কিবরিয়া হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

shah sm kibriaসুরমা টাইমস ডেস্কঃ সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে। বুধবার নির্ধারিত তারিখে সিলেট বিভাগীয় দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে চাঞ্চল্যকর ওই মামলার স্বাক্ষ্যগ্রহণ শুরু করেন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মকবুল আহসান। সকাল ১১টা থেকে দুপুর দেড়টা টা পর্যন্ত আড়াইঘন্টাব্যাপী মামলার বাদি হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ও হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ খানের স্বাক্ষ্য গ্রহন করা হয়। আলোচিত এ মামলায় ১৭১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হবে। আগামী ২১ ও ২২ অক্টোবর মামলার পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করেছেন আদালত।
গত ১৩ সেপ্টেম্বর সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, সিলেটের সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ ৩২ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।
কিশোর কুমার কর জানান, আসামিদের মধ্যে গ্রেপ্তার ১৪ জনের মধ্যে সিলেটের বরখাস্ত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী অসুস্থতার কারনে আদালতে উপস্থিত হতে পারেননি। তবে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ গ্রেপ্তার ১৩ আসামী ও জামিনে থাকা আটজনের সবাই উপস্থিতিছিলেন।
২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জের বৈদ্যের বাজারে জনসভায় গ্রেনেড হামলায় আওয়ামী লীগ নেতা শাহ এএমএস কিবরিয়াসহ পাঁচজন নিহত হন। ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকারের সময় অর্থমন্ত্রী ছিলেন কিবরিয়া।
হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল মজিদ খান ওই রাতেই হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে দুটি মামলা দায়ের করেন।
তিন দফা তদস্তের পর এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির সিলেট অঞ্চলের সহকারী পুলিশ সুপার মেহেরুন নেছা পারুল ২০১৪ সালের ২১ ডিসেম্বর আরিফুল, গউছ এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীসহ ১১ জনের নাম যোগ করে মোট ৩২ জনের বিরুদ্ধে সম্পূরক অভিযোগপত্র দেন।
হবিগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ মো. আতাবুল্লাহ মামলাটি বিচারের জন্য গত ১১ জুন সিলেট দ্রæত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠিয়ে দেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close