দৃষ্টি হারানোর শংকায় প্রিয়া আমান

Priya-Aman-acts-in-bijoyini-filmসুরমা টাইমস ডেস্কঃ ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়া আমান। বড়পর্দাতেও অভিনয় করেছেন তিনি। সম্ভাবনাময়ী এ অভিনেত্রী হঠাৎ এক দুর্ঘটনায় দৃষ্টি শক্তি হারাতে বসেছেন। তিনি জানিয়েছেন, দুটি চোখের কর্ণিয়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তার। ফলে তিনি এখন চোখে কিছু দেখতে পারছেন না।
প্রিয়া আমান আরো জানান, গত ৩০ সেপ্টেম্বর কারওয়ান বাজারের ইউটিসি ভবনের এক শ্যুটিং হাউজে ইয়েস ম্যাডাম নো স্যার শিরোনামের একটি ধারাবাহিক নাটকের শ্যুটিংয়ে অংশ নেন। নাটকটির একটি চরিত্রের প্রয়োজনে তিনি চোখে আলগা লেন্স ব্যবহার করেন। শ্যুটিং শেষে লেন্স খুলে ফেলার পরপরই তিনি চোখে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভব করেন।
তিনি বলেন, ‘লেন্স খোলার পর চোখে অসহ্য যন্ত্রণা অনুভব করি। এরপর থেকে আমি চোখে কিছু দেখতে পারছি না।’
সে সময় প্রিয়ার চিৎকারে রাস্তায় দাঁড়ানো পুলিশ এগিয়ে আসে। চোখে ব্যথার তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, সেখানেই জ্ঞান হারান। পরে পুলিশ সদস্যরা তাকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিলে যান। সেখান থেকে তাকে একটি চক্ষু হাসপাতালে নেওয়া হয়। চোখের চিকিৎসকরা চিকিৎসা দেওয়া শেষে তাকে জানান, দুটি চোখের কর্ণিয়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মোবাইল ফোনে এ তথ্যগুলো জানানোর সময় প্রিয়া আমান কান্নায় ভেঙে পড়েন।
তিনি কাঁদতে কাঁদতে বলেন, ‘আমি আবার সবকিছু দেখতে চাই। চোখ নষ্ট হয়ে গেলে আমার কী হবে? কীভাবে আমি দেখব? আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন।’
চিকিৎসকরা ধারণা করছেন, যে লেন্সটি চোখে পরেছিলেন, সেটি ছিল মেয়াদ উত্তীর্ণ। এ কারণে লেন্সের রং চোখের ভেতরে ছড়িয়ে পড়ে কর্ণিয়া ক্ষতিগ্রস্ত করেছে।
কায়সার আহম্মেদের ইয়েস ম্যাডাম নো স্যার ধারাবাহিক নাটকের শ্যুটিংয়ের জন্য ৩০ সেপ্টেম্বর ফার্মগেট থেকে প্রিয়া আমান নিজে চোখে ব্যবহারের জন্য লেন্সটি কিনে পরেন।
চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় কয়েকটি নাটকের শ্যুটিংয়ে অংশ নিতে পারেননি তিনি। এ জন্য কয়েকজন নাট্য পরিচালক প্রিয়াকে ভুল বুঝছেন বলেও রাইজিংবিডিকে জানান।
এ প্রসঙ্গে প্রিয়া বলেন, ‘খুব খারাপ লাগছে, যাদের সঙ্গে আমি কাজ করেছি, তারা আমাকে ভুল বুঝছেন। আমি নাকি মিথ্যে কথা বলছি। আমার নাকি কিছুই হয়নি। ডেট দিয়ে অন্য নাটকে কাজ করছি।’
এবারের ঈদে প্রিয়া আমান অভিনীত ছয়টি নাটক বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হয়েছে। এগুলো হলো মোহন খানের মেঘ পাখি একা, অঞ্জন আইচ পরিচালিত সাধারণের দুঃস্বপ্ন, পৃথুরাজ পরিচালিত অনুরণন, শাহীন সরকার পরিচালিত ভালোবেসে যদি সুখ নাহি, মিনহাজ অভি পরিচালিত চন্দ্রমল্লিকার বনে, অন্তু আজাদের আহ্বান।
বর্ষিয়াণ অভিনেতা সোহেল রানার হাত ধরে চলচ্চিত্রে পা রাখেন প্রিয়া আমান। অদৃশ্য শত্রু সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক তার। এ সিনেমায় জায়েদ খান ও নবাগত মাশরুর পারভেজের বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি। এরপর দ্বিতীয়বারের মতো বড় পর্দায় অভিনয় করছেন বিজয়িনী শিরোনামের সিনেমায়। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন শারমীন সুলতানা শর্মী। এতে অভিনেতা অমিত হাসানের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করছেন তিনি। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে অনুদানের এ সিনেমাটির চিত্রনাট্য লিখেছেন পরিচালক নিজেই।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close