শাহবাগ জামিয়া মাদানিয়ায় সংবর্ধনাসভা অনুষ্ঠিত

SAMSUNG CAMERA PICTURESসিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার বৃহত্তম কওমি মাদরাসা শাহবাগ জামিয়া মাদানিয়া ক্বাসিমুল উলূম-এ গত রোববার বিশিষ্ট প্রবাসী দুই অতিথির আগমন উপলক্ষে এক সংবর্ধনাসভা ও দুয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। অতিথিদ্বয় হলেন বিশিষ্ট চিকিৎসাবিদ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী, পেনসিলভ্যানিয়ায় মেরী মেডিক্যাল সেন্টারের পরিচালক জনাব ডা. আবদুল মালিক (এমডি, পিএইচডি) এবং যুক্তরাজ্যের মাসিক ‘দর্পণ’ ম্যাগাজিনের প্রধান সম্পাদক জনাব আলহাজ্ব এলাইচ মিয়া (মতিন হাজী)।- দীর্ঘ সময় নিয়ে তাঁরা জামিয়ার অবকাঠামো ও শিক্ষাপরিস্থিতি পরিদর্শন শেষে বিকেল ৩টায় সভামঞ্চে উপস্থিত হন। এ সময় জামিয়ার নায়িব-ই মুহতামিম ও সভার সভাপতি মাওলানা মুফতী মাসঊদ আহমদ স্বাগত বক্তব্য প্রদান করে উপস্থিত জনতার সঙ্গে অতিথিদের পরিচয় করিয়ে দেন। মাওলানা রায়হান উদ্দীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ সংবর্ধনাসভায় অতিথিদের উদ্দেশে বাঙলা ও ইংরেজি ভাষায় মানপত্র পাঠ করেন জামিয়ার শিক্ষক, কবি ও প্রাবন্ধিক আবদুল হক এবং মাওলানা সালেহ ফুয়াদ। অতঃপর ঘণ্টাব্যাপী বক্তব্য দেন অতিথিদ্বয়। তাঁরা ইসলামী শিক্ষাবিস্তার ও অন্যান্য মানবসেবামূলক কার্যক্রমে জামিয়ার সাফল্য, বিশেষত পৃথক এতিমখানা শাখা নির্মাণ করে যাবতীয় ব্যয়ভার বহন করে এতিম ও দুঃস্থ শিশু-কিশোরদের লালনপালন ও সযত্ন শিক্ষাদানের ভূয়সী প্রশংসা করে এলাকার সর্বস্তরের মানুষকে শাহবাগ জামিয়া মাদানিয়ার সার্বিক সহযোগিতায় এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান। ডা. আবদুল মালিক পবিত্র কুরআনের আয়াত উদ্ধৃত করে বলেন, জ্ঞানী ব্যক্তি চক্ষুষ্মান এবং মূর্খ ব্যক্তি অন্ধের মতো। তাই জ্ঞানী আর মূর্খ কখনোই সমান হতে পারে না। মহানবী সা. বলেছেন, শ্রেষ্ঠ মানুষ হলো সেই মানুষ, যিনি কুরআন শিক্ষা দেন এবং শিক্ষা করেন। আমাদের সকলের কর্তব্য হলো কুরআন শিক্ষা করা এবং আল্লাহর রাসূলের জীবনাদর্শ অনুসরণ করা। তাহলেই কেবল গড়ে উঠতে পারে একটি শান্তিময় সমাজ। জনাব মতিন হাজী শাহবাগ জামিয়ার মুহতামিম ক্বারী মাও. আবদুল হাফিযের সঙ্গে বিলেতে তাঁর সম্পর্কের স্মৃতিচারণ করে বলেন, এই মাদরাসার সঙ্গে পরোক্ষভাবে ১৯৯৪ সাল থেকে আমি জড়িত। আল-হামদু লিল্লাহ, দেশের বাইরেও এই প্রতিষ্ঠানের অনেক সুনাম রয়েছে। এই সুনাম যেন দিনদিন আরো বৃদ্ধি পায়, যেন এই মাদরাসার ছাত্ররা বড় বড় আলিম হয়ে দেশ ও উম্মাহর কল্যাণে স্মরণীয় ভূমিকা পালন করতে পারে, সেজন্যে এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট সকলের উচিত সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে এ মাদরাসার পাশে দাঁড়ানো। বিজ্ঞপ্তি

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close