অবরোধে বন্ধ হওয়া ট্রেন চালু হয়নি ৩ মাসেও

smp Policeসুরমা টাইমস ডেস্কঃ তিন মাস আগে বিএনপির ডাকা অবরোধ শুরু হওয়ার পর থেকে বন্ধ হয়ে গেছে সিলেট-ছাতক ট্রেন চলাচল। এর ফলে ভোগান্তি বেড়ে গেছে সিলেট-ছাতকের যাত্রীদের। এ রুটে চলাচলে তাদের গুণতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। পুনরায় কবে ট্রেন চালু হবে তাও বলতে পারছে না সংশ্লিষ্টরা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া বিএনপি-জামায়াতের অবরোধ চলাকালে নিরাপত্তার অজুহাতে বন্ধ করে দেয়া হয় এ রুটের ট্রেন চলাচল। মাঝেমধ্যে সিলেট-ছাতক লাইনে মালবাহী ট্রেন চলাচল করলেও একেবারেই বন্ধ রয়েছে যাত্রীবাহী ট্রেন।
জানা গেছে, সিলেট থেকে ছাতক পর্যন্ত প্রায় ৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ রেলপথটি ১৯৫৬ সালে নির্মাণ করা হয়। এ লাইনে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্ন ট্রেন সার্ভিস চালু ছিল। ট্রেনে প্রায় ৪৫ মিনিটে ছাতক থেকে সিলেট পৌঁছতে পারতেন যাত্রীরা। সিলেট থেকে ছাতক যেতে ট্রেনটি দুটি স্টেশনে (আফজালাবাদ ও খাজাঞ্চীগাঁও) যাত্রা বিরতি দিতো।
ছাতক, আফজালাবাদ ও খাজাঞ্চীগাঁও-এ তিনটি রেলস্টেশনের পাশ্ববর্তী এলাকার বিপুল সংখ্যক যাত্রীর সিলেট নগরীতে যাওয়া-আসার একমাত্র উপায় ছিল এটি।
সূত্র মতে, ১৯৮৫ সাল থেকে ওই রেলপথে মন্দাভাব দেখা দেয়। নির্ধারিত সময়ে ট্রেন চলাচল না করায় যাত্রীরা সময়মতো গন্তব্যে পৌঁছতে পারতেন না। শিল্পনগরী ছাতক থেকে চুনা পাথর, সিমেন্ট, স্লিপার, বালু, বোল্ডার ও ভাঙা পাথর দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হতো এ রেলপথ দিয়ে। বর্তমানে এ লাইনের বেহাল দশা। অকেজো স্লিপার, মেয়াদ উর্ত্তীণ বগি, পর্যাপ্ত পাথরের অভাব এবং যথাসময়ে প্রয়োজনীয় মেরামত না করায় এ রুটে যাত্রীবাহী ও মালবাহী ট্রেনের প্রায়শ লাইনচ্যুতির ঘটনা ঘটে। দেশের বেশীরভাগ পাথর-স্লিপার ছাতক থেকে সরবরাহ হলেও ছাতক রেল সেকশনের রেলপথেরই অনেক স্থানে পাথর নেই।
যাত্রীদের অভিযোগ, এ রুটে যাতায়াতের জন্য দুটি জরাজীর্ণ বগি দেওয়া হতো। ট্রেনের এসব বগিতে নেই বিদ্যুৎ ও পানির সুবিধা, নেই দরজা-জানালাও। এমনকি ট্রেনের সিটগুলোও ভাঙ্গা। বগি ভর্তি থাকে ময়লা আবর্জনায়। এছাড়া যাত্রীবাহী ট্রেনের সাথেজোড়া দেয়া হয় মালবাহী বগি। ফলে বারবার রেল লাইনচ্যুতির ঘটনা ঘটে।
এরপরও ভাড়া তুলনামূলক কম হওয়ায় এই লাইনে যাত্রীরা ট্রেনেই চলাচল করতেন। শীত মৌসুমে খাজাঞ্চী ও আফজালাবাদ এলাকা থেকে প্রচুর শাক-সবজি দেশের বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয় ট্রেনেই। সবজি পরিবহনে এ রুটে খরচ কম হওয়ায় ব্যবসায়ীরা রেলপথে সিলেট শহরে সবজি বাজারজাত করতেন।
কিন্ত গত তিন মাস ধরে এ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় সাধারণ মানুষ ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা পড়েছেন মহা বিপাকে।
ছাতকের মানসীনগরের বাসিন্দা শামীম আহমদ জানান, ট্রেনে ছাতক থেকে সিলেটের ভাড়া হচ্ছে ১২ টাকা। আর শিক্ষার্থীদের জন্য ভাড়া হচ্ছে ৮ টাকা। ট্রেন না পেলে যাত্রীদের যেতে হয় বাস বা সিএনজি অটো রিক্সায়। সে ক্ষেত্রে ছাতক থেকে সিলেটে সিএনজি অটোরিক্সার ভাড়া পড়ে ৮০ টাকা। আর বাস ভাড়া ৪৫ টাকা। এখন অতিরিক্ত খরচ দিয়েই তাদের সিলেটে যেতে হচ্ছে।
এ ব্যাপারে সিলেট রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার কাজী শহিদুর রহমান বাংলামেইলকে বলেন, ‘নিরাপত্তার কারণে গত ৫ জানুয়ারি থেকে সিলেট-ছাতক লাইনে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। জিআরপি পুলিশের রিপোর্টের ভিত্তিতে ট্রেনের ইঞ্জিন ও বগি ‘ইমারজেন্সি সাটল’ এ রাখা হয়েছে।’
কবে নাগাদ এই লাইনে ট্রেন চালু হতে পারে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘সিলেট-ছাতক সেকশনের দায়িত্বে থাকা মাস্টার নেই। তাই এ ব্যাপারে এখনি কিছু বলা যাচ্ছে না।’

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close