অবৈধ সরকারের বাজেট পেশ করার অধিকার নেই : খালেদা জিয়া

Khaleda Ziaসুরমা টাইমস ডেস্কঃ অবৈধ সরকারের জাতীয় সংসদে বাজেট পেশ করার নৈতিক অধিকার নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, এই সরকার ও সরকারের মন্ত্রী- এমপিরা অবৈধ। ফলে ৩ জুন জাতীয় সংসদে তাদের বাজেট পেশ করার অধিকার নেই। যদি এরপরও তারা বাজেট পেশ করে, তাহলে সেই বাজেটও হবে অবৈধ এবং বাজেট অধিবেশনের কয়েক মাসের মধ্যেই তাদের এ কারণে জবাবদিহি করতে হবে।
শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম আয়োজিত আইনজীবী সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতার দাবিতে এবং অ্যাড. চন্দন কুমার সরকারসহ সারাদেশে হত্যা, গুম ও অপহরণের প্রতিবাদে এই আইনজীবী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
বেগম খালেদা জিয়া বলেন, অবৈধ আওয়ামী লীগ সরকার বেআইনিভাবে অস্ত্রের জোরে ক্ষমতায় টিকে আছে এবং বেআইনি অস্ত্র দিয়ে বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের হত্যা করছে। সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এখনও সময় আছে সাবধান হউন না হলে এই অস্ত্রের নল একদিন আপনাদের দিকে ঘুরে দাঁড়াবে। সে দিন আর বেশী দুরে নয়।
বেগম জিয়া বলেন, ফেনীতে আওয়ামী লীগ সমর্থিত উপজেলার চেয়ারম্যান হত্যার সঙ্গে র‌্যাব-১১ জড়িত এবং লক্ষ্মীপুর হত্যার সঙ্গে র‌্যাব-১ জড়িত। কিন্তু সরকার এই তথ্যগুলো জানার পরও অপরাধীদের গ্রেপ্তার করছে না। কারণ এই র‌্যাবের অস্ত্রের জোরেই তারা ক্ষমতায় টিকে আছে।
সরকার র‌্যাবকে দিয়ে দেশে মানুষ হত্যা করছে অভিযোগ করে বিএনপির নেত্রী বলেন, আমরা আন্তর্জাতিক মহলের কাছে আবেদন করবো যাতে র‌্যাবকে বিদেশী কোনো ধরনের প্রশিক্ষণ না দেওয়া হয়। কারণ প্রশিক্ষণ নিয়ে র‌্যাব অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে।
নারায়ণগঞ্জের ৭ খুনসহ সারাদেশে হত্যাকা-ের সঙ্গে যারা জড়িত সরকার তাদেরকে বিদেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপির নেত্রী। খালেদা জিয়া বলেন, খুনিদের জামাই আদর করে বিদেশে পাঠিয়ে দিলে হবে না। তাদের সবাইকে গ্রেপ্তার করতে হবে এবং বিচারের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় দায়ভার আপনাদেরকেই বহন করতে হবে।
আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার সভাপতিত্বে আইনজীবী সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাড. আহমদ আযম খান, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, জয়নুল আবেদীন, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, যুব দলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিব-উন-নবী খান, ছাত্র দলের সভাপতি আব্দুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, সাবেক সংসদ সদস্য আশিফা আশরাফি পাপীয়া প্রমুখ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close