শনার্থীরা জিয়াকে প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসাবে অস্বীকার করছে : লেবার পার্টি

Dr Iran১৯ দলীয় জোটনেতা ও বাংলাদেশ লেবার পার্টি চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেছেন, সরকার হত্যা,খুন,গুম অপহরন, বিচারবর্হিভুত গুপ্তহত্যাসহ জনদুর্ভোগ ও দেশপরিচালনায় চরম ব্যার্থতা থেকে জনগনের দৃষ্টি আড়াল করতে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে বির্তক সৃষ্টি করেছে। ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চ পর্যন্ত শেখ মুজিব ও আওয়ামী লীগ দেশের স্বাধীনতা চায়নি কনফেডারেশনের মাধ্যমে পূর্ব-পাকিস্থানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিল। ২৬ মার্চ জীবনের ঝুকি নিয়ে কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে শহীদ জিয়াউর রহমান নিজেকে অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি হিসাবে স্বাধীনতার ঘোষনা দেন। জিয়ার ঘোষনায় দিগভ্রান্ত দেশের আপাময় কৃষক-শ্রমিক, ছাত্র-জনতা দলমত নির্বিশেষে মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পরে দেশমার্তৃকায় স্বসস্র যুদ্ধে অংশ নেয়। স্বাধীনতার ৪৩ বছর পরে দখদার আওয়ামী সরকারের অবৈধ এমপি-মন্ত্রীরা শহীদ জিয়া, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বেগম খালেদা জিয়া ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের চরিত্রহননের প্রতিযোগীতায় নেমেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ডুগডুগি বাজিয়ে মুক্তিযুদ্ধে ইতিহাস বিকৃত করছে। ৭১ সালে যারা সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে না থেকে ভারতে শনার্থী শিবিরে নিরাপদে ছিলেন তারাই শহিদ জিয়াকে স্বাধীনতার ঘোষক ও প্রথম রাষ্ট্রপতি হিসাবে অস্বীকার করছে।

আজ (শনিবার) বেলা ১১ টায় দলীয় কার্যালয়ে ১৭ মে ঢাকা মহানগর লেবার পার্টির কাউন্সিল প্রস্তুতি কমিটির সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তাব্যে একথা বলেন। নগর সভাপতি শামসুদ্দিন পারভেজের সভাপতিত্বে সভায় পার্টির মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মোঃ ফরিদ উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ফারুক রহমান, যুগ্ম-মহাসচিব মাহমুদ খান, নগর সাধারন সম্পাদক আশরাফ আলী হাওলাদার, প্রচার সম্পাদক আবু সাঈদ প্রমুখ বক্তাব্য রাখেন। বিজ্ঞপ্তি

Pin It on Pinterest

Share This

By continuing to use the site, you agree to the use of cookies. more information

The cookie settings on this website are set to "allow cookies" to give you the best browsing experience possible. If you continue to use this website without changing your cookie settings or you click "Accept" below then you are consenting to this.

Close