প্রাণ হারিয়েছে অডিও বাজার

Music-L20160310083608ডেস্ক রিপোর্ট :: দেশীয় সংগীত ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছিল ক্যাসেট মাধ্যমটি। ২০০৪ সালের পর থেকে সে স্থান নিতে থাকে সিডি। সিডি-ভিসিডি-ডিভিডির প্রভাবে ক্যাসেট হারিয়ে যায় মাত্র দু’বছরেই। তখন পুরো বাজার চলে আসে সিডির দখলে। পরবর্তীতে পাইরেসি এবং ইন্টারনেটে ফ্রি গান ডাউনলোডের ফলে পুরোপুরি ধ্বংসের মুখে পড়েছে অডিও সিডির বাজার।

এক সময় অডিও সিডি কেনার জন্য খুচরা দোকানগুলোতে আগাম বুকিং দিতেও দেখা গেছে। অথচ বর্তমানে অডিও সিডি প্রকাশের সংখ্যাই প্রায় শূন্যের কোঠায়!

এখন গান প্রকাশের ধরনও অনেকটা পাল্টে গেছে। অধিকাংশ শিল্পীই অনলাইনে গান প্রকাশ করছেন। আর সিডিতে প্রকাশ পাচ্ছে কেবল চলচ্চিত্রের গান। তবে চলচ্চিত্রের গানও আজকাল ইউটিউবে প্রকাশ হচ্ছে। সেখান থেকেই শ্রোতারা শুনছেন প্রিয় তারকা শিল্পীদের গান।

তবুও ইদানীংকালের অডিও সিডির বাজারটা বাঁচিয়ে রেখেছে ছবির গানই। এর বাইরে সব মিলিয়ে অডিও বাজারে শেষই হয়ে গেছে বলা চলে। চোখের দৃষ্টিতে যেটুকু দেখতে পারা যাচ্ছে সেটা আসলে কোমায় থাকা অবস্থাি।

সংগীত শিল্পীদের মতে, একটা সময় উৎসবগুলো ঘিরে নতুন অ্যালবাম প্রকাশের হিড়িক পড়ে যেত। দুই ঈদ, পহেলা বৈশাখ, ভালোবাসা দিবস, শারদীয় উৎসব, ইংরেজি নববর্ষসহ নানা উৎসবে রাজধানীর বিভিন্ন সিডি অ্যালবামি দেদারছে বিক্রি হতো। শ্রোতাদেরও থাকতো ব্যাপক আগ্রহ। কিন্তু ক্রমে ক্রমে সেই গৌরব হারিয়েছে ইন্ডাস্ট্রি।

এ বিষয়ে মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিজ ওনার এসোসিয়েশনের জয়েন্ট সেক্রেটারি জহরুল ইসলাম সোহেল বলেন, ‘প্রযুক্তির কারণে আমাদের দেশে শ্রোতারা সহজেই সংগীত বিষয়টিকে হাতের নাগালে পাওয়ায় এ ক্ষেত্রটি প্রায় হারিয়ে গেছে। অথচ বাইরের দেশগুলোতে ইন্টারনেটে যেনো ফ্রি-তে গান ডাউনলোড না করা যায় এ নিয়ে অনেক আইন এবং তার প্রয়োগও রয়েছে।’

সংগীত সংশ্লিষ্টরা বলেন, ইন্টারনেটে যদি ফ্রি-তে গান না পাওয়া যায় তাহলে মানুষ আবারও সিডি কেনার জায়গায় ফিরবে। তাদের মতে, অডিও সিডির বাজার ধ্বংস হয়ে গেছে প্রায়। ব্যাপারটা চরম দুঃখজনক। অডিও অ্যালবাম একজন শিল্পীর অনেক বড় সম্পদ।

তবে অনেক সংগীতশিল্পী ও সংশ্লিষ্টরা দাবি করছেন মানহীন গানও অডিও বাজার ধ্বংসের জন্য দায়ী। এখন আর আগের মতো প্রাণ নিয়ে গান তৈরি হচ্ছে না। যার ফলে শ্রোতারা অডিও সিডি কিনে গান শোনার আগ্রহ বোধ করেন না।

পাশাপাশি ডিজিটাল সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে শ্রোতারা এখন গান শোনার চেয়ে তা ভিডিওতে দেখতেই বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। তাই শিল্পী ও সংগীত প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো ঝুঁকছে মিউজিক ভিডিও নির্মাণের দিকে। নতুন শিল্পীতো বটেই, আজকাল প্রবীন শিল্পীদের মধ্যেই মিউজিক ভিডিও নির্মাণের প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সেগুলোর প্রচার ও প্রসার হচ্ছে ইউটিউব, ফেসবুক এবং টেলিভিশনে। তাই গুরুত্ব হারিয়েছে অডিও বাজার।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close