আজ বাংলাদেশ আবারও দিল্লীর দাসত্বের অধীনে চলে এসেছে : খোকা

বক্তব্য রাখছেন সাদেক হোসেন খোকা। ছবি- এনা।

বক্তব্য রাখছেন সাদেক হোসেন খোকা। ছবি- এনা।

নিউইয়র্ক থেকে এনা: মজলুম জননেতা মরহুম মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানি ছিলেন অতি সাধরণ একজন মানুষ। যিনি গরীব ও মেহনতি মানুষের জন্য তার জীবদ্দশায় লড়াই সংগ্রাম করে গেছেন। একই ভাবে স্বাধীকার আন্দোলনে তার মতো নেতার উপমহাদেশে একজনও ছিলেন না। যার বলিষ্ঠ্য নেতৃত্ব ও সাহস এবং সমর্থনেই পূর্ব বাংলার মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন।
গত ১৭ নভেম্বর (নিউইয়র্ক সময়) রাতে জ্যাকসন হাইটস হাটবাজার হাটবাজার রেষ্টুরেন্ট মিলনায়তনে মওলানা ভাসানির ৩৯তম মৃত্যুবার্ষিকীর আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন নিউইয়র্কে অবস্থানরত বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী ও সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা। ভাসানি স্মৃতি পরিষদ নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র শাখা আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে খোকা আরো বলেন, আজকে যে ভাবে বাংলাদেশ চলছে এমন বাংলাদেশ চাননি তিনি। মওলানা ভাসানি আদর্শে বাংলাদেশ পরিচালিত হলে ধনী-গরীবের কোন ব্যবধান থাকতো না দেশে।
তিনি আরো বলেন, মওলানা ভাসানি ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনে জড়িয়ে পাকিস্তান সৃষ্টির পেছনে ভূমিকা রেখে কিছু দিনের মধ্যেই বুঝেছিলেন মুসলিম লীগ দিয়ে বাংলা জনগণের অধিকার রক্ষা হবে না তখনই আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠন করেছিলেন, পরে তা থেকেই আওয়ামী লীগের জন্ম হয়। প্রকৃতপক্ষে আওয়ামী লীগের জন্মদাতা মওলানা ভাসানি। কিন্তু আওয়ামী তা স্বীকার করে না। আবার ৭০-এর নির্বাচন থেকে ন্যাপ ভাষানীকে দূরে রেখে আওয়ামী লীগকে নিরঙ্কুশ সংখ্যা গরিষ্ঠতা অর্জনের পথ তৈরী করে দিয়ে স্বাধীন হবার পথ রচনাও করেছেন তিনি। খোকা আরো বলেন, পিন্ডির দাসত্ব থেকে মুক্তির পর দিল্লিীর দাসত্বে যাতে বাধা না পড়ে বাংলাদেশ সেই রাজনীতিই করে গিয়েছেন মওলানা ভাসানি। আজ বাংলাদেশ আবারও দিল্লীর দাসত্বের অধীনে চলে এসেছে। মওলানা ভাসানির আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে দিল্লীর শাসন থেকে মুক্ত হবার প্রতিজ্ঞা নেবার সময় এসেছে। আর তার মধ্যে দিয়ে মওলানা ভাসানির প্রতি সঠিক শ্রদ্ধা জ্ঞাপন হবে।
সাদেক হোসেন খোকা বলেন, দেশের বর্তমান এই ক্রান্তিকালে ভাসানির মতো সাহসি একজন নেতার দরকার ছিলো। যিনি শাসকদের মুখের ওপর ন্যায়কথা বলতে কখনো পিছনে হটেননি।
নাজমুল আলম শ্যামলের সঞ্চালনায় ও বাংলাদেশ সাবেক সোসাইটির সহ-সভাপতি আজহারুল হক মিলনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, আতিকুর রহমান শালু, আওলাদ হোসেন খান, আলী ইমাম শিকদার, ওয়াসি চৌধুরী’সহ ভাসানি স্মৃতি পরিষদ নিউইয়র্কের নেতারা।
অনুষ্ঠানে মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানির আতœার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close