প্যারিস হামলার জেরে পর্তুগালের আমাদরা মসজিদে আগুন

amadara mosque3সুরমা টাইমস ডেস্কঃ মানব রুপে যখন দানব এসে পড়ে লোকালয়ে, তখন জীবনের আর্তনাদ মুখ থুবড়ে পড়ে বিবেকের দুয়ারে৷ পৃথিবী আজ তেমনি কিছু দানবের থাবায় ক্ষত-বিক্ষত গোটা বিশ্ব, ইরাক, আফগানিস্তান, ফিলিস্তিন, কাশ্মির, সিরিয়া সহ অসংখ্য দেশ ঘুরে সেই তারই ধারাবাহিকতায় প্যারিসের বহমান রক্তধারা আজ, আর এই মর্মান্তিক ঘটনার জন্য মুসলিমদের দায়ী করে ১৫/১১/২০১৫ ইং রবিবার ফজরের নামজের পর কিছু দুষ্কৃতকারীরা পর্তুগালের লিসবনের আমাদরা শহরের (ASSOCIACAO NK – MESQUITA DA REBOLEIRA) আমাদরা বাংলা মসজিদের দরজায় আগুন লাগিয়ে দেয়। প্যারিসে হামলার জন্য মসজিদের দরজায় আগুন লাগিয়েছে বলে উপস্তিত এক বৃদ্ধ পর্তুগীজ মহিলা আমাদেরকে জানায়, এবং তিনি প্রথমে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেন। পরবর্তীতে পর্তুগাল পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিজ এসে আগুন নিয়ন্ত্রণ করে, পর্তুগাল পুলিশ এবং গোয়েন্দা নজরধারী মধ্যে আছে বর্তমানে পুরো এলাকা, তবে এই এখনো পর্যন্ত কাওকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। এলাকার একজন বৃদ্ধ পর্তুগীজ মহিলার সাথে কথা বলে জানা যায়যে এক জন ৪০-৪৫ বছরের লোক ভোর বেলায় পেট্রোল ঢেলে বাংলা মসজিদের দরজায় আগুন ধরিয়ে দেয়। মসজিদের সভাপতি জনাব মুহাম্মদ নুরুল্লাহ, সহ-সভাপতি জনাব শওকত ওসমান, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ কামাল হোসাইন বলেন সন্ত্রাসীদের কোন ধর্ম নেই, তারা ইসলাম ধর্ম কে কলংকিত করতে চাচেছ। আমরা মুসলিমরা কখনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সাপোর্ট করিনা, মুসলিমরা কোন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িত নয়, কিভাবে শান্তি,সম্প্রিতি এবং ভাতৃত্য বন্ধনে আবদ্ধ হতে হয় সেই শিক্ষায় দেয় ইসলাম। আমরা এই বর্বর ঘটনার এবং প্যারিস সহ সকল প্রকার উগ্রবাদী হামলার তীব্র নিন্দা জানাই।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close