গোয়াইনঘাটে জলমহাল নিয়ে সংঘর্ষ, ৪জন গুলিবিদ্ধসহ আহত ১০

shayestagonj fight

ফাইল ফটো

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি : সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার থুবরী শিলচান্দ জলমহাল নিয়ে স্থানীয় মনাফ ও তীর্থরঞ্জনগংদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ৪জন গুলিবিদ্ধসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন,র্তথরঞ্জণের পক্ষে হেলাল উদ্দিন, সিরাজ উদ্দিন ও বোরহান উদ্দিন , মনাফ গংদের পক্ষে সুহেল ,আমীরুল ,আজীজুল,সালেহ এরা গুলিবিদ্ধ হয় এবং আবুতালীবের স্ত্রী আহত হন। সংঘের্ষর ঘটনা নিয়ে উভয় পক্ষ পাল্টাপাল্টি বক্তব্য প্রদান করছেন।
জলমহালটির বৈধ ইজারাদার মানাউরা প্রভাতি মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি এর সাধারণ সম্পাদক তীর্থ রঞ্জনের অভিযোগ, গত ১৫দিন থেকে থুবরী শিলচান্দ জলমহালটি স্থানীয় মনাফ গংরা জোরপূর্বক দখল করে রেখেছিল । তার আবেদনের প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সালাহ উদ্দিনের নেতৃত্বে থুবরী শিলচান্দ জলমহালে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান চলাকালে মনাফ গংরা দখল ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। কিন্তু উচ্ছেদ অভিযানের ২ঘন্টা পর মনাফ গংরা দেশীয় অস্ত্র স্বস্ত্র নিয়ে পুনরায় জলমহালটি দখল করে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে হতাহতের ঘটনা ঘটে।
এদিকে মনাফ গংদের অভিযোগ, থুবরী শিলচান জলমহালের ১০৮ দাগ মহালসামীল যা গ্রামবাসী প্রতি বছর ভোগ দখল করে। গত কয়েক দিন থেকে তারা এই ১০৮ দাগে ফিসিং কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তীর্থরঞ্জনগংরা জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ করে তাদের বিল জবর দখল করা হচ্ছে। এর প্রেক্ষিতে গত কাল দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও গোয়াইনঘাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সালাহ উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনা স্থলে পৌছে তাদের জলমহালের দখল বুঝিয়ে দেন। গত কাল বিকাল ৪.৩০মিনিটের সময় স্থানী গ্রামবাসী জলমহালের মহালসামীলের ১০৮ দাগে অবস্থান করলে ছাত্রলীগ নেতা দেলওয়ার ও বিএনপি নেতা আনোয়ারের নেতৃত্বে গ্রামবাসীর উপর গুলিবর্ষণ করে। এতে সুহেল ,আমীরুল ,আজীজুল,তোয়াকুল কলেজ ছাত্র সালেহ গুলিবিদ্ধ হয়।
আহতদের মধ্যে আমীরুল ,হেলাল উদ্দিন, সিরাজ উদ্দিন ও বোরহান উদ্দিনের অবস্থা আশংকাজনক। তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সহ একাধিক কিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।
নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও গোয়াইনঘাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সালাহ উদ্দিন বলেন, ‘থুবরী শিলচান্দ জলমহালটি মানাউরা প্রভাতি মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি লিমিটেড বৈধভাবে সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ইজারা গ্রহণ করে। কিন্তু স্থানীয় আব্দুল মনাফ নামের লোক কয়েক শতাধিক জনগণ নিয়ে উক্ত মহলটি জোরপূর্বক দখল করে রেখেছিল। আজকে অভিযান পরিচালনা করে জলমহালটি অবৈধ দখল উচ্ছেদ করা হয়েছে।’

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close