এসআইইউ ইংরেজি বিভাগের রাধারমণ স্মরণোৎসব ‘ভ্রমর কইও গিয়া’

রাধারমণ সঙ্গীত সাধনার মধ্য দিয়ে সহজ সরল জীবন অনুভবকে বাঙময় করে তুলেছেন 

Radha Raman SIU pic-22-11-2015 (2)সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের আয়োজনে মরমি সঙ্গীত সাধক রাধারমণ দত্ত স্মরণে আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেছেন, রাধারমণ সিলেট তথা গোটা বাঙালী জাতি স্বত্তার এক উজ্জল বাতিঘর। সহজ সরল জীবন অনুভবকে তিনি বাঙময় করে তুলেছেন সঙ্গীত সাধনার মধ্যদিয়ে। রাধারমণের গান প্রাত্যহিক জীবন সংলগ্ন অনুভূতিরই বহিপ্রকাশ। বক্তারা বলেন, রাধারমণের গানে তত্ত্বের আবরণ থাকলেও তার গান এমনভাবে সেখানকার বিষয় ধারণ করে, যে-কারও মনে হতে পারে তিনি অন্যের, বিশেষ করে রাধা/নারীভাবÑবাস্তব অর্থে তিনি নিজেও বুঝি যাপন করে চলেন। তাই তার গানে রাধাকে দেখা যায় কখনো বিদ্রোহী, কখনো বিরহী, আবার কখনো অতিশয় সমর্পিতপ্রাণা।
গতকাল রোববার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলরুমে ‘ভ্রমর কইও গিয়া’ শীর্ষক এ আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সুশান্ত কুমার দাস। মুখ্য আলোচক ছিলেন লেখক, গবেষক ড. মোস্তাক আহমাদ দীন। সম্মানিত আলোচক ছিলেন মানবিক অনুষদের ডিন প্রফেসর সৈয়দ মুয়ীজুর রহমান ও কবি, লেখক শুভেন্দু ইমাম। ইংরেজি বিভাগের চেয়ারম্যান প্রধান মাহবুব ইবনে সিরাজের সভাপতিত্বে এবং চৌধুরী সাইমুন আফরোজীর প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, ইংরেজি বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক ও সহকারী প্রক্টর প্রণবকান্তি দেব। রাধারমণের জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনায় প্রধান অতিথি ড. সুশান্ত কুমার দাস বলেন, মধ্যবিত্ত সমাজ পেরিয়ে অন্য সমাজের প্রান্তে পৌঁছনোর শক্তি রাধারমণের গানের ছিল। কারণ দেহ-মনে তিনি ছিলেন সেই প্রান্তের বাসিন্দা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের রাধারমণের গানের তত্ব ও তথ্য যথাযথভাবে অনুশীলনের আহ্বান জানান। মুখ্য আলোচক ড. মোস্তাক আহমাদ দীন বলেন, রাধারমণের গানে বঞ্চনার চিত্র উঠে এসেছে নানাভাবে। কখনো একই গানে একই চরিত্রের একাধিক প্রবণতার পাশাপাশি সেখানে পক্ষ-বিপক্ষ চরিত্রের চরিত্রেরও সমাবেশ ঘটেছে এবং তাতে তার গানগুলো হয়েছে অন্য পদকারদের থেকে স্বতন্ত্র ও নাটকময়। জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে শুরু হওয়া আলোচনা সভার শুরুতে অতিথিবৃন্দকে ইংরেজি বিভাগের পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীরা ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়। আলোচনা শেষে অতিথিবৃন্দের হাতে ইংরেজি বিভাগের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা স্মারক তুলে দেয়া হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মনোজ্ঞ পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় রাধারমণের কালজয়ি গানের অনুষ্ঠান। ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী সঙ্গীতা দেবনাথ ও মৌসুমি বিশ্বাসের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন বন্যা রায়, স্বস্তি তালুকদার, রাজু তালুকদার, আওয়াল আহমদ সোহান, পলা দাস জুঁই, সামিনা ভুইয়া অর্না। এছাড়া সমবেত ধামাইলে ইংরেজিসহ অন্যান্য বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close