গোলাপগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনী সংবাদে আনন্দ মিছিল ও সভা

S1050487 copyগোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ দেশের  ঐতিহ্যবাহী জনপদ গোলাপগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনী সংবাদে সর্ব মহলে আনন্দ  পরিলক্ষিত হয়েছে। গোলাপগঞ্জ  পৌর মেয়র ও তার আস্থাভাজন কাউন্সিলর এবং কয়েকজন সহযোগী  নির্বাচনকে বানচাল করার লক্ষ্যে দীর্ঘদিন ধরে ষড়যন্ত্র করে আসছিল। সম্প্রতি পৌর মেয়রের লালিতবাহীনির এক জনৈক ব্যক্তি পৌরসভার সীমানা সংক্রান্ত বিষয়ে হাইকোটে একটি মামলা দায়ের করলে নির্বাচন হবে কি হবে না এ নিয়ে গত সোমবার পর্যন্ত অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছিল। বহু প্রতিক্ষিত পৌর নির্বাচন বিলম্বিত করতে একটি মহল মামলা করার বিষয়টি পৌরবাসীসহ গোলাপগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করে। অপরদিকে ষড়যন্ত্রকারীরা গোলাপগঞ্জ বাজারের বিভিন্ন স্থানে মিষ্টি বিতরণ করে ঘোষণা দেয় নির্বাচন হবে না। এতে নির্বাচন প্রত্যাশীরা হতাশ হয়ে পড়েন। গতকাল মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশন তপশীল ঘোষনার পূর্বেই জানাজানি হয়ে যায় গোলাপগঞ্জ পৌর সভার নির্বাচন হচ্ছে। তপশীলের অর্ন্তভুক্ত ২৩৪টি পৌরসভার মধ্যে ১৮৮ নং ক্রমিকে গোলাপগঞ্জের নাম রয়েছে এমন সংবাদ বিভিন্ন অনলাইন প্রত্রিকার মাধ্যমে প্রচারিত হতে থাকলে সর্বস্তরের জনতার মধ্যে আনন্দের বন্যা দেখা দেয়। বেলা আড়াইটায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার আনুষ্ঠানিক ভাবে তপশীল ঘোষনা করলে তাৎক্ষণিক  ভাবে উপজেলা সদরে নির্বাচন হচ্ছে মর্মে নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে মাইক দিয়ে প্রচার করে আনন্দ মিছিল ও পাল্টা মিষ্টি বিতরণের আয়োজন করা হয়।  আসরের নামাজের পর গোলাপগঞ্জ চৌমুহনীস্থ এ ওয়াহাব প্লাজার সম্মূখ থেকে আনন্দ মিছিল বের করা হলে উপজেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক গুলো পদক্ষিণ করে  মধ্যবাজার চৌমুহনীতে এক পথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। গোলাপগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির সেক্রেটারী সাংবাদিক আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে ও তরুণ সমাজসেবী ছালেহ আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আনন্দ মিছিল পরবর্তী পথ সভায় বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সাংবাদিক শহিদুর রহমান সুহেদ, সাবেক আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ, সাংবাদিক মহবুবুর রহমান চৌধুরী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সিনিয়র সহ-সভাপতি ফজলুল আলম, গোলাপগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির সদস্য আব্দুছ ছামাদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সৈয়দ জিল্লুর রহমান, রণকেলী মহিউসুন্নাহ মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা আব্দুল জলিল, গোলাপগঞ্জ বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শামিম আহমদ, সমবায়ী ব্যক্তিত্ব নুরুল ইসলাম, মামুনুর রশিদ মামুন, তরুণ সমাজ সেবী মুজিবুর রহমান মিজু, শফিউল্লাহ প্রমুখ। সর্বশেষ ২০০৮ সালের ৪ আগষ্ট গোলাপগঞ্জ পৌরসভার ২য় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার দীর্ঘ প্রায় সাড়ে ৭ বছর পর নির্বাচনী হাওয়া পৌর শহরের সর্বত্র বইতে শুরু করেছে। পৌর সভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পৌর এলাকার বাহিরেও সাধারণ মানুষের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close