নগরীতে রিকশা ভাড়া নির্ধারণ : তালিকায় অসঙ্গতি, চালকদের আপত্তি

কোর্টপয়েন্ট থেকে মিরের ময়দানের রিকশা ভাড়া ১০ টাকা আবার একইস্থান হতে অপেক্ষাকৃত নিকটবর্তী রিকাবীবাজারের ভাড়া ১৫ টাকা। অপরদিকে কোর্ট পয়েন্ট থেকে উপশহরের কয়েকটি ব্লকের ভাড়া ৩০ টাকা আবার দূরবর্তী আম্বরখানা থেকে উপশহরের সব ব্লকের ভাড়া মাত্র ২৫ টাকা।

Rickshawসুরমা টাইমস ডেস্কঃ কোর্টপয়েন্ট থেকে মিরের ময়দানের রিকশা ভাড়া ১০ টাকা আবার একইস্থান হতে অপেক্ষাকৃত নিকটবর্তী রিকাবীবাজারের ভাড়া ১৫ টাকা। অপরদিকে কোর্ট পয়েন্ট থেকে উপশহরের কয়েকটি ব্লকের ভাড়া ৩০ টাকা আবার দূরবর্তী আম্বরখানা থেকে উপশহরের সব ব্লকের ভাড়া মাত্র ২৫ টাকা।
সম্প্রতি নগরীতে রিকশা ভাড়া নির্ধারণ করে একটি খসড়া তালিকা তৈরি করেছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। সেই তালিকা ঘেঁটে দেখা গেছে এমন কিছু অসঙ্গতি।
সিলেট নগরীর এক নৈমিত্তিক সমস্যার নাম রিকশা। নগরীতে বৈধ-অবৈধ মিলিয়ে এতাে রিকশা তবু যাত্রীদের প্রয়োজনমাফিক কোথাও যেতে চায় না চলকরা। এই নিয়ে চলক-যাত্রী ঝগড়াবিবাদ লেগেই থাকে।
এই সমস্যার সমাধানে নগরীতে রিকশা ভাড়া নির্ধারণের দাবি দীর্ঘদিনের। নাগরিক শ্রেণী থেকে বিভিন্ন সময় এ দাবি জানানো হলেও এতোদিন সিটি করপোরেশন ছিলো উদাসীন। তবে সম্প্রতি এই সমস্যা সমাধানে উদ্যাগী হয়েছে সিলেট সিটি করপোরশেন (সিসিক)। নগরীর বিভিন্ন এলাকার ভাড়া নির্ধারণ করে একটি খসড়া তালিকা তৈরি করা হয়েছে।
সিসিকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সকলের অবগতির জন্য এই তালিকা নগরীর ৫১ টি পয়েন্টে টানানো হবে। এক মাসের মধ্যে তা কার্যকরের আশা প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা।
সিসিকের এই উদ্যােগকে স্বাগত জানিয়েছেন নগরবাসী। তবে রিকশা চলকরা নির্ধারিত ভাড়াকে সময়ের সাথে সামজ্যস্বপূর্ণ নয় দাবি করে জানিয়েছেন, এতে যাত্রীদের সাথে ঝগড়বিবাদ আরো বাড়বে।
তবে সিলেট সিটি করপোরেশনের লাইসেনন্স শাখার কর্মকর্তা চন্দন দাস এই প্রতিবেদককে বলেন, রিকশা চালক, মালিকসহ বিভিন্ন শ্রেণীর প্রতিনিধিদের নিয়ে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এতে রিকশা ভাড়া নিয়ে নগরীতে যে সমস্য তা অনেকটাই সমাধান হবে। একমাসের মধ্যে এই ভাড়া কার্যকরের আশা প্রকাশ করেন তিনি।
তিনি জানান, রিকশা ভাড়া নির্ধারণের জন্য গত ফেব্রুয়ারিতে একটি সাব কমিটি গঠন করে সিসিক। কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতেই ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। নতুন এই তালিকায় প্রতি কিলোমিটার ১০ টাকা, প্রতি ঘন্টা ৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব এই প্রতিবেদককে বলেন, প্রথম এই উদ্যাগে নেওয়া হয়েছে। তাই কিছু অসঙ্গতি থাকতে পারে। এগুলো সংশোধন করা যাবে। তিনি বলেন, সবার সহযোগিতা পেলে এটি কার্যকর করা সম্ভব।
বৃহস্পতিবার নগরীর জিন্দাবাজরে সিসিকের নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা দেখিয়ে রিকশা চালক শরিফ মিয়ার মন্তব্য জনতে চাইলে তিনি বলেন, সিলেটের কিছু রাস্তা অনেক উঁচু। সেসব রাস্তায় রিকশা চলাতে অধিক পরিশ্রম হয়। উঁচু ও ঢালু সড়কের ভাড়া সমান রাখলে আমাদের পোষাবে না। তাছাড়া কিছু রাস্তা ওয়ানওয়ে হওয়ায় যাত্রী নিয়ে গেলে ফেরত আসা যায় না। তাই এসব এলাকার জন্য বাড়তি ভাড়া নির্ধারণ করতে হবে।
তালিকা দেখে রিকশা চলক আজমল আলী বলেন, জিন্দাবাজার থেকে টিলাগড় ২০ টাকা ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। অথচ এখন আমরা জিন্দাবাজার থেকে শিবগঞ্জ গেলেই ২০ টাকা ভাড়া পাই। সবকিছুর দাম বাড়ে আর রিকশা ভাড়া কমলে চলবে কি করে?
