১০ একর জায়গাটি মালিকানা দাবী করছেন সওদাগরটুলার বাসিন্দা আলী হায়দার গং। ১৯৫৬ সালের এসএ রেকর্ড অনুযায়ি এই ভূমির মালিক সওদাগরটুলার বাসিন্দা আলী হায়দার গং এর দাদা মোহাম্মদ ইদ্রিছ আলী। সিটি করপোরেশন যখন ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে তখন আলী হায়দার গং আদালতে স্বত্ত্ব মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে ডাক বিভাগরে মাধ্যমে ৫মার্চ সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে উকিল নোটিশ প্রেরণ করা হয়। এমনকি ৯মার্চ এই উকিল নোটিশটি সিটি করপোরেশনের গ্রহণ করে।
এদিকে রোববার দুপুরে ভূমিটির দাবি নিয়ে কাগজপত্রসহ সওদাগরটুলার বাসিন্দা আলী হায়দার গংসহ প্রায় শতাধিক মানুষ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ করেন। খবর পেয়ে সিটি করপোরেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, নগরীর কুমারপাড়ায় ১৯৬৫ সাল থেকে ১০শতক ভূমি সিলেট সিটি করপোরেশনের মালিকানায় রয়েছে। সম্প্রতি টিনসেডের স্টাফ কোয়ার্টার ভেঙ্গে ১০তালা স্টাফ কোয়ার্টার ভবন নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ইতোমধ্যে সেখানে ৫০টি পাইলিং বসানোর কাজ শেষ হয়েছে। গত কিছুদিন যাবৎ সওদাগরটুলার বাসিন্দা আলী হায়দার গং উত্তরাধীকার সূত্রে ভূমির মালিকানা দাবি করে আসছেন।
সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমান জানান- ভূমির মালিকানা দাবি করে স্থানীয় একটি পক্ষ কাজে বাধা দিয়েছে। দানকৃত ভূমিটি ১৯৬৫ সাল থেকে সিটি করপোরেশনের মালিকানায় রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন- এ ব্যাপারে ওই পক্ষটি একটি মামলা করেছে। আগামী ১৭ তারিখ এই মামলার শুনানির দিন।
এ ব্যাপারে সওদাগরটুলার বাসিন্দা আলী হায়দার বলেন, এই ভূমিটির উত্তরাধিকার সূত্রে আমরা মালিক। এ ব্যাপারে আদালতে স্বত্ত্ব মামলা চলছে। এমনকি সিটি করপোরেশনকে কাজ বন্ধ করে রাখার জন্য ডাক বিভাগের মাধ্যমে উকিল নোটিশও প্রদান করা হয়। জায়গার নামজারিও তাদের নামে নেই। সরকারি আইননুযায়ি নাম জারি ছাড়া সিটি করপোরেশন এলাকায় কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্টান নামজারি ছাড়া কোন ধরনের ভবন নির্মাণ করতে পারবেন না। কিন্তু তারা কিভাবে ভবন নির্মাণ করছে। এছাড়াও এই ভূমির খাজনা আমরা রীতিমত দিয়ে যাচ্ছি।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close