ছাত্রলীগের দুটি পদের জন্য ১০৬টি বায়োডাটা নিয়ে গেলেন সভাপতি

sylhet_mohanagar_chatroleague08-07-2015সুরমা টাইমস ডেস্কঃ সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে গত শনিবার। পূর্বের সিডিউল মতো সম্মেলন নগরীর সোলেমান হলে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিলো। এদিন কমিটি ঘোষণার জন্য উদগ্রীব ছিলেন নেতারা। কিন্তু সময় স্বল্পতার কারণে ছাত্রলীগ সভাপতি সহ অতিথিরা বেলা দুইটার দিকে বিমানে ঢাকায় ফিরে যান। তবে, যাওয়ার সময় মাত্র দুটি পদের জন্য ১০৬ নেতার বায়োডাটা নিয়ে গেছেন ছাত্রলীগ সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ। এখন ১০৬টি সিভি যাচাই-বাছাইয়ের পর দুটি নাম ঘোষণা করবেন তিনি। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিল আগামী ২৫শে জুলাই। এই সময়ের আগেই গোটা দেশে ছাত্রলীগ বেশ কয়েকটি শাখা ইউনিট গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করে। সেই হিসেবে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি পুনর্গঠনের কাজ শুরু করা হয়। সেই লক্ষ্যে গেল শনিবার সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ সূত্র জানিয়েছে, সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার আগে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশীদ ২৭শে জুন শহীদ সোলেমান হলে বর্ধিত সভা করে। ওই বর্ধিত সভায় কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থীদের বায়োডাটা জমা দেন। সভায় উপস্থিত হয়ে সিলেট ছাত্রলীগের একাধিক গ্রুপের নেতারা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থিতা ঘোষণা করে সিভি জমা দেন।
তবে, শনিবার কাউন্সিলের মাধ্যমে কমিটি ঘোষণার কথা ছিলো। কিন্তু আগের রাতে কাউন্সিল স্থগিত করা হয়েছে। এখন ঢাকা থেকেই কমিটির নাম ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন সিলেটের নেতারা। তারা জানান, কাউন্সিল হলেই অপ্রীতিকর ঘটনার সম্ভাবনা ছিলো। সময় সংকুলান নয়, সংঘর্ষ এড়াতেই কাউন্সিলর করা হয়নি। সংঘর্ষের প্রস্তুতি ছিলো যে সেটির প্রমাণ পাওয়া যায় সম্মেলনের দিনই। ওই দিন সম্মেলনস্থল নগরীর শহীদ মিনার থেকে ধারালো অস্ত্র সহ এক ছাত্রলীগ কর্মীকে আটক করেছিলো পুলিশ।
সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রাহাত তরফদার জানিয়েছেন, ছাত্রলীগ সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ ও সহ-সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন জমা পড়া ১০৬টি বায়োডাটা নিয়ে চলে গেছেন ঢাকায়। তিনি বলেন, যারাই বায়োডাটা জমা দিতে চেয়েছিলো তাদের প্রত্যেকেই বায়োডাটা জমা দিতে পেরেছেন।
তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক দেশের বাইরে থাকায় এখনই কমিটি ঘোষণা করা যাচ্ছে না। তবে, সপ্তাহ খানেক পর কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানান তিনি। এদিকে, ছাত্রলীগ নেতারা জানিয়েছেন, সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে দুই জনের নাম ঘোষণা করবে কেন্দ্রীয় কমিটি। এরপর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে। কিন্তু দুটি পদের জন্য ১০৬ জন প্রার্থী রয়েছে।
তারা জানান, এই প্রার্থী তালিকায় অনেক চিহ্নিত নেতা রয়েছে। যারা গত ৬ বছরে সিলেটের ক্যাম্পাসগুলোতে রীতিমত আতংক ছড়িয়েছে। সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ কর্মী সুমন খুনের ঘটনায় জড়িত রয়েছেন এমন কয়েকজনও বায়োডাটা জমা দিয়েছেন। তারা ইতিমধ্যে কারাবরণ করেছেন। এর বাইরে ক্যাম্পাসে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয়া ছাড়াও নানা ঘটনায় বিতর্কিত সাবেক কমিটির নেতারাও এবার কমিটিতে ঠাঁই পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন।
পাশাপাশি সিলেট নগরীর মদিনা মার্কেট, বাগবাড়ি, সাগরদিঘীরপাড়, আম্বরখানা, তালতলা, জিন্দাবাজার, দক্ষিণ সুরমা এলাকায় বিতর্কিত ঘটনায় জড়িত অনেক নেতাই বায়োডাটা জমা দিয়েছেন। পাশাপাশি এমসি কলেজ ক্যাম্পাসে নানা ঘটনায় বিতর্কিত ছাত্রলীগ নেতারা দিয়েছেন বায়োডাটা জমা। জমা দেয়া গ্রুপের মধ্যে দর্শন দেউরী, কাশ্মীর, মদিনা মার্কেট, তেলীহাওর সহ কয়েকটি গ্রুপের নেতারা লবিংয়ে এগিয়ে রয়েছেন।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close