চার বছর পর তাদেরকে ফেরত দিলো ভারত

51805ডেস্ক রিপোর্টঃ অনুপ্রবেশের দায়ে ভারতে আটক হওয়া ২৪ বাংলাদেশীকে চার বছর পর ফেরত দেওয়া হয়েছে। ভারত সরকারের দেওয়া বিশেষ ‘ট্রাভেল পারমিটের’ মাধ্যমে সুতারকান্দি শুল্কবন্দর চেকপোস্ট দিয়ে তারা শুক্রবার দুপুরে দেশে ফেরেন।
সুতারকান্দি ইমিগ্রেশন পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালে চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার অধিবাসি ৩১ জনকে ভারতে অনুপ্রবেশের অভিযোগে গ্রেফতার করে ভারতীয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পরে তাদেরকে বিভিন্ন মেয়াদে দন্ড দেওয়া হয়।
দীর্ঘদিন কারা ভোগের পর তাদের ফিরিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ভারতীয় কর্তপক্ষ। বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতা শেষে শুক্রবার দুপুরে সিলেট জেলার বিয়ানীবাজার উপজেলার শেওলা-সুতার কান্দি স্থলবন্দর দিয়ে ২৪ জনকে ফেরত পাঠানো হয়। বাংলাদেশের পক্ষে শেওলা স্থলবন্দরে তাদের গ্রহণ করেন সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা ও বিয়ানীবাজার থানার ওসি জুবের আহমদ পিপিএম, শেওলা ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা রস্তুম আলী।
ভারতের পক্ষে তাদেরকে প্রেরণ করেন ভারতের সুতারকান্দি ইমগ্রেশন কর্মকর্তা এস চক্রবর্তী, বিক্রম ব্যানার্জি, ১৩৩ বিএসএফ’র কোম্পানি কমান্ডার পি এম গণেশ প্রমুখ।
ফেরত আসা বাংলাদেশীরা হলেন- আব্দুল খালিক, মাশিরুল ইসলাম, আনারুল হক, কাইউম আলী, আব্দুর রহিম, জহির উদ্দীন, আব্দুল খালিক তোফাজুল হক, আরিফুল, মো. কবির, আনোয়ারুল, মো. আব্দুল মান্নান, মো. মিজানুর রহমান, মো. রহিম উদ্দিন, মো. সাদেকুল ইসলাম, মো. আতিকুল, জাহাঙ্গীর ইসলাম, মো. জিয়াউল হক, রহিম, তোবজুল হোসেন, আব্দুস সালাম, জাহাঙ্গীর আলম, মো. রেজাউল করিম।
এব্যাপারে সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজ্ঞান চাকমা বলেন, বাংলাদেশ সরকারের দুরদর্শীতার কারণে চার বছর পর দেশে ফিরেছেন ২৪ জন বাংলাদেশী। ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের জেল হাজতে থাকা বাংলাদেশীদের ফিরিয়ে আনতে বাংলাদেশ সরকার কাজ করে যাচ্ছে।
বিয়ানীবাজার থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) জুবের আহমদ বলেন, ফেরত বাংলাদেশীদের বিয়ানীবাজার থানা পুলিশের পক্ষ থেকে নিজ নিজ বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে ।
ফেরত আসা আবদুল খালেক বলেন, অমানসিকভাবে কাজ করিয়ে টাকা দেয়নি। টাকা চাইলে কাল পরশু দেব বলে টালবাহানা করে। এক পর্যায়ে দেশে টাকা পাঠানোর জন্য রহমতকে (ভারতীয়) চাপ দিলে সে পুলিশে ধরিয়ে দেয়। পুলিশ আমাদের সাথে অমানসিক আচরণ করেছে। এবার আমি নতুন জীবন ফিরে পেয়েছি মনে হচ্ছে। এক সময় মনে হয়েছিল- জীবিত অবস্থায় দেশে ফেরত আসতে পারবো না।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close