রাজধানীতে দুই ভাইবোনের রহস্যজনক মৃত্যু : ময়নাতদন্তে হত্যার আলামত

orony and alvi (siblings)ডেস্ক রিপোর্টঃ রাজধানীতে রহস্যজনকভাবে মারা গেছে ভিকারুন্নেসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া ছাত্রী ইশরাত জাহান অরণী (১৪) ও তার ভাই আলভি আমিন (৬)।
গতকাল রাত ৮টার দিকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন ঢামেক পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই মোজাম্মেল হক। তিনি জানান, অরণী ও আলভি আমিন বাবা মায়ের সাথে রামপুরা বনশ্রীর বি-ব্লকের, ৪ নম্বর রোডের ৯ নম্বর বাসায় ভাড়া থাকে। বাবার নাম আমানুল্লাহ আমান। তাদের গ্রামের বাড়ি জামালপুরের নয়াপাড়ায়।
অরণীর মা মাহফুজা বেগম জানান, গতরাতে তারা বনশ্রী এলাকার একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে রাতের খাবার খান। সে সময় কিছু খাবার বেঁচে গেলে সেগুলো তিনি বাসায় নিয়ে ফ্রিজে রাখেন। পরে আজ দুপুরে অরণী ও আলভি বাসায় ফিরে ওই খাবার খায়। এর কিছুক্ষণ পরই তারা ঘুমিয়ে পড়ে।
সন্ধ্যা হয়ে গেলেও তাদের কোনো সাড়াশব্দ না পেলে ঘরে গিয়ে তিনি দেখেন তারা দু’জনই ঘুমিয়ে আছে। অনেক ডাকাডাকি করেও তাদের ঘুম ভাঙাতে না পেরে আশেপাশের লোকজনকে ডাকেন। প্রতিবেশীরা এসে দু’জনকে প্রথমে স্থানীয় একটি মেডিকেলে নিয়ে যায়। অবস্থার উন্নতি না হলে রাত ৮টার দিকে তাদের ঢামেকে নেয়া হয়। এসময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।
তবে খাবারের বিষক্রিয়ায় দুই শিশুর মৃত্যুর কথা পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হলেও, তাদের ‘হত্যা’ করা হয়েছে বলে ধারণা করছেন ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসকরা। মঙ্গলবার ঢামেক মর্গ সূত্র জানায়, শিশু দুটির ময়নাতদন্ত শেষ হয়েছে। তাদের শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া তাদের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ সোহেল মাহমুদ জানান, দুটি বাচ্চার গলায় তারা ‘দাগ’ পেয়েছেন। সেখানে আঙুলের ছাপও ছিল। থুতনি সহ বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। দুজনেরেই জিহ্বায় কামড় লেগে ছিল।
“আমরা ভিসেরা পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠিয়েছি। তারপরও আমাদের প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, এট হত্যা জনিত মৃত্যু।”
এর আগে ফরেনসিক বিভাগের ডা. প্রদীপ বিশ্বাস মর্গের বাইরে সাংবাদিকদের বলেন, মেয়েটির গলায় এবং ছেলেটির গলা ও পায়ে জখমের চিহ্ন দেখেছেন তারা।
তাদের শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে কি না জানতে চাইলে এই চিকিৎসক বলেন, “আমি সেভাবে বলব না। তবে অক্সিজেনের অভবে তাদের মৃত্যু হয়েছে।”
তিনি জানান, খাবারের বিষক্রিয়ায় দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে স্বজনরা প্রাথমিকভাবে জানিয়েছিলেন। এ কারণে তাদের পাকস্থলিতে যে খাবার পাওয়া গেছে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে রাসায়নিক পরীক্ষার জন্য।
ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইস্কাটন শাখার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ইশরাত জাহান অরণী (১৪) ও তার ছোটভাই হলি ক্রিসেন্ট স্কুলের নার্সারির ছাত্র আলভী আমান (৬) এর বাবা আমানুল্লাহ একজন পোশাক ব্যবসায়ী। মায়ের নাম মাহফুজা মালেক জেসমিন। রামপুরা বনশ্রীর বি ব্লকের চার নম্বর রোডে তাদের বাসা।
পরিবারের সদস্যরা জানান, ময়নাতদন্ত শেষে দুই শিশুর লাশ জামালপুরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সেখানে গ্রমের বাড়িতে তাদের দাফন করা হবে।
রামপুরা থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো মামলা করা হয়নি। তবে ‘কেন্ট’ নামে বনশ্রীর যে রেস্তোরাঁর খাবার তারা খেয়েছিল, তার ব্যবস্থাপক, এক কর্মচারী ও পাচককে সন্দেহভাজন হিসেবে ৫৪ ধারায় আটক করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close