দেশের গণতন্ত্র এখন পুলিশের বুটের নিচে : কর্নেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ

জগন্নাথপুরে বাধা উপেক্ষা করে বিএনপির মিছিল-সমাবেশ

Colonel Ali Pic BNPজগন্নাথপুর উপজেলা বিএনপির আহবায়ক বিশিস্ট শিক্ষাবিদ লে. কর্ণেল (অব.) সৈয়দ আলী আহমদ ৫ জানুয়ারীকে গনতন্ত্র হত্যা দিবস হিসাবে অভিহিত করে বলেন, বর্তমান অবৈধ সরকার ২০১৪ সনের এইদিনে গনতন্ত্রকে হত্যা করে কালো ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। সরকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করে রেখে স্বৈরাচারি রূপ দেখিয়েছে। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার স্বৈরাচারি সরকার দেশব্যাপি পুলিশ বাহিনীর মাধ্যমে নির্বিচারে গুলি চালিয়ে মানুষ হত্যা করে চলমান আন্দোলন সংগ্রামকে বন্ধ করতে চায়। দেশবাসী এ সরকারের বিরুদ্ধে ক্রমেই ফুসে উঠছে। জাতি অভিলম্বে এ সরকারের পতন চায় বলে তারা ভয় পেয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে নির্লজ্জভাবে পুলিশ বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়েছে। দেশ এখন পুলিশি রাষ্টে পরিণত হয়েছে। দেশের গণতন্ত্র এখন পুলিশের বুটের নিচে দেশের।
গতকাল সোমবার ২০ দলীয় জোটের ডাকে গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালন উপলক্ষ্যে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বিএিনপি আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ববর্তী সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে গণতন্ত্র হত্যার প্রতিবাদে কালো দিবস পালন উপলক্ষে স্থানীয় শহীদ মিনার এলাকায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির প্রথম সদস্য কবির আহমদের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, বিএনপি নেতা আবূ হুরায়রা সাদ মাষ্টার, এমএ নুর, এডভোকেট জিয়াউর রহীম শাহীন, সৈয়দ দুলা মিয়া, সৈয়দ মোসাব্বির আহমদ, আখলুল করিম, সৈয়দ খায়রুল ইসলাম, আব্দুস সোবহান, খলিলুর রহমান, কামরুজ্জামান, জাবেদ কোরেশী, কিম্মত আলী, নান্নু, যুবদল নেতা দিলু মিয়া, কুরেশ আহমদ, আলিম উদ্দীন, এমডি জামাল, ফুজলুল হক আমিনী, মিজান কোরেশী, ইসহাক আহমদ, পাঠলী ইউনিয়ন যুবদল সভাপতি কয়েস আহমদ, যুবদল নেতা এমরান রাজা, খালিক আহমদ খালিক, রিপন মিয়া, ছাত্রদল নেতা জুবেদ আলী লখন, হাজী হারূন, রাহিন মিয়া, নাছিম আহমদ রুহেল, সৈয়দ মারুফ, নুরুল, জাকির হোসেন, মস্তাক আহমদ, জুন্নুন জাকেরীন, সৈয়দ মাজুর, আওলাদ, আখতার, জামিল খান, সুজেল খান, জাবির আহমদ, জুনেদ, সৈয়দ কিবরিয়া, পারভেজ, আব্দুল আহাদ ও সুমন প্রমুখ।
সভা শেষে উপজেলা বিএনপির আহবায়ক লে. কর্ণেল অব সৈয়দ আলী আহমদের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি বাজার অভিমুখে আসলে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে। এ সময় পুলিশ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। শুরু হয় উভয় পক্ষের মধ্যে বাক-বিতন্ডা। এক পর্যায়ে পুলিশি ধাওয়ায় ছত্রভঙ্গ হয়ে যান বিএনপির নেতাকর্মীরা। তবে উভয় পক্ষের মধ্যে থমথমে অবস্থা বিরাজ করলেও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। পরিস্থিতি মোকাবেলায় দিনব্যাপী পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল।
এদিকে গতকাল বিকেলে উপজেলার দাওরাই বাজারে বিএনপি নেতা ফজলু কাবেরী, ফখরুল ইসলাম সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দের উদ্যেগে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন লে. কর্নেল সৈয়দ আলী আহমদ, বিএনপি নেতা এমএ নূর, এড. জিয়াউর রহিম শাহীন, মো. কবির আহমদ, সৈয়দ মোসাব্বির আহমদসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। সভা শেষ হতে না হতেই অনুষ্ঠান স্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়ে সভাস্থল থেকে ব্যনার এবং বেশ কয়েকটি চেয়ার নিয়ে যাওয়ার ঘটনায় নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। বিজ্ঞপ্তি

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close