নেপালে আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলন শেষে আমেরিকায় ফিরেছেন জুয়েল

Jewel Nepalসুরমা টাইমস ডেস্কঃ হিমালয়ের দেশ নেপালের পর্যটন শহর পোখারায় অনুষ্ঠিত হলো আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলন রিলিজিয়াস ইয়ূথ সার্ভিস ২০১৫। জাতিসংঘের শান্তি বিষয়ক সহযোগী সংস্থা ইউনাইটেড নেশনস ইউনিভার্সাল পিস ফেডারেশন আয়োজিত এ সম্মেলন গত ১০ জুন পোখারায় শুরু হয়ে শেষ হয় ১৬ জুন দেশটির রাজধানী কাঠমন্ডুতে। সম্মেলনে আমেরিকান প্রতিনিধি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন নিউইয়র্ক বসবাসরত বাংলাদেশের কৃতি সন্তান জুয়েল। তিনি এই সম্মেলনে যোগদানের পাশাপাশি নেপালে সাম্প্রতিক ভূমিকম্প ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় দুর্গত মানুষের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেন।
জুয়েল জানান, নেপালে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক যুব সম্মেলনে বিশ্বেও ৩০টি দেশের ৪০জন ছাত্রছাত্রী অংশগ্রহণ করে। বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় তরুণ সমাজের করণীয় নিয়ে সম্মেলনে অংশগ্রহণকারীদের সাথে ব্যাপক মতবিনিময় করেন তিনি। সম্মেলনের শিক্ষামূলক অধিবেশনগুলোতে জুয়েল তার যুক্তি ও মতামত তুলে ধরেন।
সম্মেলনের শেষ দুই দিন ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত কাঠমন্ডুর বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন জুয়েল। এই সময় তার সাথে ছিলেন নেপাল সরকারের মন্ত্রী ইকনাক ডাকাল ও বিভিন্ন পদস্থ কর্মকর্তা। তিনি তাদেরকে নগদ অর্থ, শুকনা খাবার, জামাকাপড়, গৃহস্থালীর সামগ্রীসহ প্রয়োজনীয় ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করন। কাঠমন্ডু ও পোখারায় বিভিন্ন ক্ষতিগ্রস্ত স্কুল পরিদর্শনকালে তিনি ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদেরকে প্রাকৃতিক দুর্যোগ সাহসিকতার সাথে মোকাবেলার জন্য অভিনন্দন জানান এবং ছাত্রছাত্রীদেরকে পড়াশুনায় মনযোগী হওয়ার জন্য উৎসাহিত করেন। তিনি তাদেরকে বিভিন্ন উপহার সামগ্রী প্রদান করেন। কাঠমন্ডুতে তিনি কাঠমন্ডু ভ্যালি ছাড়াও বসন্তপুর, ললিতপুর, বানেপা, পানুউতি, ধর্মে শহরে ত্রাণ বিতরণ করেন। তিনি পোখারায় ফেওয়াতাল লেক শান্তি প্যাগোডা, শারাংকুট বিন্দুবাসিনী মন্দির , পোখারায় জামে মসজিদ প্রদর্শন করেন। সে সময় তার সাথে ছিলেন মন্ত্রী ইকানাথ ডাকাল ও কৃষ্ণপ্রসাদ পারাজুলি,ডিসি,কাস্কিডিভিশন,নেপাল,প্রমূখ।
তার এই কার্যক্রমে নেপাল সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা ভূয়শী প্রশংসা করেন। জুয়েল নেপালের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় থেকে তাকে দেয়া সার্টিফিকে গ্রহণ করেন। উল্লেখ্য, বাংলাদেশী আমেরিকান জুয়েল মিয়া ২০০৭ সালে ইমিগ্রান্ট হয়ে সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন ও পড়াশুনা শুরু করেন। বর্তমানে তিনি নিউইয়র্ক স্টেট ইউনিভার্সিটিতে ব্যাচেলর অব সায়েন্সে অধ্যায়নরত। যেসব ব্যক্তি ও সংগঠন তার নেপাল সফরকে সফল করতে সহযোগিতা করেছেন এবং বিশেষভাবে যেসব সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও কমিউনিটি সংগঠন নেপালে সাম্প্রতিক ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত লোকদের সাহাযার্থে আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেছেন জুয়েল তাদের প্রতি তার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন। এছাড়া প্রবাসের প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার পক্ষ থেকে তার উদ্যোগের প্রতি অব্যাহত সমর্থন করে তাকে উৎসাহিত করায় তিনি সাংবাদিকদের প্রতিও তার কৃতজ্ঞতা জানান।তিনি ইসলামিক কাউন্সিল অব আমেরিকা (মদীনা মসজিদ) কতৃপক্ষের প্রতি আর্থিক সহায়তার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
বাংলাদেশ হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার অমৃতা গ্রামের হাজী দুদা মিয়ার পুত্র জুয়েল নিউইয়র্কের একজন তরুণ সংগঠক।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close