সিসিক প্রণিত তালিকা অনুযায়ী নির্ধারিত রিকশা ভাড়া হচ্ছে, জিন্দাবাজার পয়েন্ট থেকে লামাবাজার, মিরাবাজার, আম্বরখানা, সুবিদবাজার ১০ টাকা, ভাতালিয়া, ঈদগাহ, শিবগঞ্জ, বালুচর ১৫ টাকা, শেখঘাট, মেডিকেল, টিলাগড়, বাগবাড়ি সুবিদ বাজার ২০ টাকা, চৌকিদিখি, পাঠানটুলা ২৫ টাকা এবং মদিনা মার্কেট ৩০ টাকা।
শিবগঞ্জ থেকে টিলাগড়, সেনপাড়া, খরাদিপাড়া ১০ টাকা করে, নতুন ব্রিজ ১৫ টাকা, বালুচর, ঈদগাহ, আম্বরখানা, শেখঘাট ২০ টাকা করে, লামাবাজার, সুবিদবাজার ৩০ টাকা করে, পাঠানটুলা ৩৫ টাকা, ওসমানী মেডিকেল, মদিনা মার্কেট, বাস টার্মিনাল, হুমায়ুন রশীদ চত্বর ও শেখঘাট ৪০ টাকা করে নির্ধরণ করা হয়েছে।
কোর্ট পয়েন্ট থেকে টিলাগড় ৩০ টাকা, শিবগঞ্জ ২০ টাকা, মিরাবাজার ১০ টাকা, যতরপুর ১৫ টাকা, উপশহার (এ, আই, এফ, জি, এইচ, জে ব্লক) ৩০ টাকা, উপশহর (বি, সি, ডি, ই ব্লক) ২০ টাকা, নতুন ব্রিজ ২০ টাকা, নতুন ব্রিজ হয়ে দক্ষিণ সুরমা বাস টর্মিনাল ৩৫ টাকা, পুরতন ব্রিজ হয়ে দক্ষিণ সুরমা বাস টার্মিনাল ২০ টাকা, নতুন ব্রিজ হয়ে রেল স্টেশন ৩৫ টাকা, পুরাতন ব্রিজ হয়ে রেল স্টেশন ২০ টাকা, পুরাতন ব্রীজ হয়ে বাবনা পয়েন্ট ২০ টাকা, পুরাতন ব্রীজ হয়ে টেকনিক্যাল ৩০ টাকা, নতুন ব্রীজ হয়ে কদমতলী ৩০ টাকা, পুরাতন ব্রিজ হয়ে কদমতলী ৩০ টাকা।
কোর্ট পয়েন্ট থেকে লাউয়াই ৪০ টাকা, বিসিক শিল্প নগরী ৪০ টাকা, খোজারখোলা ৩০ টাকা, বরইকান্দি ৩৫ টাকা, গোপশহর মকন দোকান ৪০ টাকা, ঝেরঝেরি পাড়া ১৫ টাকা, দর্জিবন্দ ১৫ টাকা, শাহী ঈদগাহ ২০ টাকা, সরকারি কলেজ ছাত্রাবাস ৩৫ টাকা, শিবগঞ্জ সোনাপাড়া ২০ টাকা, বালুচর ৩৫ টাকা, কাজীটুলা ১৫ টাকা, ইলেকট্রিক সাপ্লাই ২০ টাকা, উত্তর কাজীটুলা ২০ টাকা, গোয়াইটুলা ২৫ টাকা, আম্বরখানা ১৫ টাকা, লেচু বাগান ২০ টাকা, চৌকিদেখি ৩০ টাকা, লাক্কাতুরা ৩০ টাকা, হাউজিং এস্টেট ২০ টাকা, বাদাম বাগিচা ৩০ টাকা, মাছিমপুর ১৫ টাকা, দর্শন দেউরী ১৫ টাকা, রাজারগলি ১৫ টাকা, শাহজালাল দরগাহ গেইট ১০ টাকা।
কোর্ট পয়েন্ট থেকে মিরের ময়দান ১০ টাকা, সুবিদবাজার ১৫ টাকা, লন্ডনী রোড ও পাঠানটুলা ২০ টাকা, মদিনা মার্কেট ২৫ টাকা, গোয়াবাড়ি ৩০ টাকা, আখালিয়া বিডিআর ক্যাম্প গেইট ও শাবি ক্যাম্পাস গেইট ৩৫ টাকা, বাগবাড়ি ২০ টাকা, এতিম স্কুল ২০ টাকা, কানিশাইল খেয়াঘাট ৩০ টাকা, নবাব রোড (শেখঘাট পিচের মুখ, কলাপাড়া ডহর) ২০ টাকা, ঘাসিটুলা বেতের বাজার ২৫ টাকা, শেখঘাট ১০ টাকা, ভাঙ্গাটিকর ১৫ টাকা, ভাতালিয়া ১৫ টাকা, রিকাবীবাজার ১৫ টাকা, ওসমানী মেডিকেল ২০ টাকা, দাড়িয়াপাড়া ১০ টাকা, মির্জাজাঙ্গাল ১০ টাকা, জল্লারপাড় ১০ টাকা, পশ্চিম কাজির বাজার ১০ টাকা, ছড়ারপার ১৫ টাকা, কুমারপাড়া পয়েন্ট ১৫ টাকা, কুমারপাড়া (ঝর্নারপাড়) ২০ টাকা।
