কর্নেল তাহের এদেশের গণমানুুষের মুখপাত্র ছিলেন

শহীদ কর্ণেল তাহের দিবসে মহানগর জাসদের আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দ

Pic Jasod 23.07.14শহীদ কর্ণেল আবুতাহের বীরউত্তম এর ৩৮ তম মৃত্যুদিবসে সিলেট মহানগর জাসদ আয়োজিত আলোচনা সভায় জাসদ নেতৃবৃন্দ বলেছেন, দেশে যতদিন রাজনীতি থাকবে, ততদিন শহীদ কর্ণেল আবু তাহের বীরউত্তম ইতিহাসে চিরঅম্লান থাকবেন। নেতৃবৃন্দ বলেন কর্নেল তাহের এদেশের গণমানুুষের মুখপাত্র ছিলেন। তিনি বাঙালি জাতির স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়ে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নিয়ে নিজের একটি পা উপহার দিয়েছেন, আর শোষনহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য নিজের জীবন উপহার দিয়েছেন। বক্তারা আরও বলেন, ৭ নভেম্বর কর্নেল তাহের জিয়াউর রহমানের জীবন রক্ষা করেছিলেন। আর ইতিহাসের বিশ্বাস ঘাতক সামরিক শাসক জিয়াউর রহমান কর্নেল তাহেরকে বিচারের নামে হত্যা করে এর প্রতিদান দিয়েছে। এটা আজ দেশের সর্বোচ্চ আদালতেও প্রমানিত।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল ৫ নগীর মিরবক্সটুলাস্থ একটি হোটেলের সম্মেলন কক্ষে সিলেট মহানগর জাসদ সভাপতি এডভোকেট জাকির আহমদের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক নাজাত কবিরের পরিচালনায় নেতৃবৃন্দরা এসব কথা বলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাসদের কেন্দ্রীয় নেতা ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্বা অ্যাডভোকেট রফিকুল হক বলেছেন, একটি আত্মনির্ভশীল বাঙালী জাতির শোষনহীন সমাজ বিনির্মাণই লক্ষ্য ছিলো কর্ণেল তাহেরের। তিনি বাঙালী জাতির জন্য একটি শোষনহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য আজীবন লড়ে গেছেন। তিনি শুধু একজন রাজনীতিবিদ নয়, কর্নেল তাহের একটি আদর্শের নামও। তিনি বলেন, আমি একজন মুক্তিযুদ্ধা হিসেবে বলবো, যেদিন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার শেষ হবে, তখনই আমরা দেশকে পুরোপুরি স্বাধীন হিসেবে ভাববো। দেশে আজ বড়ধরণের ষড়যন্ত চলছে, এই ষড়যন্ত্র চক্রান্তকে মোকাবেলা করে আমাদেরকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে। দলকে সংগঠিত করতে হবে। জাসদ শক্তিশালী হলে দেশের নেতৃত্ব মানুষ জাসদকেই দেবে।
সভাপতির বক্তব্যে অ্যাডভোকেট জাকির আহমদ বলেন, কর্নেল তাহেরের স্বপ্ন বাস্তবায়নে শোষন মুক্ত সমাজ ব্যবস্থা কায়েমে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, দেশে মুক্তিযোদ্ধা ও রাজাকার এক সাথে চলতে পারেনা। তেমনি সাম্প্রদায়িক রাজনীতি ও প্রগতিশীল রাজনীতি এক সাথে চলতে পারেনা। তাই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত শেষ করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করতে হবে। দেশে সাম্প্রদায়িক ও জঙ্গিবাদি রাজনীতিকে নিষিদ্ধ করতে হবে। তিনি বলেন, দেশকে জঙ্গিবাদ ও রাজাকার মুক্ত করতে হবে। যুদ্ধাপরাধীদের রায় দ্রুত কার্যকর ও দেশ বিরোধী সকল চক্রান্ত মোকাবেলায় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সকল রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে ।
আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা জাসদের যুগ্ম সম্পাদক আলাউদ্দিন আহমদ, মহানগর জাসদের সিনিয়র সহ সভাপতি ফেরদৌস আরবী, ফয়জুল্লাহ ফারুকী আদনান, কামাল আহমদ চৌধুরী, কোষাধ্যক কামরুল ইসলাম দিপু, সাংগঠনিক সম্পাদক মুজিবুর রহমান মুজিব শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ গোলাম কিবরিয়া।
উপস্থিত ছিলেন, মহানগর জাসদ নেতা এটিএম আব্দুল মোন্তাকীন, সৈয়দ শাহজাহান, আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, সোহরাব আলী, মোস্তাফিজুর রহমান টিপু, হিরণময় চক্রবর্তী, পান্নালাল চৌধুরী, বাবুল আহমদ, আলী আকবর, হুমায়ুন কবির মাহফুজ, মোয়াজ্জেম হোসেন নান্টু, শহীদুল ইসলাম খোকন, প্রদ্বীপ দাশ চৌধুরী প্রমূখ। বিজ্ঞপ্তি

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close