ওসমানীতে বিমান দুর্ঘটনা : ৫জন নিহত ও অন্তত ২৫জন আহত

Osmani International Airportসুরমা টাইমস ডেস্কঃ সিলেট এম এ জি ওসমানী বিমানবন্দরে অবতরণ করার সময় ইঞ্জিনে আগুন লেগে এবিসি এয়ারলাইন্সের ডেস এইট বিমানটি পড়ে গেছে। এতে বিমানের যাত্রীসহ ৫জন নিহত ও অন্তত ২৫জন আহত হন। বিমান দুর্ঘটনার পরপরই বিমান বন্দরের নিজস্ব ফায়ার ব্রিগেড দল আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। বিমানবন্দরের ইমার্জেন্সি টেলিফোন পেয়ে তাদের সহযোগিতায় শহর থেকে ছুটে আসে ফায়ার সার্ভিস এর দু’টি টিম। চারটি দমকল টিম মিলে প্রায় ২০ মিনিট চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সম হয়। না, এটা বাস্তবে এটা কোনো দুর্ঘটনার দৃশ্য নয়। সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে গতকাল বুধবার মহড়াকালে এ দৃশ্য দেখা গেছে। প্রথমবারের মতো গতকাল অগ্নিনির্বাপন মহড়া ২০১৪ অনুষ্ঠিত হলো। মহড়া সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপরে চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মাহমুদ হোসেন।
মহড়াশেষে এয়ার ভাইস মার্শাল মাহমুদ হোসেন বলেন, সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরের আন্তর্জাতিক মান বৃদ্ধিতে মহড়া প্রয়োজন। এই মহড়ার মধ্য দিয়ে বিমানবন্দরে কর্তব্যরতদের কাজের মান আরো বৃদ্ধি পেয়েছে। আগামী দু’চার বছরের মধ্যে এই বিমানবন্দরের গুরুত্ব অনেক বেড়ে যাবে। পুরো বাংলাদেশের জন্য বিমানবন্দরটি গর্বের বিষয় হয়ে দাঁড়াবে।
সিলেট বিমান ওসমানী বিমানবন্দরের পরিচালক হাফিজ আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী জালালাবাদ ক্যান্টনম্যান্ট, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ, বাংলাদেশ বিমানবাহিনী, র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৯), বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সিলেট অঞ্চল, সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল হাসপাতাল, সিভিল সার্জন সিলেট, ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্স, সিলেট ক্যাডেট কলেজ, সিভিল এ্যাভিয়েশনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close