সাত মাস বন্ধ থাকার পর শুরু হচ্ছে ভারত থেকে চুনাপাথর আমদানি

DSC_0219

প্রায় সাত মাস বন্ধ থাকার পর শুরু হচ্ছে ভারত থেকে পাথর ও চুনাপাথর আমদানি। আগামী মঙ্গলবার থেকে আমদানি শুরু হবে বলে জানিয়েছেন সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি মামুন কিবরিয়া সুমন। রোববার বিকেলে চেস্বার ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্স (আইসিসি) এর আমন্ত্রণে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলং এ অনুষ্ঠিত ৩ৎফ অপঃ ঊধংঃ ইঁংরহবংং ঝযড়ি ২০১৬ থেকে ফিরে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন এফবিসিসিআই পরিচালক শামীম আহমদ। এতে ভারত সফরে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সংক্রান্ত নানা আলোচনা ও অগগ্রতির দিক তুলে ধরেন তিনি।

২৬-২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই ‘ব্যবসা প্রদর্শনী’তে এফবিসিসিআই’র সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমাদও অংশ নেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মেঘালয়ের হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা থাকায় বেশ কিছুদিন যাবৎ ভারত থেকে কয়লা, পাথর, চুনাপাথর ইত্যাদি আমদানী করা যাচ্ছে না। যার ফলে এ খাতে জড়িত হাজার হাজার বাংলাদেশী শ্রমিক ও ব্যবসায়ী এতদিন যাবৎ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। আমদানী বন্ধ থাকায় সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব হারাচ্ছে এবং কয়লা, পাথর, চুনাপাথর ইত্যাদির অপ্রতুলতার কারণে উন্নয়ন কার্যক্রম বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে। এবার এই সকল সমস্যার সমাধান হতে যাচ্ছে। ভারত থেকে পুনরায় আমদানী চালুর লক্ষ্যে বাংলাদেশের প্রতিনিধিবৃন্দ গত বৃহস্পতিবার রাতে শিলংয়ের পাইনউড হোটেলে মেঘালয় রাজ্যের বনমন্ত্রী প্রেস্টন টাইনসং এর সাথে সাক্ষাৎ করেন। এ সভায় ফলপ্রসূ আলোচনার প্রেক্ষিতে প্রায় সাত মাস যাবৎ বন্ধ থাকা চুনাপাথর আমদানী চলতি সপ্তাহ থেকে আবার শুরু হবে বলে মেঘালয় রাজ্যের বনমন্ত্রী আশ্বস্থ করেন।

মেঘালয়ের হাইকোর্ট কর্তৃক মাইন বিস্ফোরণের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় মেঘালয়ের ফরেস্ট বিভাগ গত বছরের ৩০ জুলাই থেকে চুনাপাথর রপ্তানী বন্ধ করে দেয়।

চেম্বার নেতৃবৃন্দ জানান, বিজনেস শো এর মূল লক্ষ্য ছিল ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর সাথে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদারকরণ। ৩ দিন ব্যাপী এই বিজনেস-শো উদ্বোধন করেন মেঘালয় রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রী ড. মুকুল সাংমা। এতে বাংলাদেশ ছাড়াও নেপাল, থাইল্যান্ড ও কানাডা সহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ সমূহের প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করে।

বিজনেস শো উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে আমদানি ছাড়াও দুই দেশের আভ্যন্তরীণ যোগাযোগ বৃদ্ধি, ভারতীয় ভিসা প্রাপ্তি সহজীকরণ, সিলেটে ভারতীয় ভিসা সেন্টার চালু, পর্যটন খাতের উন্নয়ন এবং পর্যটকদের সুবিধার্থে সিলেট-শিলং বাস সার্ভিস চালু সহ বিভিন্ন দ্বি-পাক্ষিক বিষয়ে ফলপ্রসূ আলোচনা হয় বলে জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সিলেট চেম্বানেন সহ সভাপতি মাসুদ আহমদ চৌধুরী, পরিচালক খন্দকার সিপার আহমদ, মোঃ লায়েছ উদ্দিন, এজাজ আহমদ চৌধুরী, আবু তাহের মোঃ শোয়েব, পিন্টু চক্রবর্তী, নামুল কুদ্দুছ চৌধুরী, মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান (ভূট্টো), মোঃ এমদাদ হোসেন, এহতেশামুল হক চৌধুরী।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close