র‌্যাব বিলুপ্ত না হলে কঠোর আন্দোলন

Khaledaসুরমা টাইমস রিপোর্টঃ র‌্যাব বিলুপ্ত না করলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। সোমবার রাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৌদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। বেগম খালেদা জিয়া বলেন, র‌্যাব দেশের জন্য আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে। র‌্যাব যতদিন থাকবে ততদিন মানুষের মন থেকে আতঙ্ক দূর হবে না। র‌্যাবকে দলীয় ও নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করা হচ্ছে। সুতরাং র‌্যাবকে বিলপ্ত করতে হবে। র‌্যাবকে রাখা যাবে না। এর ব্যত্যয় ঘটলে র‌্যাব বন্ধে কঠোর আন্দেলন গড়ে তোলা হবে। আওয়ামী লীগ শুধু বাংলাদেশকে বিভক্ত করতে পারে কিন্তু একত্রিত করতে পারে না বলে মন্তব্য করেন খালেদা জিয়া।
নারায়ণগঞ্জের হত্যার প্রসঙ্গে বেগম জিয়া বলেন, নারায়ণগঞ্জে ৭ জন নয় প্রকৃত পক্ষে ১১ জনকে খুন করা হয়েছে। সম্পূর্ণ ঘটনাকে আড়াল করে মিডিয়ার সামনে ৭ জনের কথা তুলে ধরা হচ্ছে। একই সঙ্গে তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জের হত্যাকা-ের সাথে জড়িত র‌্যাবকে শুধু সরিয়ে আনলে চলবে না। তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে হবে। নারায়ণগঞ্জের নিহতদের পরিবারের উদ্দেশ্য বিএনপির নেত্রী বলেন, সত্য ঘটনা আপনারা গণমাধ্যম ও জনগণের কাছে বলুন। আর এর জন্য সরকার যদি কোন কথা বলে এবং বাধা সৃষ্টি করে তাহলে আমরা ঘরে বসে থাকবো না। সরকারকে তার মাসুল দিতে হবে।
খালেদা জিয়া অভিযোগ করেন, আজ সারাদেশে গ্রেপ্তার বাণিজ্য চলছে। আর এর জন্য সাধারণ মানুষ ও বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা এবং বানোয়াট মামলা দিয়ে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। আটক করার পর টাকা দিলে মুক্তি, না হলে সাজা। এভাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোটি কোটি টাকা অবৈধভাবে হাতিয়ে নিচ্ছে। মতবিনিময় সভায় বিএনপির পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) রুহুল আমীন চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহমেদ তালুকদার, সহ-দপ্তর সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম প্রমুখ। রাঙ্গামাটি জেলা বিএনপির সভাপতি দীপেন দেওয়ানের সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সমীরন দেওয়ান, আব্দুল ওয়াদুদ ভূইয়া, মেরুল বাড্ডা বৌদ্ধ মন্দিরের সুমঙ্গল, প্রধান চন্দ্র চাকমা, মিথারুন চাকমা, উদয় কুসুম বড়–য়া, মন্দিলাল ত্রিপুরা, চন্দ্রা চাকমা, শ্রাবনী চাকমা প্রমুখ।

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close