অপপ্রচার বন্ধে পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

Hasinaসুরমা টাইমস ডেস্কঃ বহির্বিশ্বে সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (২২ জানুয়ারি) সকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পরিদর্শন শেষে এ নির্দেশ দেন তিনি। এর আগে নিয়মিত পরিদর্শনের অংশ হিসাবে সকাল সাড়ে ১০টায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যান প্রধানমন্ত্রী।
এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী (এ এইচ মাহমুদ আলী), পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, পররাষ্ট্রসচিব শহীদুল হকসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, একটি মহল বর্হিবিশ্বে সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। এই অপপ্রচার বন্ধে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে। বিএনপি-জামায়াত পাকিস্তানের মতো পোড়ামাটি নীতি গ্রহণ করেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলামের সঙ্গে জঙ্গিবাদের কোনো সম্পর্ক নেই। জঙ্গিবাদের ধর্ম জঙ্গিবাদ। এর কোনো সীমা-পরিসীমা নেই। মুষ্টিমেয় লোক শান্তির ধর্ম ইসলামকে কলঙ্কিত করেছে। কিন্তু এটা হতে দেওয়া হবে না।
শেখ হাসিনা অভিযাগ করেন, ২০০১ সালে ‘প্রশ্নবিদ্ধ’ নির্বাচনের মাধ্যমে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এসে বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক কূটনীতিতে কালো অধ্যায়ের সূচনা করে। কুখ্যাত যুদ্ধাপরাধীকে (সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী) ওআইসির মহাসচিব পদে প্রার্থী করে তারা দেশের জন্য লজ্জা আর অবমাননা বয়ে আনে।
‘অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলকারীরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পেশাদারিত্বেরও অবজ্ঞা করে। জাতির পিতা হত্যাকারীদের বিভিন্ন দূতাবাসে নিয়োগ দিয়ে তারা দেশের ভাবমূর্তিকে নষ্ট করেছে।’—বলেন তিনি।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন সাফল্য তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, বন্ধুত্ব রক্ষা করে মায়ানমার ও ভারতের বিরুদ্ধে মামলা করে নিজেদের ‘সমুদ্র অধিকার’ অর্জন একটি বিশেষ কূটনীতিক সাফল্য। এজন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানান তিনি।
বিভিন্ন দেশে নিজস্ব দূতাবাস ভবন নির্মাণের তাগিদ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিজস্ব দূতাবাস ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নিতে হবে। এক্ষত্রে অর্থ কোনো সমস্যা নয়, কেননা বর্তমানে আমাদের ২২ দশশিক ৩৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মজুদ রয়েছে।
ফরেন সার্ভিস একাডেমির পরিবেশ ও স্থাপত্য বজায় রেখে নতুন একাডেমিক ভবন তৈরি করতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ফরেন সার্ভিস একাডেমির সুগন্ধা ভবনে ১৯৬৪ সালে ব্রিটেনের রাণী অবস্থান করেছিলেন। এর একটা আলাদা তাৎপর্য রয়েছে। এর স্থাপত্য ও পরিবেশ বজায় রেখে সেখানে নতুন একাডেমিক ভবন নির্মাণ করা হবে।
‘বিএনপি-জামায়াত যে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি দিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে, সেই প্রযুক্তিও আমি দিয়েছি। অপপ্রচার ৫ জানুয়ারির আগেও ছিল, এখনও চলছে।’—যোগ করেন শেখ হাসিনা।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close