কোর্ট পয়েন্ট থেকে কুমারগাঁও বাস টার্মিনাল ৪০ টাকা, মিরাবাজার আগপাড়া ১৫ টাকা, সোবহানীঘাট ১০ টাকা, চালিবন্দর ১০ টাকা, তোপখানা ১০ টাকা, আম্বরখানা কলবাখানী ২০ টাকা, পুরতান ব্রীজ হয়ে ভার্থখলা ২০ টাকা, পীর মহল্লা ২৫ টাকা, মেন্দিবাগ ২৫ টাকা, সাদাটিকর ৩০ টাকা, কুশিঘাট ৩৫ টাকা, শাপলাবাগ ৩৫ টাকা, টুলটিকর ৪০টাকা ও মিরাপাড়া ৩৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
দক্ষিণ সুরমা কীন ব্রিজ থেকে রেলগেইট ১০ টাকা, হুমায়ুন চত্বর, ট্যাকনিক্যাল ও লাউয়াই ১৫ টাকা, শিববাড়ি, গোটাটিকর ও বরইকান্দি ২০ টাকা, আলমপুর ও মকন দোকান ২৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।
আম্বরখানা থেকে সুবিদবাজার, ঈদগাহ, কাজীটুলা ১০ টাকা করে, পাঠানুটুলা, চৌকিদেখি, নয়াসড়ক ১৫ টাকা করে, মদিনা মার্কেট, লাক্কাতুরা, মিরাবাজার ২০ টাকা করে, শিবগঞ্জ, উপশহর, নতুন ব্রীজ ২৫ টাকা করে এবং টিলাগড় ৩০ টাকা নির্ধারণ করেছে সিসিক।
সিটি করপোরশের কর্মকর্তারা জানান, ভাড়ার তালিকা নগরীর রিকাবীবাজার, মদীনা মাকের্ট, বাগবাড়ি, ওসমানী মেডিকেল, চৌহাট্টা, আম্বরখানা, চৌখিদিখি, শাহী ঈদগাহ, বালুচর, টিলাগড়, শিবগঞ্জ, মিরাবাজার, নাওয়রপুল, সোবহানীঘাট, রোজভিউ হোটেলের সামনে, উপশহর, হুমায়ুন রশিদ চত্ত্বর, কীন ব্রীজ, রেল স্টেশন, সুরমা মাকের্ট পয়েন্ট, লামাবাজার, জিতু মিয়া পয়েন্ট, তালতলা, কোর্ট পয়েন্ট, বন্দর পেপার পয়েন্ট, কাজীটুলা, নয়া সড়ক, জেল রোড, কুমারপাড়া, কালিঘাট, দর্শন দেউরী, কুমারগাঁড়, বাস টর্মিনাল, মিরের ময়দান, পূর্ব দরগাহ গেইট, সুবিদবাজার, শেখঘাট পিছনের মূখ, কাজিরবাজার, মিরাজী শাহ (রহ.) মাজার গেইট, গাজী বুরহান উদ্দিন মাজার গেইট, শিববাড়ি, কদমতলী পয়েন্ট, টেকনিক্যাল, খেয়াঘাট, রেল গেইট ভার্থখলা, ঝালোপাড়া, গোটাটিকর, এমসি কলেজ গেইট, ওসমানী উদ্যানের সামনে, চালিবন্দর পয়েন্ট ও হযরত মানিক পীর (রহ.) করস্থান গেইটে সাইনবোর্ডে সাটানো হবে। এজন্য টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে।
নগরীর মদিনা মার্কেট এলাকার বাসিন্দা চাকুরীজীবি আবুল মোমেন ভাড়া নির্ধারণের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, রিকশা ভাড়া নিয়ে এক ধরণের নৈরাজ্য চলছে। যাত্রীদের জিম্মি করে যার যত খুশি ভাড়া আদায় করে চালকরা। আশা করছি এবার আমরা কিছু পরিত্রাণ পাবো।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close