জুনে উন্মুক্ত কাজিরবাজার সেতু : স্থানীয়দের অনুরোধের প্রেক্ষিতে নামকরণ

Obaydul Kader 29-04-2015সুরমা টাইমস রিপোর্টঃ নব নির্মিত সিলেটের কাজির বাজার সেতু আগামী জুন মাসের যে কোন সময়ে প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন সড়ক পরিবহণ ও যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের । বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় সিলেটের কাজির বাজার সেতু নির্মাণ কাজের পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জাবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ১২৪ কোটি টাকা ব্যায়ে কাজীর বাজার সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে
এ বছরের জুন মাসের মধ্যেই সেতুটি যানবাহন ও মানুষের চলাচলের উপযোগী হবে। কাজিরবাজার সেতুর নামকরণে দেওয়ান ফরিদ গাজী কিংবা সামাদ আজাদের নামে হবে কিনা ব্যপারে তিনি বলেন, নামকরণ নিয়ে আমাদের দলীয় কোন ধরণের পরিকল্পনা নেই। সিলেটে উন্নয়ন সমন্বয়ক কমিটি রয়েছে স্থানীয়দের অনুরোধের প্রেক্ষিতে যদি নামকরণের ব্যাপারে কোন দাবী থাকে তবে তা প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা সাপেক্ষে পরবর্তীতে তা বিবেচনা করে দেখা যাবে।
‘কন্স্যার আক্রান্ত’ সিলেট- ভোলাগঞ্জ-কোম্পানীগঞ্জ নির্মাণ কাজের জন্য ৪৪১ কোটি টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন করা হয়েছে এবং খুব শীঘ্রই এর টেন্ডার দিয়ে কাজ শুরু করা হবে বলেও জানান সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
নির্বাচনে অংশ্রগ্রহণ ও বর্জন ২০ দলের সাজানো নাটক এমন মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহণ ও যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বিএনপির নির্বাচন ও অংশ গ্রহণ ও বর্জন এটি রহস্য, সবই ছিল কুড়ি দলের (২০দল) আন্দোলনের ইস্যু বের কারার একটি নাটক। তবে বিএনপির কোন আন্দোলন সফল হবে না বলেও মন্তব্য করে তিনি।তিনি বলেন, যে দল আন্দোলনের জন্য কর্মী পায় না, নির্বাচনের জন্য এজেন্ট পায় না সে দল কি ভাবে আন্দোলন করবে ।
মন্ত্রী বলেন, বিএনপির সিনিয়র নেতা মওদুদ আহমদ মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন সিটি নির্বাচনে ৫ শতাংশ ও ভোট পড়েনি, তিনি সিটি নির্বাচনের বিএনপির প্রাপ্ত ভোটের তথ্য সাংবাদিকদের তুলে ধরে বলেন, বিএনপির ঢাকা উত্তর সিটির বিএনপির মনোনিত প্রার্থী তাবিথ আউয়াল পেয়েছেন ১১ শতাংশ ভোট এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটির বিএনপির মনোনিত প্রাথী মির্জা আব্বাস পেয়েছেন ১৩শতাংশ ভোট এবং চট্টগ্রাম সিটির বিএনপির মনোনিত প্রার্থী মাত্র ২ ঘন্টায় পেয়েছেন ১৭ শতাংশ ভোট । বিএনপি যদি নির্বাচন বর্জন ঘোষণা না করত তাহলে সিটি নির্বাচনের ফলাফল অন্যরক হতে পারত । তিনি বলেন, ঢাকা ২সিটি না হলেও অন্তত চট্টগ্রাম সিটির ফলাফল বিএনপির পক্ষে যেত। বিএনপি একাই ১৫ শতাংশ ভোট পেয়েছে। তিনি সাংবাদিকদের কাছে প্রশ্ন রাখেন এতে কি প্রমাণিত হয় ?

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close