সিলেটের ১১ উপজেলায় ভোট : সেনা টহল শুরু

Armyসুরমা টাইমস রিপোর্টঃ ৪র্থ ধাপে সিলেট বিভাগে ১১ উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে রোববার। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষ্যে শুক্রবার বিকেল থেকে নির্বাচনী এলাকায় মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী। ভোট ভোটগ্রহণের দিনসহ এর দুদিন আগে ও দুদিন পরে মোট পাচদিন প্রতি উপজেলায় ১ প্লাটুন করে সেনা মোতায়ন থাকবে। চতুর্থ দফায় সিলেট জেলার সিলেট সদর ও কানাইঘাট, সুনামগঞ্জের শাল্লা ও ধর্মপাশা, মৌভলীবাজারের মৌলভীবাজার সদর, শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জ, হবিগঞ্জের হবিগঞ্জ সদর, নবীগঞ্জ, লাখাই ও আজমিরীগঞ্জ উপজেলায় রোববার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
সিলেট বিভাগের ১১টি উপজেলায় ৭৮১টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৩৭২টি ভোটকেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এসব উপজেলায় চেয়ারম্যান, ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ১৭৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১১টি উপজেলা ও আট পৌরসভার ৯২৭ ওয়ার্ড মিলে মোট ভোটার সংখ্যা ১৬ লাখ ৬২ হাজার ৪১ জন। এর মধ্যে পুরুষ আট লাখ ৩০ হাজার দুইশ ৮৭ জন ও আট লাখ ৩১ হাজার ৭৫৪ জন নারী ভোটার। সর্বোচ্চ ভোটার মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় ও শাল্লা উপজেলায় ভোটার সংখ্যা সর্বনিম্ন। সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ভোটকেন্দ্র নবীগঞ্জ উপজেলায়। জানা গেছে, সিলেট সদর উপজেলার ৭৫ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৫২ কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ। আট ইউনিয়নের ৭২ ওয়ার্ডের এ উপজেলার মোট ভোটার এক লাখ ৯১ হাজার ২২৮ জন। এর মধ্যে ৯৮ হাজার ৭২৪ জন পুরুষ ও ৯২ হাজার ৫০৪ নারী ভোটার। নয় ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার ৯০ ওয়ার্ডের কানাইঘাট উপজেলায় মোট ভোটকেন্দ্র ৬৭।- এর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের সংখ্যা ৪৫।- এ উপজেলায় মোট ভোটার ১ লাখ ৪৬ হাজার ৭৫২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৭১ হাজার ১০৯জন ও নারী ভোটার ৭৫ হাজার ৬৪৩ জন।
শাল্লা উপজেলার মোট ভোটার ৬৩ হাজার ১৯৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৩১ হাজার ৭১০ ও নারী ৩১ হাজার ৪৮৬ জন। চার ইউনিয়ন ও ৩৬ ওয়ার্ডের এ উপজেলার ৩৬টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ২২টি ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ।
১০ ইউনিয়ন ও ৯০ ওয়ার্ডের ধর্মপাশা উপজেলার ৬৪ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের সংখ্যা ৩৫।- মোট ভোটার এক লাখ ৩৬ হাজার ৭২৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৬৮ হাজার ৮৩১ জন ও ৬৭ হাজার ৮৯৩ জন হলেন নারী ভোটার।
মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় ১০৩ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৩৮টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। ১২টি ইউনিয়ন ও ৩১টি পৌরসভার একশ ১৭ ওয়ার্ডের এ উপজেলার মোট ভোটার ২ লাখ ৮ হাজার ২৬২ জন। এর মধ্যে ১ লাখ পাঁচ হাজার ৫৫ জন পুরুষ ও এক লাখ তিন হাজার ৭ জন নারী ভোটার।
৯ ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার ৮১ ওয়ার্ডের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় মোট ভোটার এক লাখ ৯২ হাজার ৭৬২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৯৬ হাজার ৮৪৮ জন ও নারী ভোটার ৯৫ হাজার ৯১৪ জন। এ উপজেলায় ৭৯ ভোটকেন্দ্রের মধ্যে নয়টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। কমলগঞ্জ উপজেলায় ৭০টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ২৯টি ভোটকেন্দ্র ঝূঁকিপূর্ণ। নয় ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার ৯০ ওয়ার্ডের এ উপজেলায় মোট ভোটার এক লাখ ৫৭ হাজার দুইশ ৩৭ জন। এর মধ্যে ৭৭ হাজার ৭৫৬ জন পুরুষ ও নারী ভোটার ৭৯ হাজার ৪৮১ জন।
হবিগঞ্জ থানা ও শায়েস্তাগঞ্জ থানা নিয়ে গঠিত হবিগঞ্জ সদর উপজেলার মোট ভোটকেন্দ্র ৮৯টি। এর মধ্যে ৪১টি কেন্দ্র ঝূঁকিপূর্ণ। ১০টি ইউনিয়ন ও দুই পৌরসভার ৯৯টি ওয়ার্ডের মোট ভোটার এক লাখ ৯৭ হাজার ৪৫৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৯৯ হাজার চার জন ও ৯৮ হাজার ৪৫৫ জন নারী ভোটার। ১৩ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার একশ ২৬ ওয়ার্ডের নবীগঞ্জ উপজেলার মোট ভোটার ২ লাখ ৭ হাজার ১৪২ জন। এর মধ্যে এক লাখ সাতশ ৩৬ জন পুরুষ ও এক লাখ ৬ হাজার ৪০৬ জন নারী ভোটার। এ উপজেলার একশ ১৫টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৬৩টি ভোটকেন্দ্র ঝূঁকিপূর্ণ। লাখাই উপজেলার ৩৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ২৪টি কেন্দ্র ঝূঁকিপূর্ণ। ছয়টি ইউনিয়নের ৫৪ ওয়ার্ডের এ উপজেলায় মোট ভোটার ৯০ হাজার ৭৬৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪৪ হাজার ৯২৭ জন ও নারী ভোটার ৪৫ হাজার ৮৩৬ জন। পাঁচ ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার ৫৪ ওয়ার্ডের আজমিরীগঞ্জ উপজেলার ৪৪টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ঝূঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের সংখ্যা ১৪টি। মোট ভোটার ৭০ হাজার ৫১৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৩৫ হাজার ৩৮১ জন ও ৩৫ হাজার ১২৯ জন নারী ভোটার।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close