কানাইঘাটে আনুষ্ঠানিক প্রচারনায় ব্যস্ত দুই জোটের একাধিক প্রার্থী

news-picনির্বাচন কমিশন কর্তৃক উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম দফা তফসিল ঘোষণার পর থেকে এখানকার সম্ভাব্য প্রার্থীরা ভোটযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে শুরু করলেও গত বৃহস্পতিবার ৪র্থ দফা তফসীলে সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার নাম ঘোষণা করার সাথে সাথে সর্বশক্তি নিয়ে ভোটারদের মাঝে ঝাপিয়ে পড়েছেন প্রার্থীরা। ইতিমধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারনায় নেমে পড়েছেন তারা। ফলে ডজন খানেক চেয়াম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পদচারনায় সরগরম হয়ে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ। পাড়া মহল্লা, হোটেল- রেস্তোরা, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, হাট বাজারসহ সর্বত্র বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী হাওয়া।
গত ৫ জানুয়ারী হয়ে যাওয়া জাতীয় নির্বাচনে দেশের ১৫৩ টি নির্বাচনী আসনের ন্যায় পছন্দের প্রার্থী নির্বাচন করার সুযোগ না পাওয়ার আক্ষেপ এ জনপদের ভোটারদের মাঝে পরিলক্ষিত হলেও স্থানীয় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যেন কোনো রকমের আগ্রহের কমতি নেই তাদের। নিজের মূল্যবান ভোটটি কার বাক্সে রাখবেন এ নিয়ে চলছে নানা হিসাব নিকাশ ও যাচাই বাছাই। অনেকে আবার নিজের পছন্দের প্রার্থীদের পক্ষে ভোট টানতে প্রার্থীর পাশে থেকে নির্বাচনী মাঠে চষে বেড়াচ্ছেন।
এদিকে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে একক প্রার্থী দিতে এবং নিজ দলের প্রার্থীকে জিতিয়ে আনতে প্রধান দুই রাজনৈতিক জোটের হাই কমান্ড থেকে কঠোর নির্দেশনা থাকলেও কানাইঘাটে আ’লীগ, বিএনপি ও জামায়াতের একাধিক প্রার্থী মাঠে তৎপর রয়েছেন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আশিক উদ্দিন চৌধুরী, চট্রগাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা ও সিলেট মহানগর জামায়াত নেতা মুহাম্মদ আব্দুর রহীম, আ’লীগ নেতা ও বিশিষ্ট শিল্পপতি নিজাম উদ্দিন আল-মিজান, সিলেট জেলা আ’লীগের উপ প্রচার সম্পাদক মস্তাক আহমদ পলাশ, জেলা আ’লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক এমাদ উদ্দিন মানিক, সিলেট জেলা উত্তর জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমীর ফয়জুল্লাহ বাহার, প্রবীন আ’লীগ নেতা জমির উদ্দিন প্রধান, কানাইঘাট উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম আহবায়ক লুকমান আহমদ, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা মামুন রশিদ মামুন, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ইকবাল ও জমিয়ত নেতা মাও. মুফতি ইবাদুর রহমান। ভাইস চেয়রম্যান পদে রয়েছেন কানাইঘাট পৌর আ’লীগের আহবায়ক জামাল উদ্দিন, বিএনপি নেতা সাংবাদিক শাহজাহান সেলিম বুলবুল, যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম রানা, বিএনপি নেতা আজিজুল আম্বিয়া ও জমিয়ত নেতা মাও আলিম উদ্দিন। ভাইস চেয়ারম্যান ( মহিলা) পদে রয়েছেন মহিলা জামায়াত কর্মী মরিয়ম বেগম ও প্রবাতি রানি দাস।
সরজমিন ঘুরে ও সাধারণ ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বিগত দিনে এখানকার স্থানীয় নির্বাচনগুলোতে জাতীয় নির্বাচনের মত তেমন রাজনৈতিক প্রভাব পড়েনি। আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও এর ব্যত্যয় ঘটবেনা। ফলে প্রার্থী বিজয়ী হওয়ার ক্ষেত্রে আঞ্চলিকতাই বড় ফেক্টর হতে পারে। আর এ বিবেচনায় ভোটের হিসাবে দক্ষিণ কানাইঘাটের প্রার্থীরা সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close