মারা গেলেন বিশ্বের সবচেয়ে ভারী মানুষটি (ভিডিও)

manuel-uribeসুরমা টাইমস ডেস্কঃ ৪৮ বছর বয়সে মারা গেলেন বিশ্বের সবচেয়ে ভারী শরীরের অধিকারী মেক্সিকোর ম্যানুয়েল উরিবে। বিশাল বপুর অধিকারী ছিলেন তিনি।ওজন বাড়তে বাড়তে ৫৬০ কেজিতে পৌঁছে যাওয়ায় ২০০৬-এর জানুয়ারিতে বিশ্বের সবচেয়ে ভারী শরীরের মানুষ বলে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বইয়ে নামও ওঠে।কিন্তু বিরাট শরীরটাকে বোঝা, অভিশাপ বলেই মনে করতেন মন্টেরির উরিবে।তখনই টেলিভিশনের পর্দায় তাঁর অসহায় আর্তি শোনা গিয়েছিল, কেউ যদি পারেন, বলুন না আমায়, ওজন কমাই কী করে?সাহায্য করুন না! পরামর্শ পেয়েছিলেন।তা মেনে চলে একটু একটু করে ওজন কমিয়েও ফেলেছিলেন।২০০৭-এ তাঁর ওজন কমে দাঁড়ায় ৩৮১ কেজি।কিন্তু তাতেও স্বাভাবিক, সুস্থ জীবনযাপন করা সম্ভব হয়নি।নিজের পায়ে উঠে দাঁড়াতে পারতেন না।২০০২ থেকে বিছানায় শুয়েই থাকতেন।
মেক্সিকোর মন্টেরির নুয়েভো লিওন প্রদেশের স্বাস্থ্য দপ্তরের মুখপাত্র জানিয়েছেন, উরিবেকে চলতি মাসের গোড়ায় manuel-uribe-dহাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। হৃদস্পন্দন আচমকা অস্বাভাবিক বেড়ে যাওয়ায়।তবে তাঁর মৃত্যু হয়েছে ঠিক কী কারণে, তা জানাননি ডাক্তাররা।মারা গেলেন বিশ্বের সবচেয়ে ভারী মানুষটি
গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বইয়ের এডিটর-ইন-চিফ ক্রেগ গ্লেনডে স্মৃতিচারণায় বলেছেন, আমার উরিবের সঙ্গে ওঁর বাড়িতে দেখা করার সুযোগ হয়েছিল।ও তখনই নিজের ওজন মাপাতে রাজি হয়।শয্যাশায়ী হলেও ওর মেজাজটি কিন্তু ছিল চমত্কার।টগবগে মানসিকতার।গিনেস রেকর্ডটা ছিল ওর কাছে বিড়ম্বনার।তাই সবচেয়ে ভারী শরীরের মালিকের তকমাটা ঝেড়ে ফেলতে যা যা করা দরকার, তা করার চেষ্টা করত।চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হত হাসিমুখে।নিজের শারীরিক অবস্থা নিয়ে খুবই খোলামেলা কথাবার্তা বলত।ও আশা করত, গিনেস ওর কথা বিশ্বের সামনে তুলে ধরলে যে চিকিত্সা দরকার, সেটা পেতে সুবিধা হবে।গিনেস পরিবারের এই সদস্যকে আমরা খুব মিস করব।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close