মুজিব ওয়ের পর শিকাগোতে জিয়াউর রহমান ওয়ে

Sheikh Mujib Wayনিউইয়র্ক থেকে এনা: শিকাগো সিটিতে আবারো বাংলাদেশীদের বিজয় পতাকা উড়লো। শেখ মুজিবুর রহমান ওয়ের পর এবার শিকাগোতে জিয়াউর রহমান ওয়ে হচ্ছে। ১৯৯৭ সালের ১০ অক্টোবার শিকাগোতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে শেখ মুজিব ওয়ে হয়েছিলো। এবার ২০১৪ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউর রহমানের নামে জিয়াউর রহমান ওয়ে হতে যাচ্ছে। শিকাগো সিটির ৬৮০০ নর্থ এবং ৬৬০০ নর্থের উপরে ক্লাক এভিনিউতেই জিয়াউর রহমান ওয়ে। আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর রোববার ( শিকাগো সময়) বিকেল তিনটায় শিকাগো সিটি হলের উদ্যোগেই এই নামফলক উন্মোচন করা হবে। ইলিনয়ের সেক্রটারি অব স্টেট জেসি হোয়াইটের কাউন্সিল মেম্বার বাংলাদেশী শাহ মোজাম্মেল নান্টু জানিয়েছেন, জিয়াউর রহমান ওয়ের বিলটি শিকাগো সিটি হলে পাশ হয় গত ২৮ মে ২০১৪ সালে। বিলে স্বাক্ষর করেন জোসেফ এ মোরে। সিটি কাউন্সিলের ৫০ জন কাউন্সিল মেম্বারের মধ্যে ৪৮ জনই এই বিলের প্রতি সমর্থন জানান এবং বিলটি পাশ হয়। দুই জন কাউন্সিলম্যান ঐ দিন অনুপস্থিত ছিলেন। জনাব মেজামে¥ল জানান, আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর বিকেলে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিকাগো সিটির গভর্নর প্যাট কুইস, কংগ্রেসম্যান জন সেকেক্সি, ইলিনয়ের সক্রটারি অব স্টেট জেসি হোয়াইট, শিকাগো সিটির কাউন্সিল মেম্বার ছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ থেকে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার প্রতিনিধি বিএনপির প্রবাস বিষয়ক কমিটির সদস্য মহাসচিব মুশফিক ফজল আনসারী এবং লন্ডন থেকে তারেক রহমানের উপদেষ্টা হুমায়ুন কবির আসছেন। আরো আসতে পারেন বর্তমানে লন্ডনে সফররত বিএনপির দপ্তর সম্পাদক রুহুল কবির রিজভী। শাহ মোজাম্মেল আরো জানান, ফলক উন্মোচন অনুষ্ঠানে শিকাগো বিএনপির নেতৃবৃন্দ ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্টেট থেকে বিএনপির নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করবেন। শাহ মোজাম্মেল এনাকে জানান, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশেই আমি এই কাজটি করে যাচ্ছি। বলা চলে এটা আমার ১৮ বছরের প্রচেষ্টার ফসল। এর আগেও অনেকে চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু সফল হননি। যখনই এই বিলটি শিকাগো সিটি হলে উপত্থাপন করা হয় তখন আওয়ামী লীগ এর বিরোধিতা করে। কিন্তু এবার তারা সফল হতে পারেনি। আমি নিজেই এই চিঠিটি ড্রাফট করেছিলাম। আগে যারা চেষ্টা করেছিলেন তাদের মধ্যে ছিলেন শাহ মোসাদ্দেক মিন্টু, সদর উদ্দিন নূরানী, জসীম উদ্দিনসহ আরো কয়েকজন। প্রথম উদ্যোগটি নিয়েছিলেন শাহ মোসাদ্দেক মিন্টু।
এদিকে শিকাগোতে জিয়াউর রহমান ওয়ে হচ্ছে এই খবরে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপিকে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা পরিলক্ষিত হচ্ছে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ঐ দিন একই স্থানে সমাবেশ করার চিন্তা ভাবনা রয়েছে বলে একটি সূত্রে জানা গেছে। সরকারের পক্ষ থেকেও লবিং করা হচ্ছে এবং বিভিন্ন নেতাকে ফোন করা হচ্ছে। সরকারের শীর্ষ মন্ত্রীদের কয়েকজন ইতিমধ্যেই শিকাগো আওয়ামী লীগের নেতাদের ফোন করেছেন এবং যে করেই হোক এটি বন্ধ করার জন্য। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কর্মসূচি সম্পর্কে এক প্রশ্নের জবাবে শাহ মোজাম্মেল জানান, শিকাগো সিটির পক্ষ থেকে এই অনুষ্ঠান করা হচ্ছে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে তারাই ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। শিগানো বিএনপির নেতারা জানান, আমরা দলমত নির্বিশেষে এই অনুষ্ঠানে যোগদান করবো এবং অনুষ্ঠান সফল করবো। এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে নিউইয়র্ক থেকে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সভাপতি আব্দুল লতিফ স¤্রাট, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জিল্লু, সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি গিয়াস আহমেদসহ আরো কয়েকজন নেতা শিকাগো যাচ্ছেন।
উল্লেখ্য এর আগে শিকাগোতে গান্ধী ওয়ে, জিন্নাহ ওয়ে, মুজিব ওয়ে ছিলো। এবার জিয়াউর রহমান ওয়ে হচ্ছে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close